সোমবার ১৪ অক্টোবর ২০১৯



দলীয় কর্মসূচিতে থাকছে না এমপিরা, বিএনপিতে সমালোচনা!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
09.10.2019

নিউজ ডেস্ক: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া দুর্নীতি মামলায় কারান্তরীণ হওয়ার পর তার মুক্তির দাবিতে নানা কর্মসূচি পালন করছে দলের নেতাকর্মীরা। কিন্তু কোনো কর্মসূচিতেই বিএনপির এমপিদের উপস্থিত না থাকা নিয়ে নতুন করে সমালোচনা শুরু হয়েছে দলের অভ্যন্তরে। অনেকেই এর কারণ খোঁজার চেষ্টা করছেন।

এ যাবৎকালে মানববন্ধন, প্রতীকী অনশন, লিফলেট বিতরণ, বিক্ষোভ মিছিল, সভা-সমাবেশ, বিভাগীয় মহা-সম্মেলনসহ হরেক রকমের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি চালিয়ে আসছে দলটি। প্রতিটি কর্মসূচিতেই শীর্ষ নেতারা থেকে শুরু করে তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত থাকছেন। দু’একটি কর্মসূচিতে কেউ কেউ অনুপস্থিত থাকলেও বেশিরভাগেই দেখা মেলে সক্রিয় নেতাদের। তবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর থেকেই দলীয় কর্মসূচিতে অনুপস্থিত থাকছেন বিএনপির এমপিরা। বিএনপি নেতারা তাদের এমন নিষ্ক্রিয়তায় হতবাক।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচিত বিএনপির এমপিদের এমন আচরণে ক্ষোভ প্রকাশ করে বিএনপি, কৃষক দল, স্বেচ্ছাসেবক দল, মহিলা দলসহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতারা বলছেন, বিএনপির হয়ে বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক জনপ্রিয়তাকে ব্যবহার করে এবং ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে এমপি নির্বাচিত হয়েছেন তারা। অন্য একজনকে সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন দিয়ে এমপি হওয়ার সুযোগ দেয়া হয়েছে। যারা এই দল এবং দলের নেত্রীর বদান্যতায় এমপি হয়ে সংসদে গেছেন, সুযোগ-সুবিধা ভোগ করছেন সেই দল ও নেত্রীর মুক্তির ইস্যুতে নীরবতায় ক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা।

এই বিষয়ে নাম প্রকাশ না করার শর্তে মহিলা দলের একজন নেত্রী বলেন, বিএনপির এমপিরা সরকারের অনুগত হয়ে দল বিরোধী কাজ-কর্ম করছেন। দলের নেতাকর্মীরা যেখানে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে রাজপথে আন্দোলন-সংগ্রামে ব্যস্ত সেখানে এমপিরা ব্যস্ত নিজেদের আখের গোছাতে, প্লট নিতে এবং সরকারের কাছে কে কত বেশি পছন্দের তা প্রকাশ করতে। বিষয়গুলো দুঃখজনক।

কৃষক দলের একজন শীর্ষ নেতা বলেন, বেগম জিয়া নির্বাচিত এমপিদের শপথ নেয়ার ব্যাপারে নেতিবাচক সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। তার সেই মনোভাব বোঝার পরও যারা শপথ নিয়েছেন তাদের কাছে সরকারের দালালি করা ছাড়া আর কিছুই আশা করা যায় না।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি