বুধবার ১২ অগাস্ট ২০২০
  • প্রচ্ছদ » » জায়েদকে গরু দিতে না পারায় সদস্যপদ হারালেন ফিরোজ সাঁই



জায়েদকে গরু দিতে না পারায় সদস্যপদ হারালেন ফিরোজ সাঁই


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
16.07.2020

নিউজ ডেস্ক: শিল্পী সমিতির পিকনিকে গরু চাওয়ায় সেটা দিতে পারেনি বলে সমিতির সদস্যপদ বাদ করে দিয়েছেন জায়েদ খান এমন অভিযোগ করলেন প্রযোজক ও অভিনেতা ফিরোজ সাঁই।

ফিরোজ সাঁই বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বাংলাদেশ বেতারের একজন উচ্চশ্রেণীর শিল্পী। বহু ছবির প্রযোজক তিনি। অভিনয়ও করেছেন অনেক ছবিতে। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির একজন সদস্যও ছিলেন তিনি। এখন তার সদস্যপদ নেই।

সদস্যপদ হারানোর কারণ হিসেবে জায়েদ খানের আবদার না রাখার কথা বলেন তিনি। ফিরোজ সাঁই বলেন, ‘একটি গরু দিতে না পারার জন্য শিল্পী সমিতি থেকে আমার সদস্যপদ বাতিল করে দিয়েছেন জায়েদ খান। অথচ আমি ‘আমি অনেক দিন ধরেই সিনেমার সঙ্গে সম্পৃক্ত। বিটিভির সর্বোচ্চ গ্রেডের একজন শিল্পী। বাংলাদেশ বেতারেও আমি তালিকাভুক্ত শিল্পী। টেলিভিশন প্রোডিউসার এসোসিয়েশনের এক্সিকিউটিভ মেম্বার। চলচ্চিত্র প্রযোজক সমিতির একজন সদস্য। কিন্তু একবার জায়েদ খান আমার কাছে ডোনেশন হিসেবে একটি গরু চেয়েছিল। গরু আমি দিতে পারিনি। বলেছিলাম ২০ হাজার টাকা দেব। তাতেই রেগে আমার সদস্যপদ বাদ করে দিয়েছেন তিনি।’

এদিকে চলচ্চিত্রের স্বার্থবিরোধী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে চিত্রনায়ক ও শিল্পী সমিতির নেতা জায়েদ খানকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে তাকে বয়কট করলো চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট ১৮টি সংগঠন। বুধবার এফডিসির জহির রায়হান কালার ল্যাব হলরুমে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেয়া হয়।

১৮ সংগঠনের পক্ষ থেকে জায়েদ খানের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়। এছাড়া অনেকে ব্যক্তিগতভাবে শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক হিসেবে জায়েদ খানের ক্ষমতার অপব্যবহার করাসহ নানা অভিযোগ আনেন।

সেখানে নিজের বক্তব্য দেয়ার সময় ফিরোজ সাঁই আরও বলেন, শিল্পী সমিতি হলো শিল্পীদের জন্য। কিন্তু এখানে জায়েদ খান তার ব্যক্তিগত বাণিজ্যিক অফিস বানিয়েছে। এমন সব নায়িকা নিয়ে এখানে আড্ডা হয় যাদের ইন্ডাস্ট্রির কেউ চেনে না। মদের আসর বসায় সে। তার কোন শুটিং থাকে না। তবুও এফডিসিতে দুপুর থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত সে কি করেন? ’ শুধু নিজেই নন অন্যায়ভাবে প্রায় একশ ত্রিশজনেরও বেশি সদস্যকে বাতিল করা হয়েছে বলে জনান ফিরোজ সাঁই।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি