এবার জম্মু-কাশ্মিরের ঘটনায় মির্জা ফখরুলের উদ্বেগ

নিউজ ডেস্ক: বৃহস্পতিবার বিকেলে ভারতের জম্মু-কাশ্মিরে সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) গাড়িবহরে বোমা হামলায় অন্তত ৪৬ জন ভারতীয় আধাসামরিক সেনা নিহতের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ ও শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শুক্রবার বিএনপির সহ দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে দলটির মহাসচিবের এ উদ্বেগের কথা জানানো হয়।

বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘ভারতের কাশ্মিরে রক্তাক্ত হামলায় সিআরপিএফের সদস্যদের প্রাণহানির ঘটনায় আমি গভীর উদ্বেগ ও শোক প্রকাশ করছি। উপমহাদেশের এই অঞ্চলটি অনেক দিন ধরেই অগ্নিগর্ভ। রক্ত ঝরছে সাধারণ মানুষসহ নিরাপত্তা বাহিনীর। মানুষ ও মানবতা রক্ষার জন্য শান্তি ও স্থিতি অত্যন্ত অপরিহার্য। সন্ত্রাসী কার্যকলাপ শান্তি ও সভ্যতার পরিপন্থী, এতে করে আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা সংকটাপন্ন হয়ে পড়ে এবং মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাপন চরম নিরাপত্তাহীন হয়ে ওঠে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি যেকোনো বেপরোয়া বেআইনি সহিংস রক্তপাতের বিরুদ্ধে সর্বদা সোচ্চার। পৃথিবীতে জটিল রাজনৈতিক সংকটবহুল স্থানে মানুষের বসবাস নিরাপদ নিশ্চিত হয়েছে শান্তিপূর্ণ আলোচনার মাধ্যমে, নিরাপরাধ মানুষ হত্যার মাধ্যমে নয়। নির্মম অমানবিকতার দ্বারা মানুষের এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যাশা হতাশায় নিমজ্জিত হলে শঙ্কা ও ভয়ের ছায়াই কেবলমাত্র প্রসারিত হয়।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমি ভারতের জম্মু-কাশ্মিরে সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) গাড়িবহরে সন্ত্রাসীদের কাপুরুষোচিত বোমা হামলায় ভারতীয় আধাসামরিক সেনা নিহতের ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে নিহতদের আত্মার শান্তি কামনা করছি এবং শোকাহত পরিবার-পরিজনদের প্রতি জানাচ্ছি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি। বোমা হামলায় আহতদের আশু সুস্থতা কামনা করছি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও দেখুন

২১ আগস্ট: দেশকে নেতৃত্বশূন্য করার সেদিনের মিশনে

Share this… Facebook 0 Twitter Telegram Linkedin নিউজ ডেস্ক: স্বাধীনতার প্রাক্কালে ১৪ ডিসেম্বর যেভাবে বুদ্ধিজীবী হত্যাকাণ্ড চালানো হয়েছিল, ঠিক একই উদ্দেশ্যে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসবিরোধী জনসভায় চালানো হয়েছিল ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা। দেশে বিরোধী মতকে দমন ও নিশ্চিহ্ন করার অংশ হিসেবে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার উপর এই হামলা […]

বিস্তারিত

‘শেখ হাসিনা বেঁচে গেছে আমাদের সর্বনাশ হচ্ছে’

Share this… Facebook 0 Twitter Telegram Linkedin নিউজ ডেস্ক : ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট। তারেক জিয়ার পরিকল্পিত গ্রেনেড হামলা মঞ্চস্থ হয় বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে। মূল পরিকল্পনা করেছিলেন তারেক জিয়া হাওয়া ভবনে বসে। এই পরিকল্পনার লক্ষ্য ছিল একটাই- শেখ হাসিনাকে হত্যা করা এবং এই হত্যাকাণ্ডের পর এটি আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দল হিসেবে চালিয়ে দেওয়া। কিন্তু অলৌকিকভাবে বেঁচে […]

বিস্তারিত

জোট নেতাদের প্রশ্ন, নেতৃত্ব দেবে কে?

Share this… Facebook 0 Twitter Telegram Linkedin নিউজ ডেস্ক: সরকারবিরোধী ‘বৃহত্তর রাজনৈতিক জোট’ গড়তে এরই মধ্যে ছোট-বড় সমমনা ডান-বাম ও ইসলামী ২২টি দলের সঙ্গে প্রাথমিক সংলাপ শেষ করেছে বিএনপি। ‘গণতন্ত্র মঞ্চে’র শরিক পাঁচটি দলের সঙ্গেও সংলাপ করে দলটি। কিন্তু সবারই একই প্রশ্ন নেতৃত্ব দেবে কে? তারেক রহমানের নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হতে চায় না কোনো জোট নেতা। […]

বিস্তারিত