জাবি শিক্ষক সমিতি সভাপতি অজিত কুমার, সম্পাদক সোহেল রানা

নিউজ ডেস্ক: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির নির্বাচনে ‘সম্মিলিত শিক্ষক সমাজ’ থেকে সভাপতি পদে জয়ী হয়েছেন পরিসংখ্যান বিভাগের অধ্যাপক অজিত কুমার মজুমদার (আ.লীগ)। সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছেন ফার্মেসি বিভাগের অধ্যাপক সোহেল রানা (বিএনপি)।

বৃহস্পতিবার জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির ২০১৯ কার্যনির্বাহী পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ক্লাবে সকাল নয়টা থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ শেষে সন্ধ্যায় নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার এ কে এম আবুল কালাম।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগপন্থী শিক্ষকদের একাংশের সংগঠন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ, বিএনপিপন্থী শিক্ষকদের সংগঠন জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরাম এবং বামপন্থী একজন শিক্ষককে নিয়ে গঠিত প্যানেল ‘সম্মিলিত শিক্ষক সমাজ’ ১৫টি পদের ১০টিতে জয় পায়।

অন্যদিকে সহসভাপতি ও চারটি সদস্যপদ পেয়েছে আওয়ামী লীগপন্থী শিক্ষকদের অন্য অংশের প্যানেল বঙ্গবন্ধু-আদর্শের শিক্ষক পরিষদ। শিক্ষকদের এই অংশ উপাচার্য ফারজানা ইসলাম সমর্থিত।

এছাড়া যুগ্ম সম্পাদক পদে সহযোগী অধ্যাপক লাইজু নাসরীন (আ.লীগ), কোষাধ্যক্ষ পদে অধ্যাপক মনোয়ার হোসেন (বিএনপি)।

এই জোট থেকে সদস্য পদে অধ্যাপক মাহবুব কবির (বিএনপি), অধ্যাপক শামসুল আলম (বিএনপি), অধ্যাপক ফরিদ আহমদ (আ.লীগ), অধ্যাপক মোহাম্মদ আমজাদ হোসেন (আ.লীগ), অধ্যাপক সৈয়দ হাফিজুর রহমান (আ.লীগ), অধ্যাপক সাঈদ ফেরদৌস (বামপন্থী) নির্বাচিত হয়েছেন।

অন্যদিকে ‘বঙ্গবন্ধু-আদর্শের শিক্ষক পরিষদ’ থেকে সহসভাপতি পদে অধ্যাপক যুগল কৃষ্ণ দাশ জয়লাভ করেছেন। এই প্যানেল থেকে সদস্য পদে অধ্যাপক এ এ মামুন, অধ্যাপক রাশেদা আখতার, সহযোগী অধ্যাপক আয়শা সিদ্দিকা ও সহকারী অধ্যাপক মাহফুজা খাতুন জয়লাভ করেছেন।

‘সম্মিলিত শিক্ষক সমাজ’–এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের ভাষ্য, গত বছরের ১৮ ফেব্রুয়ারি অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম ১৯৭৩–এর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাদেশের নিয়ম ভেঙে দ্বিতীয় মেয়াদে উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন। এ নিয়ে আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের সংগঠন ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ’-এর বিরোধিতা করে।

বিশ্ববিদ্যালয়ে রাজনীতি করেন এমন শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, উপাচার্য হিসেবে ফারজানা ইসলাম দ্বিতীয় মেয়াদে নিয়োগ পাওয়ায় কার্যত দুই মেরুতে বিভক্ত হয়ে পড়েন আওয়ামী লীগের শিক্ষকেরা। পরে উপাচার্যপন্থী শিক্ষকেরা ‘বঙ্গবন্ধু-আদর্শের শিক্ষক পরিষদ’ নামে নতুন সংগঠন গঠন করেন।

