হঠাৎ টুইটারে ১ লাখ ফলোয়ার হারিয়েছেন মোদি

নিউজ ডেস্ক: সামনেই ভারতের লোকসভা নির্বাচন। তার আগে টুইটারে ১ লাখ ফলোয়ার হারিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। অপরদিকে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী হারিয়েছেন প্রায় ৯ হাজার ফলোয়ার। গত বছরের নভেম্বরে ভুয়া প্রোফাইল ছেঁটে ফেলার কর্মসূচি নেয় টুইটার কর্তৃপক্ষ। তার জের ধরেই একধাক্কায় এতো সংখ্যক ফলোয়ার হারালেন মোদি।

লোকসভা নির্বাচন উপলক্ষে প্রচারের মাধ্যম হিসাবে সামাজিক মাধ্যমের প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে রাজনৈতিক দলগুলো। ২০১৪ সালের নির্বাচনে বিজেপির মধ্যেই সামাজিক মাধ্যম নিয়ে সবচেয়ে বেশি তত্পরতা ছিল। এই মুহূর্তে তা নিয়ে সচেতন হয়ে উঠেছে সব দলই। তাই আসন্ন নির্বাচনে সামাজিক মাধ্যম কতটা প্রভাব ফেলতে পারে, তা নিয়ে ইতোমধ্যেই হিসাব-নিকাশ শুরু হয়ে গেছে।

এ ব্যাপারে সবচেয়ে এগিয়ে দিল্লির ইন্দ্রপ্রস্থ ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজি। প্রধানমন্ত্রী, বিরোধী নেতা মিলিয়ে দেশের ৯২৫ টি রাজনৈতিক ব্যক্তিকে নিয়ে সম্প্রতি একটি গবেষণা চালিয়েছে তারা। এতে দেখা গেছে, নভেম্বরে টুইটারে ভুয়া প্রোফাইল ছেঁটে ফেলার অভিযানে বহু সংখ্যক ফলোয়ার হারিয়েছেন ভারতীয় রাজনীতিকরা।

গবেষণায় দেখা গেছে, সবচেয়ে বেশি ফলোয়ার হারিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ১ লাখ ফলোয়ার হারাতে হয়েছে তাকে। ভুয়া প্রোফাইল কাটছাঁটের পর রাহুল গান্ধী হারিয়েছেন ৮ হাজার ৭শ ফলোয়ার। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীওয়াল এবং বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ ফলোয়ার হারিয়েছেন যথাক্রমে ৪০ হাজার ৩শ এবং ১৬ হাজার ৫শ জন। এ ছাড়াও যারা প্রচুর সংখ্যক ফলোয়ার হারিয়েছেন, সেই তালিকায় রয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কিরণ রিজিজু, বিজেপির জাতীয় সাধারণ সম্পাদক ভূপেন্দ্র যাদব এবং সংসদের তথ্যপ্রযুক্তি কমিটির চেয়ারম্যান তথা বিজেপি সাংসদ অনুরাগ ঠাকুর।

এর আগে ২০১৬ সালে মার্কিন নির্বাচনের ফলাফলের জন্য সামাজিক মাধ্যমকে অনেকাংশে দায়ী করা হয়েছিল। ব্যবহারকারীদের তথ্য হাতিয়ে সাধারণ মানুষকে প্রভাবিত করার অভিযোগ উঠেছিল ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা সংস্থার বিরুদ্ধে।

এর জের ধরে মার্কিন কংগ্রেসের সামনে হাজির হতে হয়েছিল ফেসবুকের কর্ণধার মার্ক জুকারবার্গকে। সে কারণেই ভারতের লোকসভা নির্বাচন নিয়ে সতর্ক হয়েছে টুইটার কর্তৃপক্ষ। সময় থাকতেই ভুয়া প্রোফাইল ছেঁটে ফেলতে উদ্যোগী হয়েছে তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন

সোহরাওয়ার্দীতে রাজি মির্জা আব্বাস, আপত্তি ফখরুলদের

নিউজ ডেস্ক : ১০ ডিসেম্বরের গণসমাবেশ নিয়ে শুরু থেকেই একর পর এক নাটক করে যাচ্ছে বিএনপি। এদিন সরকারকে টেনে নামাবে বলে ঘোষণা দিয়েছে দলটির নেতারা। অথচ বিএনপির দাবি অনুযায়ী সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার অনুমতি দিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। এতেই বাধে বিপত্তি। দলের একটি অংশ সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশ করতে রাজী হলেও বাকীরা চায় দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় […]

বিস্তারিত

যে কারণে সমাবেশের জন্য ১০ ডিসেম্বর বেছে নিল বিএনপি

নিউজ ডেস্ক: স্বাধীনতাবিরোধী ও জনবিচ্ছিন্ন দল বিএনপি তাদের সমাবেশের তারিখ ১৬ ডিসেম্বর অর্থাৎ বাংলাদেশের বিজয় দিবসের পর না দিয়ে কেন ১০ ডিসেম্বর বেছে নিয়েছে, এই প্রশ্ন এখন জনমনে। তারা বলছেন, বিএনপি কি জানে না বাংলাদেশের ইতিহাস? ১৯৭১ সালের ১০ ডিসেম্বর বুদ্ধিজীবী হত্যার নীলনকশা বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া শুরু হয়। ১০ থেকে ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত এ বুদ্ধিজীবী হত্যার […]

বিস্তারিত

সুসংগঠিত না হয়ে কাঁচের মতো টুকরো টুকরো বিএনপি

নিউজ ডেস্ক: দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেলে সবাই-ই মুখ খোলে। খুলতে বাধ্য হয়। বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম হলো না। গুলশানের বাসায় গৃহপরিচারিকা ফাতেমার কাছে আক্ষেপ করে তিনি বললেন, আজ যা এতকিছু। সব কিছুর জন্য তারেকই দায়ী। তার জন্যই দলটা শেষ হয়ে গেছে। নেতাকর্মীরা কেউই এখন আর কোন আন্দোলন-সংগ্রামে আসতে চান না। আর […]

বিস্তারিত