কলকাতা বইমেলা শেষ যেখানে সেরা বাংলাদেশ

নিউজ ডেস্ক: কলকাতার ঐতিহ্যবাহী আন্তর্জাতিক বইমেলা শেষ হলো সোমবার রাতে। বইমেলার সেরা জনপ্রিয় প্যাভিলিয়ন হিসেবে পুরস্কার পেয়েছে বাংলাদেশ প্যাভিলিয়ন। প্যাভিলিয়নটি তৈরি হয়েছে সাড়ে ৩ হাজার বর্গফুট জায়গাজুড়ে ঢাকার রোজ গার্ডেনের আদলে।

এবার কলকাতা বইমেলা ৪৩ বছরে পা দিয়েছে। বইমেলার আয়োজক কলকাতার পাবলিশার্স অ্যান্ড বুক সেলার্স গিল্ড। প্রতিবারের মতো এবারও বইমেলায় যোগ দিয়েছেন বাংলাদেশের প্রকাশকেরা। এসেছে বাংলাদেশের ৪৫টি টি প্রকাশনা সংস্থা। এর মধ্যে ৮টি সরকারি প্রকাশনা সংস্থা। এবার বাংলাদেশ প্যাভিলিয়ন নির্মিত হয়েছে ঢাকার রোজ গার্ডেনের আদলে।

রোববার এই বইমেলায় উদযাপিত হয়েছে বাংলাদেশ দিবস। এ নিয়ে সেমিনারে যোগ দেন বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের প্রথিতযশা কবি, সাহিত্যিক, সাংবাদিক ও শিল্পীরা। এই সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতিবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। সেমিনারের বিষয় ছিল ‘বাংলা সাহিত্য ও বঙ্গবন্ধু’।

এবারের বইমেলায় বাংলাদেশ ছাড়াও যোগ দিয়েছেন যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, ভিয়েতনাম, জাপান, চীন, ইরান, কোস্টারিকা, স্পেন, স্কটল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, আর্জেন্টিনাসহ বিশ্বের ২১টি দেশ ও দেশের প্রকাশকেরা। যোগ দিয়েছে ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের প্রকাশকরাও। এবার বইমেলায় সব মিলিয়ে ৮০০ স্টল হয়েছে। এর মধ্যে ২০০টি লিটল ম্যাগাজিনের স্টল।

বইমেলার শেষ দিনে দেওয়া হয় বইমেলায় বিভিন্ন বিভাগে বিজয়ীদের পুরস্কার। পুরস্কার তুলে দেন গুয়াতেমালার ভারতে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত জিয়োবান্নি কাসতিয়ো। এবার বাংলাদেশ প্যাভিলিয়ন বইমেলার সেরা জনপ্রিয় প্যাভিলিয়ন হিসেবে পুরস্কার পায়। প্যাভিলিয়নটি তৈরি হয়েছে সাড়ে ৩ হাজার বর্গফুট জায়গাজুড়ে ঢাকার রোজ গার্ডেনের আদলে। বাংলাদেশ উপহাইকমিশনের প্রতিনিধির হাতে তুলে দেওয়া হয় এই পুরস্কার।

বইমেলার উদ্বোধন হয় গত ৩১ জানুয়ারি। ওই দিন বিকেলে কলকাতার সল্টলেকের সেন্ট্রাল পার্কে ঘণ্টা বাজিয়ে বইমেলার উদ্বোধন করেন গুয়াতেমালার প্রখ্যাত সাহিত্যিক অধ্যাপক ইউডা মোরেস। এবারের বইমেলার থিম কান্ট্রি ছিল এই গুয়াতেমালা। এই বইমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর বিশেষ অতিথি ছিলেন গুয়াতেমালার ভারতে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত জিয়োবান্নি কাসতিয়ো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন

সোহরাওয়ার্দীতে রাজি মির্জা আব্বাস, আপত্তি ফখরুলদের

নিউজ ডেস্ক : ১০ ডিসেম্বরের গণসমাবেশ নিয়ে শুরু থেকেই একর পর এক নাটক করে যাচ্ছে বিএনপি। এদিন সরকারকে টেনে নামাবে বলে ঘোষণা দিয়েছে দলটির নেতারা। অথচ বিএনপির দাবি অনুযায়ী সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার অনুমতি দিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। এতেই বাধে বিপত্তি। দলের একটি অংশ সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশ করতে রাজী হলেও বাকীরা চায় দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় […]

বিস্তারিত

যে কারণে সমাবেশের জন্য ১০ ডিসেম্বর বেছে নিল বিএনপি

নিউজ ডেস্ক: স্বাধীনতাবিরোধী ও জনবিচ্ছিন্ন দল বিএনপি তাদের সমাবেশের তারিখ ১৬ ডিসেম্বর অর্থাৎ বাংলাদেশের বিজয় দিবসের পর না দিয়ে কেন ১০ ডিসেম্বর বেছে নিয়েছে, এই প্রশ্ন এখন জনমনে। তারা বলছেন, বিএনপি কি জানে না বাংলাদেশের ইতিহাস? ১৯৭১ সালের ১০ ডিসেম্বর বুদ্ধিজীবী হত্যার নীলনকশা বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া শুরু হয়। ১০ থেকে ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত এ বুদ্ধিজীবী হত্যার […]

বিস্তারিত

সুসংগঠিত না হয়ে কাঁচের মতো টুকরো টুকরো বিএনপি

নিউজ ডেস্ক: দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেলে সবাই-ই মুখ খোলে। খুলতে বাধ্য হয়। বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম হলো না। গুলশানের বাসায় গৃহপরিচারিকা ফাতেমার কাছে আক্ষেপ করে তিনি বললেন, আজ যা এতকিছু। সব কিছুর জন্য তারেকই দায়ী। তার জন্যই দলটা শেষ হয়ে গেছে। নেতাকর্মীরা কেউই এখন আর কোন আন্দোলন-সংগ্রামে আসতে চান না। আর […]

বিস্তারিত