তবে উপাচার্যপন্থী শিক্ষকদের ভাষ্য, ফারজানা ইসলাম রাষ্ট্রপতি কর্তৃক দ্বিতীয় মেয়াদে উপাচার্য পদে আসীন হন—সেখানে ৭৩–এর অধ্যাদেশের কোনো ব্যত্যয় হয়নি।

বামপন্থী শিক্ষক অধ্যাপক সাঈদ ফেরদৌস বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে জবাবদিহির আওতায় আনার উদ্দেশ্যে সম্মিলিত জোট গঠন করা হয়েছে। প্রশাসনের মন্দ কাজের প্রতিবাদ ও গঠনমূলক সমালোচনা করাই হবে শিক্ষক সমিতির মূল কাজ।

সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা বলেন, ‘আওয়ামী লীগ বা বিএনপির আদর্শিক বিষয়টির চেয়ে আমাদের কাছে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থ বড় হয়ে উঠেছে। অন্য সব আদর্শের চেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার আদর্শকে সমুন্নত রাখতে গিয়ে আমরা এই জোট গঠন করেছি। আমরা জাকসু নির্বাচনের বিষয়ে দাবি তুলেছি। সে লক্ষ্যে কাজ করব।’

শিক্ষক সমিতির নবনির্বাচিত সভাপতি অজিত কুমার মজুমদার বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয়ে যখন কোনো সংকট তৈরি হয় তখন দলীয় স্বার্থের বাইরে গিয়ে শিক্ষকেরা এমন মোর্চা গঠন করেন। শিক্ষকদের লক্ষ্য থাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বৃহত্তর স্বার্থ রক্ষা করা। শিক্ষক সমিতির নতুন কমিটি সে লক্ষ্যেই কাজ করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন

সোহরাওয়ার্দীতে রাজি মির্জা আব্বাস, আপত্তি ফখরুলদের

নিউজ ডেস্ক : ১০ ডিসেম্বরের গণসমাবেশ নিয়ে শুরু থেকেই একর পর এক নাটক করে যাচ্ছে বিএনপি। এদিন সরকারকে টেনে নামাবে বলে ঘোষণা দিয়েছে দলটির নেতারা। অথচ বিএনপির দাবি অনুযায়ী সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার অনুমতি দিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। এতেই বাধে বিপত্তি। দলের একটি অংশ সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশ করতে রাজী হলেও বাকীরা চায় দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় […]

বিস্তারিত

যে কারণে সমাবেশের জন্য ১০ ডিসেম্বর বেছে নিল বিএনপি

নিউজ ডেস্ক: স্বাধীনতাবিরোধী ও জনবিচ্ছিন্ন দল বিএনপি তাদের সমাবেশের তারিখ ১৬ ডিসেম্বর অর্থাৎ বাংলাদেশের বিজয় দিবসের পর না দিয়ে কেন ১০ ডিসেম্বর বেছে নিয়েছে, এই প্রশ্ন এখন জনমনে। তারা বলছেন, বিএনপি কি জানে না বাংলাদেশের ইতিহাস? ১৯৭১ সালের ১০ ডিসেম্বর বুদ্ধিজীবী হত্যার নীলনকশা বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া শুরু হয়। ১০ থেকে ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত এ বুদ্ধিজীবী হত্যার […]

বিস্তারিত

সুসংগঠিত না হয়ে কাঁচের মতো টুকরো টুকরো বিএনপি

নিউজ ডেস্ক: দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেলে সবাই-ই মুখ খোলে। খুলতে বাধ্য হয়। বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম হলো না। গুলশানের বাসায় গৃহপরিচারিকা ফাতেমার কাছে আক্ষেপ করে তিনি বললেন, আজ যা এতকিছু। সব কিছুর জন্য তারেকই দায়ী। তার জন্যই দলটা শেষ হয়ে গেছে। নেতাকর্মীরা কেউই এখন আর কোন আন্দোলন-সংগ্রামে আসতে চান না। আর […]

বিস্তারিত