শুক্রবার ২১ জানুয়ারী ২০২২
  • প্রচ্ছদ » Breaking » খুব শিগগির সেই ভয়ঙ্কর সুনামি হতে যাচ্ছে সূর্যে!



খুব শিগগির সেই ভয়ঙ্কর সুনামি হতে যাচ্ছে সূর্যে!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
07.03.2019

ডেস্ক রিপোর্ট: সূর্যেও হয় ভয়ংকর সুনামি! উত্তাল হয়ে ওঠে সূর্য। খুব শিগগির সেই ভয়ঙ্কর সুনামি হতে যাচ্ছে সূর্যে। এর ফলে উঠবে তুমুল সৌরঝড় বা সোলার স্টর্ম। সৌরমণ্ডলের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে। ধেয়ে আসবে পৃথিবীর দিকে। ধেয়ে যাবে সৌরমণ্ডলের অন্য গ্রহগুলোর দিকেও। পৃথিবীর সুবিশাল চৌম্বক ক্ষেত্রের ওপর আছড়ে পড়ে তাকে ঝনঝন করে কাঁপিয়ে দেবে।

অত্যন্ত ক্ষতিকারক কণায় ভরিয়ে দেবে মহাকাশের আবহাওয়া। জিপিএস, নেভিগেশনসহ যাবতীয় টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থার পক্ষে যা অত্যন্ত বিপজ্জনক। পৃথিবীর বিভিন্ন কক্ষপথে থাকা উপগ্রহগুলোর জন্যও এটি বিপদের কারণ। আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান-জার্নাল ‘সায়েন্টিফিক রিপোর্টস’-এর সাম্প্রতিক সংখ্যার এক গবেষণায় বিষয়টি তুলে ধরেছেন বিজ্ঞানীরা। কীভাবে সুনামির জন্ম হয় সূর্যে?

কলোরাডোর বোল্ডার থেকে গবেষকরা জানাচ্ছেন, সোলার মিনিমামে পৌঁছলে চৌম্বক ক্ষেত্রগুলো সূর্যের দুই মেরু থেকে তার বিষুবরেখার দিকে ছুটে আসে। ছুটে আসা সেই চৌম্বক ক্ষেত্রগুলোর মেরুগুলো একে অন্যের বিপরীত হয়। একটি উত্তর মেরু হলে অন্যটি হয় দক্ষিণ মেরু।

ফলে তারা একে অন্যকে ধ্বংস করে দেয়। ‘শত্রুপক্ষ’ বলে কথা! যার মানে, ওই সময় সূর্যের বিষুবরেখার কাছাকাছি অঞ্চলে আর কোনো চৌম্বক ক্ষেত্রই থাকে না। ফলে তৈরি হয় এক রকমের শূন্যতার (ভয়েড)।

সেই সুনামি হয় কোথায়? গবেষকরা জানাচ্ছেন, সূর্যের পিঠে বিষুবরেখার কাছে এসে ধ্বংস হওয়ার আগ পর্যন্ত উল্টো দিক থেকে ছুটে আসা দুটি চৌম্বক ক্ষেত্রকে পেছন থেকে ধরে রাখে প্লাজমা। অনেকটা বাঁধের মতো। সেই বাঁধটা চৌম্বক ক্ষেত্র দিয়ে তৈরি হয় বলে তাকে বলা হয়, ‘ম্যাগনেটিক ড্যাম’। প্লাজমাকে অনেকটা পানির মতো ভাবতে পারেন। কিন্তু সেটা আদৌ পানি নয়। সূর্যের পিঠে ও তার ওপর সব কিছুই থাকে আধানযুক্ত এই বিশেষ অবস্থায়, যা অত্যন্ত গরম। বলা ভালো, অসম্ভব রকমের একটা ফুটন্ত অবস্থা। চৌম্বক ক্ষেত্রগুলো একে অন্যকে ধ্বংস করে দেয়ার ফলে শূন্যতার সৃষ্টি হয়। ফলে ম্যাগনেটিক ড্যামটাও আর থাকে না।

আর তখনই সেই বাঁধটাকে পেছন থেকে যা ধরে রেখেছিল, সেই প্লাজমার স্রোত চারপাশ থেকে এসে ভয়ঙ্কর গতিবেগে ঢুকে যায় সেই শূন্যতায়। নামতে নামতে সেই প্লাজমা চলে যায় সূর্যের পিঠের অনেক অনেক নিচে। যেখানে রয়েছে প্রচুর চৌম্বক ক্ষেত্র। কিন্তু তারা দুর্বল বলে ইচ্ছা থাকলেও সূর্যের পিঠে উঠে আসতে পারছে না। সেখানে গিয়ে উপর থেকে নেমে আসা প্লাজমার স্রোত সেই চৌম্বক ক্ষেত্রগুলোকে ওপরে ভাসিয়ে দেয়। এটাই সূর্যের সুনামি।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি