শনিবার ২৮ নভেম্বর ২০২০
  • প্রচ্ছদ » Lead 1 » দল নয়, ‘ভাইয়ের কাজ’ নিয়েই ব্যস্ত বিএনপি নেতারা!



দল নয়, ‘ভাইয়ের কাজ’ নিয়েই ব্যস্ত বিএনপি নেতারা!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
02.07.2020

নিউজ ডেস্ক: সভা-সমাবেশ কিংবা দলীয় কাউন্সিল, কোথাও এখন আর কেউ দলীয় স্লোগান ব্যবহার করেন না বিএনপি নেতারা। তারা ‘বিশেষ ভাই’র হয়ে তাদের গুণকীর্তন করতে থাকেন। প্রথাটি বিএনপির ভেতরে বেশ শক্তভাবে শেকড় গেড়ে বসেছে। এ কারণে দলীয় হাইকমান্ড হতাশা প্রকাশ করেছে।

নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র জানিয়েছে, বিএনপিতে প্রথম ভাইপন্থী অনুসারী ও প্রথার সৃষ্টি করেন অবিভক্ত ঢাকা মহানগর বিএনপির সাবেক দুই নেতা মির্জা আব্বাস ও সদ্য প্রয়াত নেতা সাদেক হোসেন খোকা। সেই থেকে নগর বিএনপির নেতাকর্মীরা বিভক্ত হয়ে সাংগঠনিক ও নির্বাচনী কার্যক্রমসহ প্রতিটি ক্ষেত্রে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে আসছে। বারবার বলার পরেও বিষয়টির সুরাহা না হওয়ায় এখন নগর কমিটি সংস্কারের চিন্তাভাবনা করছে দলটির হাইকমান্ড।

সূত্রটি আরো জানায়, গ্রুপিং-কোন্দলের কারণেই গেল ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভরাডুবি হয়েছে বিএনপির। মূলত এর জন্য দায়ী ছিল প্রার্থিতা নির্বাচনে ভুল সিদ্ধান্ত ও দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের অর্থবাণিজ্য নীতি। সে কারণে ত্যাগী ও যোগ্য নেতারা মুখ ফিরিয়ে নিয়ে কাজ করেননি। এর পাশাপাশি যারা কাজ করেছেন, তারা এগিয়েছেন ‘ভাইপন্থী’ হয়ে।

এ ব্যাপারে নাম প্রকাশ না করার শর্তে ক্ষোভ প্রকাশ করে বিএনপির একাধিক জ্যেষ্ঠ নেতা জানান, মহানগর বিএনপিতে ভাই অনুসারীদের কারণে কোন অনুষ্ঠান বা কর্মসূচি সঠিকভাবে পালন করা যায় না। কারণ, কোন কর্মসূচির আয়োজন করা হলে সেখানে দলীয় স্লোগান বাদ দিয়ে সবাই ভাইদের নামে স্লোগান দিতে থাকেন। দলের চেয়ারপারসনের নাম বাদ দিয়ে তারা অমুক ভাই, তমুক ভাই নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। একই অবস্থা দলের তৃণমূলেও। তাই বিষয়টি নিয়ে হতাশ দলের হাইকমান্ড।

এ বিষয়ে রাজনৈতিক বিজ্ঞজনরা বলছেন, তৃণমূল থেকে হাইকমান্ড বিএনপির সর্বত্রই অনৈক্য বিরাজমান। যে কারণে তারা কেউ কাউকে মানেন না। নেতাকর্মীরা বিশেষ একটি শ্রেণি বা ভাই গোত্রের হয়ে কাজ করেন বলেই সমষ্টিগতভাবে দল পিছিয়ে পড়েছে। শুধু তাই নয়, ছিটকে পড়েছে জাতীয় রাজনীতি থেকে। আর এর জন্য অন্য কেউ নয়, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানই অদ্বিতীয়ভাবে দায়ী। কারণ, তাদের হয়েই দলীয় নেতাকর্মীরা দুই পন্থীতে বিভক্ত হয়ে দলের আজ এই হাল বানিয়েছেন।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি