সোমবার ৬ এপ্রিল ২০২০



আধুনিকায়ন করা হচ্ছে হচ্ছে: এলজিআরডি মন্ত্রী


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
24.02.2020

নিউজ ডেস্ক: ঢাকা: স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় (এলজিআরডি) মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেছেন, পরিবেশের ক্ষতি না করে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা আধুনিকায়ন করা হচ্ছে।

রোববার ( ২৩ ফেব্রুয়ারি) সকালে সিরডাপ মিলনায়তনে কঠিন বর্জ্য ব্যবস্থাপনা তথ্য আদান-প্রদানবিষয়ক এক আলোচনা সভায় তিনি একথা বলেন। আলোচনা সভায় স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় (এলজিআরডি) মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেলাল উদ্দিন আহমেদ ও জাইকা বাংলাদেশের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, ‘জাপান আমাদের বন্ধু রাষ্ট্র। টেকনোলজি ও অভিজ্ঞতাসম্পন্ন একটি দেশ জাপান। আমরা সবাই জানি তারা অনেক ভালো। বাংলাদেশ অর্থনীতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। ২০০৯ সালে মাথাপিচু আয় ছিল ৫০০ ইউএস ডলার, যা এখন ২০০০ ডলার। আমরা জনগণের জন্য কাজ করছি এবং অর্থনীতিতে গতি আনছি। আমরা আধুনিক হচ্ছি। অপরদিকে আমরা পরিবেশের ক্ষতি না করে বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় আধুনিকায়ন করছি। সেজন্য জাইকার সঙ্গে এই আলোচনা।’

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, ‘বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় পরিবর্তন আনতে হলে সবচেয়ে আগে নিজেদের সচেতন হতে হবে। শুধু সরকার বা একটি রাজনৈতিক দল কখনও কোনো কিছু পরিবর্তন করতে পারে না। সেজন্য আগে নিজেদের পরিবর্তন হতে হবে। এ লক্ষ্যে প্রত্যেককে নিজেদের জায়গা থেকে কাজ করতে হবে। তবেই আমরা দ্রুত বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় পরিবর্তন আনতে পারব।’

তিনি আরও বলেন, ‘পলিথিন প্রোডাক্ট ও চিপস প্রোডাক্ট হচ্ছে প্রেট্রোলিয়াম প্রোডাক্ট। ইউরোপিয়ান দেশগুলো উন্নত বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় এগুলো শোধনে সফলতা পেয়েছে। সেজন্য জাইকা ১২টি সিটি করপোরেশন ও ২টি পৌরসভার বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিয়ে যে মাস্টারপ্লান দিয়েছে ২০১৮ থেকে ২০৩২ সাল পর্যন্ত, সেটাকে সাধুবাদ জানাই। আমরা বিষয়গুলো ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করছি। কিন্তু দিন শেষে আমাদের সফলতা কোথায়? যখন আমরা বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় সফল হতে পারব। তবে এই কাজটি আমাদের অতি সতর্কতার সঙ্গে করতে হবে। ইতোমধ্যে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিয়ে আমরা অনেক দেশ সফর করেছি। ফলে আমাদের অনেক অভিজ্ঞতাও হয়েছে। সর্বশেষ কথা হলো, আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে পরিবেশের ক্ষতি না করা।’



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি