শনিবার ৪ জুলাই ২০২০
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » নতুন দল ঘোষণার আগেই ভিপি নুরকে নিয়ে ছাত্রদলে অস্বস্তি চরমে



নতুন দল ঘোষণার আগেই ভিপি নুরকে নিয়ে ছাত্রদলে অস্বস্তি চরমে


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
27.06.2020

নিউজ ডেস্ক: আদর্শের বিষয়ে অসাম্প্রদায়িকতা, জাতীয়তাবাদ, সমাজতন্ত্র বা গণতন্ত্র বললেও বাস্তবে তা করেনা দেশে বিদ্যমান রাজনৈতিক দলগুলো- এমন অভিযোগ এনে সম্প্রতি নতুন রাজনৈতিক দল গঠনের ঘোষণা দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুর। তার এই ঘোষণার পর থেকেই বিএনপি ছাত্র সংগঠন ছাত্রদলে চরম অসন্তোষ ও অস্বস্তি বিরাজ করছে।

ছাত্রদলের একটি সূত্র জানিয়েছে, সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কার নিয়ে আলোচনায় আসা নুরুল হক নুর সম্প্রতি নতুন রাজনৈতিক দল গঠনের ঘোষণা দেয়ার পর থেকেই বিএনপির ছাত্রসংগঠন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নেতারা রয়েছেন সংশয়ে। তাদের মতে, নুর এখন আর তাদের পক্ষের কেউ নন। যদি হতেন তবে গোপনে ছাত্রদলের হয়ে বিভিন্ন মহলে যোগাযোগের যে অঙ্গীকার তিনি করেছিলেন, তা তিনি রাখতেন। পাশাপাশি মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও ভিপির পদ থেকে তার সরে দাঁড়াতে অনীহা প্রকাশও নতুন প্রশ্নের জন্ম দেয়। এ কারণে ছাত্রদল নেতারা নুরের অবস্থান নিয়ে সন্দিহানের পাশাপাশি বিভ্রান্তও।

সূত্রটি আরো জানিয়ছে, এ ঘটনায় ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ভেতরে ইতোমধ্যে ভয় ঢুকে গেছে। তাদের ধারণা, ভিপি নুর প্রলোভন দেখিয়ে ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের দলে ভেড়াবে। আর তারাও অতিরিক্ত সুযোগ-সুবিধার আশায় তার ফাঁদে পা দেবে। এভাবে একপর্যায়ে কর্মীশূন্য হয়ে পড়তে পারে ছাত্রদল।

এ নিয়ে ছাত্রদলের একাংশ বলছে, ভিপি নুরকে বিশ্বাস করতে ভয় হয়। কারণ তিনি ক্ষণে ক্ষণে রং বদলান। এখন বিএনপি-জামায়াত থেকে ডোনেশন নিলেও তিনি যে রূপ বদলাবেন না, তার কি গ্যারান্টি! তাই তাকে ও তার নতুন রাজনৈতিক দল গঠন নিয়ে ছাত্রদলের তৃণমূল থেকে কেন্দ্রীয় নেতাদের মাঝে চরম অস্বস্তি দেখা দিয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতা এই প্রতিবেদককে বলেন, এমনিতেই দীর্ঘ ২৭ বছর ধরে একই সিন্ডিকেট বৃত্তে আবদ্ধ থাকায় ভঙ্গুর সংগঠনে পরিণত হয়েছে ছাত্রদল। নেতাকর্মীদের মাঝেও গা ছাড়া মনোভাব। দলীয় কর্মকাণ্ডে নেই বিন্দুমাত্র সক্রিয়তা। তার ওপর নুরের নতুন দল গঠনের বিষয়টা আসলেই আতঙ্কের।

এদিকে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, বিষধর সাপকে বিশ্বাস করা গেলেও ডাকসু ভিপি নুরকে বিশ্বাস করা যাবেনা। তার প্রথম কারণ, তিনি স্বাধীনতাবিরোধী বিএনপি-জামায়াত চক্রের একজন সক্রিয় ‘পেইড এজেন্ট’। যিনি তাদের রাজনৈতিক এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্য দল গঠনের এই নাটক মঞ্চায়ন করছেন। উদ্দেশ্য একটাই, পুনরায় মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্তদের গাড়িতে জাতীয় পতাকা উড়ানো এবং সীমাহীন লুটপাটের অদৃশ্য লাইসেন্স বিএনপি-জামায়াত পন্থীদের হাতে তুলে দেওয়া।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি