সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২



এবার হামিদ কারজাইয়ের রাজনৈতিক জমায়েত লক্ষ্য করে হামলা


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
08.03.2019

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাইয়ের একটি রাজনৈতিক জমায়েত লক্ষ্য করে হামলা চালানো হয়েছে। দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন ওই জমায়েতে সাবেক প্রেসিডেন্টসহ দেশটির প্রধান নির্বাহী আবদুল্লাহ আবদুল্লাহ উপস্থিত ছিলেন। বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র কাবুলের পশ্চিমাঞ্চলে বিস্ফোরণের খবর পাওয়ার কথা জানিয়েছেন। তবে মন্ত্রণালয়ের আরেকটি সূত্রকে উদ্ধৃত করে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, কাবুলে ডিস্ট্রিক্ট ১৮ এলাকার একটি বাড়ি থেকে মর্টার শেল ছোড়া হয়েছে। ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্র বার্তা সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস (এপি)-কে জানিয়েছে, বিস্ফোরণে অন্তত সাতজন নিহত ও দশজন আহত হয়েছে। এখন পর্যন্ত ওই হামলার দায় কেউ স্বীকার করেনি।

কাবুলে সর্বশেষ বড় হামলার ঘটনা ঘটে এ বছরের জানুয়ারিতে। কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টিত গ্রিন ভিলেজ এলাকায় চালানো ওই গাড়ি বোমা হামলার দায় স্বীকার তালেবান। আফগানিস্তানের সোয়াত উপত্যকায় ভারী তুষারপাতের কারণে এবছরে দেশটিতে সহিংসতা কমে আসে। শীতের তীব্রতা কমে আসার পর দেশটিতে আবারও সহিংসতার উত্তাপ ছড়াতে শুরু করেছে। ১৮ বছর ধরে আফগান যুদ্ধ অবসানে যুক্তরাষ্ট্র ও তালেবানের মধ্যে কাতারে আলোচনা অব্যাহত থাকার মধ্যে বৃহস্পতিবারের হামলার ঘটনা ঘটলো।

কাবুলের অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের কর্মকর্তা মোহাম্মদ অসীম মার্কিন বার্তা সংস্থা এপিকে জানিয়েছেন, বিস্ফোরণে আহত পাঁচ জনকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। ঘটনাস্থলে আরও অ্যাম্বুলেন্স রয়েছে আহতদের বহনের জন্য।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্র এপিকে জানায়, বিস্ফোরণে অন্তত সাতজন নিহত ও দশজন আহত হয়েছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতের সংখ্যা সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এর আগে আফগান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, এক নেতার মৃত্যুবার্ষিকীতে মুসালা-ই-মাজারিতে জড়ো হওয়া হাজার হাজার শিয়া মুসলমানকে লক্ষ্য করে হামলার ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। হেজব-ই-ওয়াদাত পার্টির নেতা আবদুল আলি মাজারির ২৪ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এখানে সমবেত হয়েছিলেন কয়েক হাজার সমর্থক। ১৯৯৫ সালে তালেবান যোদ্ধারা এই নেতাকে আটকের পর হত্যা করে।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিনিধি ক্যারোলেট বেলিস কাবুল থেকে জানিয়েছেন, ঘটনাস্থলের দিকে সামরিক যান রওনা দিয়েছে। বড় বড় অনেক নেতা সমবেত হওয়ায় এই জমায়েতে হামলা হতে পারে বলে গত রাতেই আশঙ্কার কথা জানিয়েছিলেন গোয়েন্দারা।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে বেলিস জানিয়েছেন, একটি রকেট ছোঁড়ায় জড়িত সন্দেহে একজনকে আটক করা হয়েছে। এছাড়া সমাবেশস্থলের কাছাকাছি একটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে বিশেষ বাহিনীর সদস্যরা। ওই বাড়ি থেকে হামলা চালানো হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, সমাবেশে দেশটির প্রধান নির্বাহী আবদুল্লাহ আবদুল্লাহ এবং সাবেক প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাই উপস্থিত থাকলেও হামলার পর অক্ষত রয়েছেন তারা। ঘটনাস্থলে থাকা পররাষ্ট্রমন্ত্রী সালাউদ্দিন রাব্বানি পরে টুইট বার্তায় বলেন, স্মরণ অনুষ্ঠানে রকেট হামলা চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি