শুক্রবার ৭ অগাস্ট ২০২০
  • প্রচ্ছদ » Lead 3 » সাংবাদিকের প্রশ্ন শুনে বিব্রত মির্জা ফখরুল!



সাংবাদিকের প্রশ্ন শুনে বিব্রত মির্জা ফখরুল!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
03.07.2020

নিউজ ডেস্ক: বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলের বাজেটোত্তর সংবাদ সম্মেলনে বিব্রতকর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) সংবাদ সম্মেলনে দুজন সাংবাদিক সংবাদ সম্মেলনের বাইরে কিছু রাজনৈতিক বিষয়ে প্রশ্ন করলে বিব্রত ও বিচলিত হতে দেখা যায় বিএনপি মহাসচিবকে।

জাতীয় সংসদে সম্প্রতি ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেট পাশ হওয়ার পর আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানাতে বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় অনলাইন সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে বিএনপি। এ ব্রিফিংয়ে লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। যথারীতি লিখিত বক্তব্য শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্ন করার সুযোগ দেন বিএনপি মহাসচিব। সম্মেলনের একেবারেই শেষ ভাগে এই অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি তৈরি হয় সাংবাদিক পরিচয় দেয়া দুজন ব্যক্তির প্রশ্নে।

ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তাদের ছবি দেখা না গেলেও একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও একটি দৈনিক পত্রিকার দুজন সাংবাদিক নাম প্রকাশ না করে বিএনপি মহাসচিবকে প্রশ্ন করেন। রনি নামের ব্যক্তি যিনি দৈনিক দেশ রূপান্তর পত্রিকার পরিচয়ে বিএনপি মহাসচিবকে প্রশ্ন করেন, ‘‘বিভিন্ন মাধ্যমে শোনা যাচ্ছে রিজভী সাহেবের (বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব) সঙ্গে আপনার দ্বন্দ্ব চলছে-ঘটনাটি কতটা সত্য?’’

মির্জা ফখরুল উত্তর দিয়ে বলেন, ‘‘এ ধরণের প্রশ্ন আমাকে করা ঠিক হয়নি। অন্য কোথাও এই প্রশ্নটি করলে ভালো হতো। এছাড়া আমার সাথে কারো কোন দ্বন্দ্ব নেই। এ ধরণের কথা কোথায় পান আমি জানিনা। প্রশ্নটার সঙ্গে ইলেকশন কমিশনের প্রস্তাবের সঙ্গে অনেকটা মিল রয়েছে বলে কটাক্ষ করেন মির্জা ফখরুল।’’ এসময় তিনি হাসতে থাকেন।

এরপরই অনলাইন নিউজ পোর্টাল বাংলানিউজের নাম ব্যবহার করে অপর এক ব্যক্তি মির্জা ফখরুলকে প্রশ্ন করেন, ‘আপনি যে সংবাদ সম্মেলন করছেন, সেটাকি বেগম জিয়া জানেন.?’

মির্জা ফখরুল উত্তর দেন, ‘‘তিনি (বেগম খালেদা জিয়া) না জানলেতো অন্যকারো জানার কথা না, তিনি অবশ্যই জানেন।’’

এরপরই অপর এক সাংবাদিকের প্রশ্নত্তোর শেষ হলে আবারো দৈনিক দেশ রূপান্তর পত্রিকার নাম ব্যবহার করা রনি নামের ওই ব্যক্তি মির্জা ফখরুলকে প্রশ্ন করেন, ‘‘তাহলে কি আপনি বলতে চাচ্ছেন, এ বাজেট বিএনপির আন্দোলনের মত হয়েছে, ঈদের পর আন্দোলন-ঈদের পর আন্দোলন যেমন বাস্তবায়ন হয়না, তেমনি এ বাজেটও বাস্তবায়ন হবেনা-বিষয়টি কি এমন…?’’

মির্জা ফখরুল কিছুটা ক্ষুব্ধ হয়ে সঙ্গে সঙ্গে তার পরিচয় জানতে চান, বলেন, ‘‘আপনি কে বলছেন, নাম পরিচয় দিন, পরিচয় জানতে পারলে উত্তর দিতে সুবিধা হতো।’’

এ বিষয়ে কথা বলতে বিএনপি মহাসচিবের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে বিষয়ভিত্তিক সংবাদ সম্মেলনে এমন প্রশ্ন করায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কিছুটা ক্ষুব্ধ হয়েছেন বলে জানা গেছে। এমনকি সরাসরি সম্প্রচারিত অনলাইন ব্রিফিংএ এমন প্রশ্ন বিএনপি ও দলটির মহাসচিবকে বিব্রত করেছে বলেও তিনি মনে করেন।

এদিকে এ ঘটনার পরপরই বিষয়টিকে অনভিপ্রেত ও অনাকাঙ্ক্ষিত উল্লেখ করে বিএনপির পক্ষ থেকে সকলকে পেশাদারিত্বের সাথে কাজ করার আহ্বান জানানো হয়েছে বলে মুঠোবার্তায় জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং মেম্বার শায়রুল কবির খান।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি