মঙ্গলবার ২ জুন ২০২০



আম্ফান : সাতক্ষীরায় বেড়িবাঁধ ভেঙে প্লাবিত বিস্তীর্ণ এলাকা


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
22.05.2020

নিউজ ডেস্ক: ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের আঘাতে সাতক্ষীরার উপকূলীয় বেড়িবাঁধ ভেঙে তছনছ হয়ে গেছে। ভেসে গেছে বিস্তীর্ণ এলাকা। জেলার ২৬টি স্থানে পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) বাঁধ ভেঙে শতাধিক গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এসব গ্রামের অসংখ্য মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। সড়কে অসংখ্য গাছ পড়ে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে সাতক্ষীরা জেলা। ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ, জনপ্রতিনিধিরা একযোগে সড়ক থেকে গাছ সরাতে কাজ করছেন। পানি উন্নয়ন বোর্ড বাঁধ মেরামত কার্যক্রম দ্রুত শুরু করবে বলে জানিয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের আঘাতে জেলার শ্যামনগর, কালিগঞ্জ, আশাশুনি ও সদর উপজেলার ২৬টি স্থানে বাঁধ ভেঙে গেছে। ইতোমধ্যে প্লাবিত হয়েছে উপকূলীয় বিস্তীর্ণ এলাকা। শতাধিক গ্রাম এখন পানিবন্দী।

উপকূলীয় শ্যামনগর উপজেলার বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ভবতোষ কুমার মন্ডল জানান, বুধবার রাতের ঝড়ে ইউনিয়নের দুটি স্থানে আড়াই কিলোমিটার উপকূলীয় বাঁধ ভেঙে গেছে। ১০টি গ্রাম প্লাবিত হয়ে পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। ইউনিয়নের বাকি পাঁচটি গ্রামও পানিবন্দী হয়ে যাবে।

সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল জানান, ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে সাতক্ষীরা জেলা শহরসহ গোটা জেলা লন্ডভন্ড হয়ে গেছে। বিদ্যুতের খুঁটি ও গাছপালা উপড়ে পড়েছে। টিনের ছাউনি উড়ে গেছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিরুপণ করতে বলা হয়েছে। উপকূলীয় বাঁধ মেরামতের জন্য সেনাবাহিনীকে সহযোগিতা করতে বলা হয়েছে।

সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন বোর্ড-১ (শ্যামনগর-কালিগঞ্জ) এর নির্বাহী প্রকৌশলী আবুল খায়ের বলেন, আমার এলাকার মধ্যে উপকূলীয় ৩৮০ কিলোমিটার বাঁধ রয়েছে। এর মধ্যে ১.৭ কিলোমিটার বাঁধ ভেঙে গেছে। মেরামতের চেষ্টা করা হচ্ছে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি