নাটোরে ঝড়-শিলাবৃষ্টিতে ঘরবাড়ি ও ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

নিউজ ডেস্ক: নাটোর জেলার ৭ উপজেলার ৫২টি ইউনিয়নে কমবেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর মধ্যে নাটোর সদর, নলডাঙ্গা ও সিংড়া উপজেলায় ঘরবাড়ি ও ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

রোববার (১৭ ফেব্রুয়ারি) ভোর রাতে শিলাবৃষ্টি ও দমকা হাওয়ায় নাটোর উপজেলার সদরের ছাতনী, বনবেলঘরিয়া, বারোঘরিয়া, মোমিনপুর, কেশবপুরসহ প্রায় সব গ্রামে ধানসহ মাঠের সকল ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

জানা যায়, রোববার ভোর ৫টা ২০মিনিটে হঠাৎ শিলাবৃষ্টি ও দমকা ঝড় শুরু হয়। এ সময় প্রায় ২০ মিনিট স্থায়ী একটানা শিলাবৃষ্টিতে মাঠ, ঘাট, রাস্তা, বারান্দায় স্তুপ পড়ে যায়। গম,ধান, পান, আম, জামসহ উঠতি ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। কয়েক ঘন্টা ধরে বরফে ঢাকা পড়ে থাকে শত শত হেক্টর রবি ফসলের জমি। এছাড়া শিলা বৃষ্টিতে জেলার প্রায় অধিকাংশ এলাকার আমের মুকুল ঝড়ে পড়েছে। ভুট্টার গাছ হেলে পড়েছে, পানের বরজের পানও ঝড়ে পড়েছে।এতে দিশেহারা হয়ে পড়েছে কৃষককুল। ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা করছেন বিলাপ।

সদর উপজেলার ছাতনী গ্রামের কৃষক সাদেক আলী বিলাপ করে বলেন, শিলা বৃষ্টিতে তার আড়াই বিঘা জমির পানের বরজ সম্পন্ন বিধ্বস্ত হয়েছে। এতে তার ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

একই গ্রামের কৃষক মোমিন জানান, তার ভুট্টা ও পিয়াজের জমির কিছুই নেই। বরফ দিয়ে ঢাকা পড়ে সম্পন্ন জমি। কৃষক শাজাহান আলী জানান, তার তিন বিঘা জমির গম সম্পন্ন ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

এছাড়া নলডাঙ্গা উপজেলার সোনাপাতিল, মাধনগর, পাটুল, খাজুরা ও হালতি খোলাবাড়িয়া বিলসহ পুরো উপজেলায় ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। একই সাথে ঘরবাড়ির গাছের ডাল-পালাও ভেঙে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রবল শিলাবৃষ্টিতে টিনের চাল ফুটো হয়ে যায়।

সিংড়া উপজেলার চৌগ্রাম, তাজপুর, লালোর, শেরকোল, ডাহিয়া, সুকাশ, ইটালী ইউনিয়নে শিলাবৃষ্টির খবর পাওয়া গেছে। চৌগ্রামের বাসিন্দা মনজু জানান, তার বাড়ির চাল ফুটো হয়ে গেছে।

সিংড়ার সুকাশ ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল মজিদ জানান, তার ইউনিয়নে ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

সিংড়া উপজেলা কৃষি অফিসার সাজ্জাদ হোসেন জানান, শিলাবৃষ্টির কারণে ফসলসহ বিভিন্ন সবজি বাগান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতির পরিমান নিরুপণ করা হচ্ছে।

সিংড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুশান্ত কুমার মাহাতো জানান, ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের তালিকা করা হচ্ছে, সরকারিভাবে সহযোগিতা করা হবে।

নাটোর জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক কৃষিবিদ রফিকুল ইসলাম আকস্মিক শিলা বৃষ্টিতে রবি ফসলের ক্ষতির হওয়ার সম্ভাবনার সত্যতা স্বীকার করলেও তাৎক্ষনিকভাবে ক্ষতির পরিমান জানাতে পারেননি। তবে তিনি বলেন, কি পরিমান জমির ফসল ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে তা নিরুপনে তিনি সহ কৃষি কর্মকর্তারা মাঠে রয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও দেখুন

সাক্কু

বিএনপি থেকে অব্যাহতি পেয়ে স্বস্তিতে মেয়র সাক্কু

Share this… Facebook 0 Twitter Telegram Linkedin নিউজ ডেস্ক: কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে তৃতীয়বারের মত অংশ নেয়ার জন্য কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপি থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে অব্যাহতি নিলেন জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ও সদ্য বিদায়ী কুমিল্লা সিটির মেয়র মনিরুল হক সাক্কু। কুসিক মেয়র মনিরুল হক সাক্কু বলেন, ‘তফসিল অনুযায়ী মঙ্গলবার মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন। তাই বিএনপির […]

বিস্তারিত
জেএসএস

সেনাবাহিনীকে হটিয়ে পার্বত্যাঞ্চলকে জুম্মল্যান্ড বানাতে চায় সশস্ত্র উপজাতিরা

Share this… Facebook 0 Twitter Telegram Linkedin নিউজ ডেস্ক: পার্বত্য চট্টগ্রামের রাঙামাটি, বান্দরবান খাগড়াছড়ি এই তিন এলাকায় জেএসএস (মূল), জেএসএস (সংস্কার), ইউপিডিএফ (মূল) ও ইউপিডিএফ (সংস্কার) সশস্ত্র সন্ত্রাসী গ্রুপ অনেকটা প্রকাশ্যেই চাঁদাবাজি করছে। হাঁস-মুরগি, গরু-ছাগল, গাছের ফল, ক্ষেতের ফসল, জমি কেনা-বেচা, এমনকি ডিম-কলা বিক্রি করতে গেলেও চাঁদা দিতে হয় তাদের। ছোট-বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, কৃষক-শ্রমিক-মৎসজীবী, সড়কে […]

বিস্তারিত

খুলনায় মন্দিরের প্রতিমা ভেঙে ধরা পড়লো হিন্দু যুবক

Share this… Facebook 0 Twitter Telegram Linkedin দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টে একের পর অপতৎপরতা চালাচ্ছে একটি চক্র। যার ধারাবাহিকতায় কুমিল্লা, রংপুর ও নওগাঁয় মন্দিরে হামলার মতো ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটায় তারা। এরপর নতুন করে খুলনায় ঘটিয়েছে এমন ঘটনা। জানা যায়, খুলনার ফুলতলা এম এম কলেজ সার্বজনীন পূজা মন্দিরে স্বরস্বতী প্রতিমার মাথা ভেঙে পালানোর সময় অনিক মন্ডল […]

বিস্তারিত