রবিবার ৫ জুলাই ২০২০



খালেদার নামে ছেড়া শাড়ি বিতরণ, বিব্রত গয়েশ্বর


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
25.05.2020

নিউজ ডেস্ক: করোনাভাইরাস সংক্রমণের মধ্যেই পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন করতে যাচ্ছে দেশবাসী। করোনাকালে তাই অসহায় ও দুস্থ মানুষদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করছে সরকার। অপরদিকে লোক দেখানো ত্রাণ বিতরণ করতে গিয়ে নানা সমালোচনার জন্ম দিয়েছে বিএনপি। এবার বেগম জিয়ার নামে দুস্থ নারীদের মাঝে ছেড়া শাড়ি বিতরণ করে নতুন করে বিতর্কের জন্ম দিয়েছে বিএনপি।

জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতিতে রাজধানীর কেরানীগঞ্জের ঘরবন্দি নারীদের জন্য খালেদা জিয়ার নামে ঈদের উপহার ‘শাড়ি’ পাঠিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তার পুত্রবধূ ও দলের নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুণ রায় চৌধুরী এসব উপহার পৌঁছে দেন। কিন্তু বিতরণকৃত এসব শাড়ি ছেড়া, কমদামী এবং রিজেক্ট বলে অভিযোগ করেছেন শাড়ি গ্রহীতারা। তারা বলছেন, ঈদের আগে ছেড়া ও ব্যবহার অনুপযোগী শাড়ি দিয়ে বিএনপি নতুন ভাবে প্রতারণা করলো। দলীয় নেত্রীর নামে এসব নিম্নমানের ঈদ উপহার বিতরণ করে বেগম জিয়া ও বিএনপিকে বিতর্কিত করলেন গয়েশ্বর ও তার পুত্রবধূ। করোনা সংকটেও দুর্নীতির আশ্রয় নেয়ায় বিএনপির কঠোর সমালোচনা করছেন ছেড়া শাড়ি গ্রহীতারা।

দলীয় নেত্রীর নামে ছেড়া শাড়ি বিতরণের অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, আমি নতুন কেরানীগঞ্জের বিএনপি সমর্থক দুস্থ মহিলাদের মাঝে তাতের শাড়ি বিতরণ করার কথা বলেছিলাম। সেই অনুযায়ী আমি স্থানীয় ছাত্রদল নেতা রফিককে টাকা দিয়ে ভালো শাড়ি কিনে তা নিপুণের মাধ্যমে বিতরণ করতে বলেছিলাম। কোথাও ভুল হয়েছে সম্ভবত। এখন শুনছি শাড়িগুলো ছেড়া ও ব্যবহারের উপযুক্ত নয়। বিষয়টি বিব্রতকর। দলীয় নেত্রীর নামে মানহীন পণ্য বিতরণ করাটা একদম উচিত হয়নি।

ছেড়া শাড়ি বিতরণ করার বিষয়ে জানতে চাইলে নিপুণ রায় চৌধুরী বলেন, ম্যাডাম জিয়ার নামে যেসব শাড়ি বিতরণ করা হয়েছে তার সবগুলো নষ্ট ও খারাপ নয়। দু-একটা শাড়ি ছেড়া, রংচটা ছিল। সংকটের মধ্যে যা পাচ্ছি তাই তো চোখ বুঝে গ্রহণ করা উচিত, তাই না! ম্যাডামকে বিতর্কের মুখে ফেলার জন্য ছেড়া শাড়ির কথা প্রচার করা হচ্ছে। বিষয়টি দুঃখজনক।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি