বুধবার ১২ অগাস্ট ২০২০
  • প্রচ্ছদ » other important » ঈদের পরেই ভেঙে যেতে পারে জামায়াতের সঙ্গে বিএনপির সম্পর্ক!



ঈদের পরেই ভেঙে যেতে পারে জামায়াতের সঙ্গে বিএনপির সম্পর্ক!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
31.07.2020

নিউজ ডেস্ক: ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক দল জামায়াতে ইসলামীর কর্মকাণ্ডে ক্ষুব্ধ বিএনপির অধিকাংশ নেতা। যার ফলে ঈদের পরেই ভেঙে যেতে পারে জামায়াতের সঙ্গে রাজনৈতিক সম্পর্ক। বিভিন্ন সূত্রে এমনটাই জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, আন্দোলন-সংগ্রামে নীরব ভূমিকা ও নিষ্ক্রিয়তায় অসন্তুষ্ট বিএনপি। এছাড়া যুদ্ধাপরাধীর তকমাসহ জামায়াতের বিরুদ্ধে বেশ কিছু অভিযোগের কারণে বিব্রতবোধ করছেন বিএনপির সিনিয়র নেতারা। তারা সভা-সমাবেশে বা বিভিন্ন আলাপ-আলোচনায় জামায়াত ইস্যুতে নানামুখী প্রশ্নের সম্মুখীন হচ্ছেন। যার ফলে ঈদের পর জামায়াতের সঙ্গে আর কোনো সম্পর্ক রাখতে চাচ্ছে না দলটির হাইকমান্ড।

জানা গেছে, বিএনপিতে দলীয় চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ছাড়া বেশিরভাগ নেতাই জামায়াত পরিপন্থী। তারা জামায়াতের সঙ্গে সখ্য রাখতে চান না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির সিনিয়র একজন নেতা বলেন, ভবিষ্যতে আন্দোলন-সংগ্রামে জামায়াত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে- এই ভেবে যুদ্ধাপরাধীর তকমা লাগানো জামায়াতের সঙ্গে এখনো জোটবদ্ধ আছে বিএনপি।

তিনি বলেন, নিজ দলের নেতাকর্মীদের প্রতি আস্থা হারিয়ে ফেলেছেন তারেক রহমান। তিনি আন্দোলন-সংগ্রামে বিএনপি ও তার অঙ্গ সংগঠনের চেয়ে জামায়াত-শিবিরকে বেশি তৎপর বা উত্তম ভাবেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের এমপি হারুন অর রশিদ বলেন, জামায়াতের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড নিশ্চিহ্ন হয়েছে, তাদের কোনো তৎপরতাই নেই।

তিনি বলেন, জামায়াতের সঙ্গে বিএনপির থাকা না থাকা নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। এটা দলীয় সিদ্ধান্তের ব্যাপার। দলের শীর্ষ পর্যায়ের নীতিনির্ধারণী ফোরাম রয়েছে, তাদের ব্যাপার। তবে জামায়াতের সঙ্গে বিএনপির জোট মূলত একটি নির্বাচনী জোট বলে মন্তব্য করেন বিএনপির এই এমপি।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি