বুধবার ১৩ নভেম্বর ২০১৯



বড়াইগ্রামে রহস্যজনকভাবে দশম শ্রেণির ছাত্রী নিখোঁজ


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
07.11.2019

নিউজ ডেস্ক: নাটোরের বড়াইগ্রামে সম্পা খাতুন (১৬) নামের দশম শ্রেণিতে পড়ুয়া ছাত্রী রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়েছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের পরামর্শে মেয়ের বাবা বড়াইগ্রাম থানায় একটি অভিযোগ করেছেন। বড়াইগ্রাম থানার ওসি দিলীপ কুমার দাস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) সকাল ৯ টার দিকে প্রাইভেট পড়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয় দশম শ্রেণির ছাত্রী সম্পা খাতুন আর ফিরে আসেনি। নিখোঁজ সম্পা খাতুন উপজেলার মাঝগাঁও ইউনিয়নের বাহিমালী গ্রামের মজিবর রহমানের মেয়ে।

থানায় অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, প্রাইভেট পড়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয় দশম শ্রেণির ছাত্রী সম্পা খাতুন। পরে প্রাইভেট পড়ার সময় পেরিয়ে গেলেও বাড়িতে না ফিরলে পরিবারের লোকজন খোঁজাখুঁজি শুরু করে, খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে না পেয়ে প্রাইভেট মাষ্টারের বাড়িতে গিয়ে খোঁজ নিয়ে দেখেন সম্পা খাতুন প্রাইভেট পড়তেই যায়নি। তখন পরিবারের লোকজন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের অবগত করেন।

এদিকে মেয়ের বাবা মজিবরের মোবাইলে সন্ধ্যার দিকে একটি অপরিচিত মোবাইল নম্বর থেকে একটি কল আসে, সেই কলে ছেলে কণ্ঠে একজন বলেন, আপনার মেয়ে আমাদের কাছে আছে, এখানে এসে নিয়ে যান। মেয়ের বাবা পরিচয় জানতে চাইলে ছেলেটি তার গ্রাম দাস গ্রাম, নাম সাগর ও তার বাবার নাম ইউছুফ প্রামানিক বলে কল কেটে দেয়।

পরে পরিবারের লোকজন মোবাইলে দেওয়া স্থান দাসগ্রামে গিয়ে কল করলে নম্বর বন্ধ পায় ও মোবাইলে দেওয়া পরিচয় মিথ্যা বলে প্রমাণিত হয়। সেখানে মেলেনি সাগর নামের কোনো ছেলে। পরিশেষে ব্যাপারটি বেশ রহস্যজনক মনে হওয়ায় জনপ্রতিনিধিদের পরামর্শে মেয়ের বাবা বড়াইগ্রাম থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

এব্যাপারে বড়াইগ্রাম থানার ওসি দিলীপ কুমার দাস জানান, সম্পা খাতুন নিখোঁজের বিষয়ে থানায় একটি অভিযোগ করা হয়েছে। অতিদ্রুত আসামিকে খুঁজে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি