শুক্রবার ২১ জানুয়ারী ২০২২
  • প্রচ্ছদ » Breaking » জনগণের পক্ষে কথা বলার জন্য সংসদে যাচ্ছি : মনসুর



জনগণের পক্ষে কথা বলার জন্য সংসদে যাচ্ছি : মনসুর


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
07.03.2019

ডেস্ক রিপোর্ট: ডাকসুর সাবেক ভিপি মৌলভীবাজার-২ আসন থেকে নির্বাচিত এমপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ বলেছেন, জনগণের পক্ষে কথা বলার জন্য সংসদে যাচ্ছি। আমার নির্বাচনী এলাকার জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষার বাস্তবায়ন করতে এবং তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতেই বৃহস্পতিবার নবনির্বাচিত এমপি হিসেবে শপথ গ্রহণ করব। তিনি বলেন, বিরোধিতা করার জন্য বিরোধিতা নয়, জনস্বার্থে, দেশের স্বার্থে যা যা বলা প্রয়োজন, আমার অবস্থান থেকে তাই তুলে ধরব। এতে সরকারের ভালো কাজের প্রশংসা করব। মন্দ কাজের সমালোচনা করব।

বুধবার বিকালে গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক দল গণফোরামের প্রার্থী হিসেবে মৌলভীবাজার-২ আসন থেকে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ।

আজ জাতীয় সংসদ ভবনে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর কাছে শপথ পড়বেন সুলতান মনসুর। তার সঙ্গে গণফোরাম থেকে নির্বাচিত আরেক সংসদ সদস্য মোকাব্বির খান (সিলেট-২) শপথ গ্রহণের কথা থাকলেও আজ শপথ নেবেন না।

সংসদে যাওয়া প্রসঙ্গে সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ বলেন, সংসদে জনগণের কথা বলতেই শপথ নিচ্ছি। নানা প্রতিকূলতা থাকা সত্ত্বে যারা আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছে-তাদেরকে শ্রদ্ধা জানাতেই সংসদে যাওয়া। আমি মানুষের পক্ষে কথা বলতেই সংসদে যাচ্ছি।

আপনি গণফোরামের নেতা হিসেবে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করেছেন-শপথ গ্রহণ করলে আপনার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে-এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার প্রতিনিধি হিসেবে ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের’ নীতিনির্ধারণী কমিটির সদস্য ছিলাম। আমি কোনো দলে যোগদান করিনি। আওয়ামী লীগও বহিষ্কার করেনি। যেহেতু জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সিদ্ধান্ত ছিল, ধানের শীষ নিয়ে নির্বাচন করতে হবে। সে কারণে আমি ধানের শীষ নিয়ে ভোট করেছি। আমার বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেবে- সেটা তাদের সিদ্ধান্ত। এ নিয়ে কোনো কথা বলতে চাই না। আমি কোনো দলে যোগদান করিনি। আমি কোনো দলের কোনো নেতা নই।

শপথ গ্রহণের দিন হিসেবে ঐতিহাসিক ৭ মার্চকে বেছে নেওয়ার কারণ কী জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ বলেন, আমি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অনুসারী। বঙ্গবন্ধুর সৈনিক। জাতির পিতা আজকের দিনে (ঐতিহাসিক ৭ মার্চ) তৎকালীন রেসকোর্স ময়দানে ঐতিহাসিক ভাষণের মাধ্যমে পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে বাঙালিদের ঐক্যবদ্ধ করেন। এই দিনেই মুক্তিযুদ্ধের ভিত্তি রচনা হয়। আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে, বঙ্গবন্ধুর অনুসারী হিসেবে, সেই ঐতিহাসিক দিনকে স্মরণীয় করে রাখতে এবং ইতিহাসের সামনে তুলে ধরতেই শপথ গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

শপথ নিচ্ছেন না মোকাব্বির খান : শপথ নেওয়ার কথা ছিল জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক দল গণফোরাম থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য মোকাব্বির খানের। কিন্তু শেষ মুহূর্তে এসে দলীয় সিদ্ধান্তের কারণে শপথ নিচ্ছেন না তিনি। এ প্রসঙ্গে মোকাব্বির খান গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে বলেছেন, আমি শুরু থেকেই দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে আসছি। দল শপথের বিষয়ে ইতিবাচক থাকায় আমি ৭ মার্চ শপথ নিতে চিঠি দিয়েছিলাম। এখন আমাদের দল গণফোরামের প্রেসিডেন্ট ড. কামাল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফা মহসীন মন্টুর নির্দেশে আমি শপথ নেওয়া থেকে বিরত থাকছি।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি