বুধবার ১৩ নভেম্বর ২০১৯
  • প্রচ্ছদ » other important » তুর্কি সীমান্তে সেনা মোতায়েন করতে যাচ্ছে সিরিয়া: এসডিএফ



তুর্কি সীমান্তে সেনা মোতায়েন করতে যাচ্ছে সিরিয়া: এসডিএফ


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
14.10.2019

নিউজ ডেস্ক: কুর্দি নেতৃত্বাধীন প্রশাসনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সিরিয়ার উত্তরে তুরস্কের অভিযান প্রতিরোধ করতে কুর্দি যোদ্ধাদের সহায়তায় সীমান্তে সেনা মোতায়েন করবে দামেস্কো। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সিরিয়া সরকারের সঙ্গে তাদের একটি সমঝোতা চুক্তির পর ওই সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কুর্দিরা।

৭ অক্টোবর সিরিয়ায় আইএসবিরোধী অভিযানের ঘোষণা দিয়ে ৯ অক্টোবর সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে ‘পিস স্প্রিং অপারেশন’ শুরু করে আঙ্কারা। অভিযানের অংশ হিসেবে তুরস্ক সমর্থিত সিরিয়ান ন্যাশনাল আর্মি ইউফ্রেতাসের পূর্বদিকে প্রবেশ করে। তুর্কি অভিযানে সহযোগিতার জন্য তারা অগ্রসর হচ্ছে। পরে কুর্দি নিয়ন্ত্রিত সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় অভিযানে বিমান হামলা ও স্থল অভিযান জোরালো করে তুরস্ক। এতে তিন শতাধিক ‘জঙ্গি’ নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে আঙ্কারা। মানবাধিকার সংগঠনগুলো জানিয়েছে, এ অভিযানে ৩৮ বেসামরিক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা তাদের।

কুর্দি নেতৃত্বাধীন প্রশাসন ফেসবুকে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, তুর্কি অভিযান চালিয়ে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ সরকারের সঙ্গে করা চুক্তি ভঙ্গ করেছে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘এই আগ্রাসন মোকাবিলা ও প্রতিরোধ করতে সিরিয়া সরকারের সঙ্গে একটি চুক্তিতে পৌঁছেছে কুর্দিরা। যাতে এসডিএফ’কে সহায়তা করতে সিরিয়ার সেনাবাহিনীকে তুরস্কের সীমান্তে মোতায়েন করা যায়।’

মূলত সিরিয়ার ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সেস’র (এসডিএফ) কেন্দ্রীয় বাহিনী কুর্দিস পিপলস প্রোটেকশন ইউনিটস’র (ওয়াইপিজি) বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে তুরস্ক ও তার মিত্র ন্যাশনাল আর্মি। আঙ্কারা বলছে, ওয়াইপিজি একটি ‘সন্ত্রাসী’ সংগঠন, যাদের সঙ্গে তুরস্কের কুর্দি বিদ্রোহীদের সংযোগ রয়েছে। তিন দশক ধরে তুরস্কের কুর্দি অঞ্চলসহ অন্যান্য অঞ্চলের স্বাধীনতার জন্য লড়ছে ওই সংগঠন।

উত্তর সিরিয়া থেকে কুর্দি যোদ্ধাদের বিতাড়িত করে সেখানে একটি সেফ জোন প্রতিষ্ঠা করে সিরীয় শরণার্থীদের বসবাসের ব্যবস্থা করতে চায় তুরস্ক।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি