সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » » ফুটবলারকে ‘গরিলা’ বলায় তীব্র সমালোচনার মুখে এই নায়িকা



ফুটবলারকে ‘গরিলা’ বলায় তীব্র সমালোচনার মুখে এই নায়িকা


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
30.01.2019

নিউজ ডেস্ক: নাইজেরিয়ার এক ফুটবলারকে বর্ণবাদী মন্তব্যের জেরে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়লেন বলিউড অভিনেত্রী এশা গুপ্ত। পরে অবশ্য ক্ষমা চেয়েছেন সাবেক ‘মিস ইন্ডিয়া ইন্টারন্যাশনাল’।

নাইজেরিয়ার ফুটবলার আলেক্সান্দার আইয়োবির সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সের সমালোচনা করে হোয়াটসঅ্যাপ-আলাপের স্ন্যাপশট শেয়ার করেন ‘জান্নাত-২’ খ্যাত অভিনেত্রী এশা গুপ্ত। ওই আলাপে দেখা যায়, ফুটবলার আলেক্সান্দারকে ‘গরিলা’ অভিধা দিয়ে ‘তাঁর জন্য বিবর্তন থেমে গেছে’ বলে মন্তব্য করেন এশার এক বন্ধু।

বন্ধুর বর্ণবাদী মন্তব্যের প্রতিবাদ না জানিয়ে বরং ‘হা হা’ প্রতিক্রিয়া দিতে দেখা যায় নায়িকা এশা গুপ্তকে। এশা লেখেন, ‘হা হা… আমি জানি না কেন তাঁকে বেঞ্চে পাঠায় না।’

যা হোক, এশার মন্তব্য ভালোভাবে নেননি নেটিজেনরা, এমনকি তাঁর ভক্ত ও অনুরাগীরাও। বন্ধুর বর্ণবাদী মন্তব্য ‘এড়িয়ে যাওয়ায়’ এশাকে তিরস্কার করেন তাঁরা। অনেকে বলেছেন, অতীতে এশা নিজে বর্ণবাদের শিকার হলেও এবার তিনি নির্লিপ্ত!

নেটিজেনদের তীব্র সমালোচনার মুখে পরে ক্ষমা চান লাস্যময়ী এই অভিনেত্রী। মাইক্রো-ব্লগিং সাইট টুইটার থেকে একাধিক ক্ষমাপ্রার্থনার বার্তা দেন তিনি। বলেন, এটা যে বর্ণবাদী মন্তব্য, তিনি বুঝতেই পারেননি।

টুইট বার্তায় এশা বলেছেন, তিনি খেলা ভালোবাসেন। নিজের ‘নির্বুদ্ধিতার’ জন্য ক্ষমা চান তিনি।

কিছুদিন আগে নির্মাতা-প্রযোজক করণ জোহর সঞ্চালিত জনপ্রিয় ও বিতর্কিত চ্যাট শো ‘কফি উইথ করণ’-এ ‘নারীবিদ্বেষী’ মন্তব্যের কারণে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েন ভারতের ক্রিকেটার হার্দিক পান্ডিয়া, যাঁর সঙ্গে এশার একসময় প্রেম ছিল বলে বি-টাউনে গুঞ্জন রয়েছে।

হার্দিকের ‘আপত্তিকর’ মন্তব্যের জেরে বলিউডের অনেক তারকার পাশাপাশি এশা গুপ্তও প্রতিবাদ জানান। একটি অনুষ্ঠানে গণমাধ্যমকর্মীরা এশাকে জিজ্ঞেস করেন, হার্দিক পান্ডিয়ার সঙ্গে তাঁর বন্ধুত্ব ছিল কি না। এশা উল্টো প্রশ্ন ছুড়ে দেন, ‘কে বলতে পারবে ও আমার বন্ধু ছিল?’ বরং ওই ক্রিকেটারের সমালোচনা করেন ‘বেবি’ অভিনেত্রী এশা গুপ্ত।

‘কমান্ডো-২’ অভিনেত্রী বলেন, ‘পুরুষের সঙ্গে নারীর তুলনা হতেই পারে না। যেকোনো তুলনায় আমরা সেরা। কাউকে কষ্ট দিতে চাই না, কিন্তু কেন তোমরা সন্তান জন্ম দিতে পারো না? মাসে পাঁচ দিন আমরা পিরিয়ডে ভুগি এবং এর মধ্যেও আমাদের নাচতে যেতে হয়, অফিসে যেতে হয় ও বাচ্চাদের দেখভাল করতে হয়। যদি তোমরা এসব করতে পারো, তবেই সুপিরিয়র হতে পারবে।’ সূত্র : বলিউড বাবল



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি