প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে সুফল দিচ্ছে গৃহীত ব্যবস্থা

নিউজ ডেস্ক: ২ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয়েছে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষা। কোনোভাবেই যেন কুচক্রী মহল প্রশ্নফাঁস কিংবা ভুয়া প্রশ্ন ছড়াতে না পারে সেজন্য সাইবার দুনিয়ায় নজরদারি শুরু করেছে র‌্যাব। শিক্ষা সংশ্লিষ্টরা যে যার অবস্থান থেকে সোচ্চার ভূমিকা পালন করছে। সরকার ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের গৃহীত নানাবিধ ব্যবস্থা গ্রহণের ফলে প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো অপতৎপরতা রোধ করা সম্ভব হচ্ছে। সরকারের গৃহীত ব্যবস্থায় সুফল পাচ্ছে শিক্ষার্থীরা। অন্যদিকে স্বস্তিতে রয়েছেন অভিভাবকরা।

প্রশ্নফাঁস রোধে ইতোমধ্যে গোয়েন্দা নজরদারি শুরু করেছে র‌্যাব। সাইবার পেট্রোলিং চলছে, চালানো হবে আন্ডারকাভার অপারেশন। ইতোমধ্যে কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কড়া নজরদারির ফলে এরইমধ্যে প্রশ্নপত্র ফাঁস চক্রের একাধিক সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-পুলিশ।

পরীক্ষা শুরুর আগে র‍্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেছিলেন, ‘এসএসসি পরীক্ষার্থীর অভিভাবকদের উদ্দেশে বলব, আপনারা প্রশ্নপত্রের পেছনে দৌড়াদৌড়ি করবেন না। শিক্ষকদের উদ্দেশে বলছি, আপনারা এ ধরনের কাজের সঙ্গে যুক্ত হবেন না। শিক্ষার্থীদের বলছি, কেউ যদি এ ধরনের কোনো কাজের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট থাকে তাহলে তাদেরকে আমরা গ্রেফতার করব। শিক্ষার্থীদের গ্রেফতার করলে তাদের শিক্ষাজীবন বিনষ্ট হয়ে যাবে, আমরা এমনটা করতে চাই না। তাই তাদের এসব থেকে দূরে থাকার আহ্বান জানাচ্ছি।’

সেই আহ্বানে সাড়া দিয়ে এসএসসি পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো অপরাধ রুখে দিতে অবদান রাখছে, শিক্ষক-শিক্ষার্থী সমাজ, অভিভাবক থেকে শুরু করে দেশের সকল স্তরের মানুষ। যা শিক্ষাব্যবস্থায় উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন আনবে বলে আশা করছেন শিক্ষা সংশ্লিষ্টরা।

প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে র‍্যাবের অন্যান্য গোয়েন্দা বাহিনীর সমন্বয়ের সোশ্যাল মিডিয়া মনিটরিং করা হচ্ছে। সোশ্যাল মিডিয়া এবং অ্যাপস সবকিছুতেই খেয়াল রাখছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। গত বছর প্রশ্নপত্র ফাঁস সংক্রান্ত ঘটনায় ১২৮ জনকে গ্রেফতার করা হলেও তা তুলনামূলক এ বছর শূন্যের কোটায় নেমে এসেছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকলে আর কোনোভাবেই প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো ভয়াবহ ব্যাধি শিক্ষাব্যবস্থায় প্রবেশ করতে পারবে না বলেও মনে করা হচ্ছে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তথ্য অনুযায়ী, অধিকাংশ ক্ষেত্রে ফাঁস হয় প্রশ্নপত্র ভুয়া। কেউ যদি ভুয়া প্রশ্নপত্র ফাঁস করে সেক্ষেত্রে তাকেও ধরা হবে। এটাও জঘন্য অপরাধ। এ ধরনের প্রতারণাকারী শিক্ষক-ছাত্র কিংবা দাগী অপরাধী যেই হোক না কেনো তাকে গ্রেফতার করা হবে।

এমন প্রেক্ষাপটে সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা বলছেন, একটি সামাজিক ব্যাধিকে নির্মূল করতে শিক্ষা সংশ্লিষ্ট প্রতিটি পদক্ষেপই প্রশংসার দাবি রাখে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও দেখুন

পুলিশের উপর হামলাসহ তৃণমূলে ৭ নির্দেশনা বিএনপির

Share this… Facebook 0 Twitter Telegram Linkedin নিউজ ডেস্ক : আগামী ২২ আগস্ট থেকে দেশব্যাপী উপজেলা, থানা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে সভা, সমাবেশ, ভাংচুর ও বিক্ষোভ মিছিলসহ পুলিশের হামলা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। জানা গেছে, স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা আব্দুর রহিম ও ছাত্রদল নেতা নূরে আলম হত্যার প্রতিবাদে এসব কর্মসূচি পালন করা হবে। কর্মসূচি বাস্তায়নে কেন্দ্রীয় […]

বিস্তারিত

ছাত্রদলের পারফরম্যান্সে ক্ষুব্ধ তারেক, স্কাইপে করলেন গালাগালি

Share this… Facebook 0 Twitter Telegram Linkedin নিউজ ডেস্ক: চলতি বছরের ১৭ এপ্রিল বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে ছাত্রদলের পূর্বের কমিটি বিলুপ্ত করে ঘোষণা করা হয় পাঁচ সদস্যের নতুন কেন্দ্রীয় কমিটি। ছাত্রদলের সেই আংশিক কমিটিতে কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণকে সভাপতি ও সাইফ মাহমুদ জুয়েলকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি দেয়া হলেও অচলাবস্থা কাটেনি ছাত্রদলের। ছাত্রদলের […]

বিস্তারিত

২১ আগস্ট: দেশকে নেতৃত্বশূন্য করার সেদিনের মিশনে

Share this… Facebook 0 Twitter Telegram Linkedin নিউজ ডেস্ক: স্বাধীনতার প্রাক্কালে ১৪ ডিসেম্বর যেভাবে বুদ্ধিজীবী হত্যাকাণ্ড চালানো হয়েছিল, ঠিক একই উদ্দেশ্যে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসবিরোধী জনসভায় চালানো হয়েছিল ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা। দেশে বিরোধী মতকে দমন ও নিশ্চিহ্ন করার অংশ হিসেবে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার উপর এই হামলা […]

বিস্তারিত