সোমবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২০



চসিক নির্বাচন: আ’লীগ থেকে নির্বাচনে আগ্রহী বিএনপির সাবেক মেয়র মনজুর


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
13.02.2020

নিউজ ডেস্ক: ২০১০ সালে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে চট্টগ্রামে প্রায় লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে হারিয়ে দেশবাসীকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন বিএনপির সাবেক নেতা এম মনজুর আলম। দল থেকে দূরে থাকা এই নেতা আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচনে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তোড়জোড় শুরু হয়েছে। এরইমধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনয়ন ফরমও বিক্রি শুরু করেছে। এদিকে বিএনপিও যোগ্য প্রার্থী ঠিক করতে নানান হিসাব-নিকাশ কষছে। এরমধ্যে নানাজনের কথায় সাবেক মেয়র মনজুরের নাম ঘুরেফিরে আসছে।

এম মনজুর আলমের ঘনিষ্ঠজনরা জানিয়েছেন, মনজুর আলমের আর বিএনপিতে ফেরার সম্ভাবনা নেই। আওয়ামী লীগের ডাকের অপেক্ষায় আছেন তিনি। মনোনয়ন দিলে আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচন করবেন তিনি।

বিষয়টি স্বীকার করে মনজুর আলম জানান, এখন তিনি আওয়ামী লীগের ডাকের অপেক্ষায় আছেন। তিনি বলেন, ‘ডাক পেলে ঢাকায় যাব। দল চাইতে হবে, না হলে ঢাকায় গিয়ে লাভ কী? এর বাইরে আমার কোনো সিদ্ধান্ত নেই।’

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের আ জ ম নাছির উদ্দীনের কাছে হেরেছিলেন সেই সময়কার বিএনপি নেতা মনজুর আলম। সেবার ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ তুলে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেয় বিএনপি। ভোটের দিন দুপুরে দল ভোট থেকে সরে আসার সিদ্ধান্ত নেয়ায় কিছুটা নাখোশ ছিলেন মনজুর। তিনি চেয়েছিলেন কেন্দ্রদখল, ভোট কারচুপি যাই হোক মাটি কামড়ে ভোটের মাঠে পড়ে থাকতে। সেই ক্ষোভ থেকে বিএনপি এবং রাজনীতি ছেড়ে দেয়ার ঘোষণা দেন।

২০১৫ সালে সিটি নির্বাচনে হেরে যাওয়ার পর রাজনীতি ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন মনজুর, যদিও পরে আবার পুরনো দলে ফিরে সংসদ নির্বাচন করতে চেয়েছিলেন। পরে তিনি ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে দলীয় মনোনয়ন ফরম কিনেছিলেন। কিন্তু আওয়ামী লীগ তাকে মনোনয়ন দেয়নি।

এ বিষয়ে মনজুর বলেন, রাজনীতি করব না বলেছিলাম, সঙ্গে এটিও বলেছিলাম সমাজসেবা করে যাব। সেই কমিটমেন্ট আমি রেখেছি। এক মিনিটের জন্যও সমাজসেবা থেকে বিচ্যুত হইনি। এটিও একটি দায়িত্ব পালন। মানুষের প্রতি দায়িত্ব পালন আমি করে গেছি। তবে আওয়ামী লীগ চাইলে নির্বাচন করবো, বিএনপিতে ফেরার কোনো ইচ্ছাই নেই।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি