বিএনপিকে আওয়ামী লীগ থেকে শিক্ষা নিতে হবে বলে ফেঁসে গেলেন বিএনপির বুদ্ধিজীবীরা

নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) ভঙ্গুর অবস্থা বিবেচনায় ৭৫ পরবর্তী আওয়ামী লীগের রাজনীতি দেখে বিএনপিকে সে বিষয়ে শিক্ষা নিতে হবে বলে মন্তব্য করে ফেঁসে গেলেন বিএনপিপন্থী বুদ্ধিজীবীরা।

বিএনপির কারান্তরীণ চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার কারাগারে এক বছর পূর্তি উপলক্ষে বিএনপিপন্থী বুদ্ধিজীবী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মাহবুব উল্লাহ, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, ড. এমাজউদ্দীন আহমেদ এমন পরামর্শ দেন।

রাজনৈতিক অঙ্গনে পুরনো একটি দল বিএনপিকে আওয়ামী লীগের কাছ থেকে শিক্ষা নিতে হবে- এমন পরামর্শ জ্ঞানগর্ভ হলেও তা মেনে নিতে পারেননি দলের সিনিয়র ও মাঠপর্যায়ের নেতারা। তারা বলছেন, সরাসরি আওয়ামী লীগের নাম উল্লেখ না করে বিগত রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট থেকে শিক্ষা নিতে হবে বললে বিষয়টি স্বাভাবিক হতো। কেননা, আওয়ামী লীগের সঙ্গে বিএনপির যে বিরোধ সম্পর্ক সেখানে এই বক্তব্য আওয়ামী লীগকে উস্কে দেয়ার নামান্তর।

এ প্রসঙ্গে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, বিএনপির পুনর্জাগরণের চেষ্টা ও পরিকল্পনা সকল নেতার মধ্যেই রয়েছে। কিন্তু বিরোধী দলের উদাহরণ টেনে তা থেকে শিক্ষা নেয়ার পরামর্শ দেয়া দলীয় শৃঙ্খলা বহির্ভূত। আমরা বিষয়টি সহজভাবে মানতে পারেনি। দলের কোনো নেতা তা মানবেও না।

বিএনপিপন্থী অন্যতম বুদ্ধিজীবী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মাহবুব উল্লাহ মনে করেন, বিএনপির বর্তমান যে রাজনৈতিক সংকট এবং সিদ্ধান্তহীনতা, সেই জায়গা থেকে বিএনপিকে বেরিয়ে আসতে হবে সাংগঠনিক শক্তির বলেই এবং নিজস্ব আদর্শ ও নীতির মাধ্যমেই। বিএনপি যদি তার আদর্শের সঙ্গে সমঝোতা করে বা আপস করে তাহলে সংকট আরো ঘনীভূত হবে। এ প্রসঙ্গে উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, ৭৫ এর ১৫ আগস্টের পর আওয়ামী লীগ এরকম অস্তিত্ব সংকটে পড়েছিল। তারা যেভাবে সংকট থেকে উত্তরণ ঘটিয়েছিল সেটিকে অনুকরণ করাই উৎকৃষ্ট কাজ হবে।

বিএনপিপন্থী বুদ্ধিজীবী এবং জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী মনে করেন, একটা রাজনৈতিক দলে যখন সংকট তৈরি হয়, তখন সে সংকট থেকে উত্তরণের জন্য একটা নতুন নেতৃত্বের বিকাশ ঘটাতে হয়। নেতৃত্বের নির্দেশনায় দলকে পুনর্গঠিত করতে হয়। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলেও বিএনপিতে সেরকম নেতৃত্ব নেই। আওয়ামী লীগের উত্থান ও অবস্থানের দিকে লক্ষ্য করে বিএনপি যদি তা থেকে শিক্ষা নিতে পারে তা হবে সংকট থেকে উত্তরণের প্রধান পথ।

বিএনপির সাংগঠনিক নেতৃত্বের কথা উল্লেখ করে ড. এমাজউদ্দীন আহমদ বলেন, বিএনপির রাজনীতি সস্তা তথা বস্তাপচা রাজনীতিতে পরিণত হচ্ছে। সেখান থেকে যদি বিএনপি উত্তরণ না করতে পারে তাহলে বিএনপির এই সংকট মোকাবিলা করা যাবে না। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলে এমন সংকট আসে। ৭৫ এর ১৫ আগস্টের পর আওয়ামী লীগ এমন সংকটে পড়েছিল। সেই সংকট থেকে আওয়ামী লীগের যে উত্তরণ তা থেকেই বিএনপিকে শিক্ষা নিতে হবে। এই শিক্ষা নিতে সবচেয়ে আগে যা দরকার তা হলো দলের আদর্শ এবং নীতিকে সামনে রাখা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও দেখুন

কর্নেল ফারুক

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনির মার্কাও ধানের শীষ!

Share this… Facebook 0 Twitter Telegram Linkedin নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করা হয় ১৫ আগস্ট ১৯৭৫। সেই নারকীয় হত্যাকাণ্ডকে দেশবিরোধী দল বিএনপি নাম দেয় “আগস্ট বিপ্লব” বলে। নিজেদের স্বার্থসিদ্ধির জন্য রাষ্ট্রের এমন কোনো খাত নেই যেখানে বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারী তথা বিএনপি-জামায়াতের লোকদের পদায়ন করা হয়নি। এমনকি জাতির পিতার খুনিকেও […]

বিস্তারিত
বিএনপি

খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে ১৬ আগস্ট মিলাদ পড়াবে বিএনপি

Share this… Facebook 0 Twitter Telegram Linkedin নিউজ ডেস্ক: দুর্নীতির দায়ে দণ্ডিত বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য আগস্ট মাসে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বিএনপি। জানা গেছে, আইনি প্রক্রিয়ায় নেত্রীর মুক্তি আদায়ে ব্যর্থ হওয়ায় আগস্ট মাসে ক্ষমতাসীন দলের আবেগকে পুঁজি করে বেগম জিয়াকে মুক্ত করতে প্রয়াস চালাবে দলটি। সে লক্ষ্যে ১৬ আগস্ট খালেদা জিয়াকে […]

বিস্তারিত
১৫ আগস্ট ও খালেদা জিয়া

১৫ আগস্ট ও খালেদা জিয়ার জঘন্য জন্মদিন নাটক

Share this… Facebook 0 Twitter Telegram Linkedin নিউজ ডেস্ক: খালেদা জিয়া। এই নামটিই বাংলাদেশে বারবার জন্ম দিয়েছে একের পর এক বিতর্কের। কখনো অতি স্বজনপ্রীয়তা কিংবা দুর্নীতি আবার কখনোবা চারিত্রিক ত্রুটি। তবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার দিনটিকে তথা জাতীয় শোক দিবসে (১৫ আগস্ট) জন্মদিন পালনের যে জঘন্য রীতি সে তৈরী করেছে তা […]

বিস্তারিত