রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০



খালেদার দায়িত্বহীনতায় ২০ দলে অসন্তোষ


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
02.08.2020

নিউজ ডেস্ক: ঈদুল ফিতরের মতো এবারো স্থায়ী কমিটির কয়েকজন সদস্যের সঙ্গে দেখা করেছেন রাজনৈতিকভাবে কোয়ারেন্টাইনে থাকা বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া। তার এই সাক্ষাতে হতাশ বিএনপি ও ২০ দলীয় জোটের নেতাকর্মীরা। তাদের ভাষ্যমতে, খালেদা তার ব্যক্তিগত স্বার্থেই স্থায়ী কমিটির সদস্য ছাড়া অন্যান্য নেতাদের সঙ্গে দেখা করছেন না। করোনা পরিস্থিতি ও তার অসুস্থতা একটা অজুহাতমাত্র।

নেতাকর্মীরা বলেন, যদি করোনার ভয় ও তার অসুস্থতার বিষয়টি মুখ্য হতো তাহলে স্থায়ী কমিটির সদস্যদের সঙ্গে দেখা করলেন কেন? স্থায়ী কমিটির সদস্যদের শরীরে কি করোনাভাইরাস থাকতে পারে না? করোনা কি শুধুমাত্র বিএনপি ও জোট নেতাকর্মীদের শরীরে? বিএনপির মতো এত বড় দলের একজন চেয়ারপার্সন হয়েও তিনি দায়িত্বহীন কীভাবে হন? দেখা করলে সবার সঙ্গে দেখা করতেন, না হলে কারো সঙ্গেই দেখা করতেন না। তার এই আচরণে নেতাকর্মীরা চরম হতাশ।

২০ দলীয় জোট সূত্রে জানা যায়, সর্বশেষ বৈঠকে জোটের সমন্বয়ক ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান নেতাদের আশ্বস্ত করেছিলেন- ঈদুল আজহায় খালেদার সঙ্গে তাদের দেখা করানোর একটা ব্যবস্থা করে দেবেন। কিন্তু সেই আশায় গুঁড়েবালি। খালেদার সাক্ষাৎ তো দূরের কথা, এ ধরনের কোনো আলোচনা এখনো পর্যন্ত শোনা যায়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ২০ দলীয় জোটের শীর্ষস্থানীয় এক নেতা বলেন, আমরা অনেক আশায় ছিলাম- খালেদা নিজ থেকে আমাদের সঙ্গে একটা সাক্ষাতের ব্যবস্থা করবেন। কিন্তু তিনি তা করেননি। পরবর্তীতে আমরা প্রস্তাব দিলেও সেটাকে আমলে নেননি। যা চরম অসম্মানজনক বলে আমি মনে করি।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার এই আচরণে আমরা শুধু হতাশই হইনি, চরম ব্যথিতও হয়েছি।

এ বিষয়ে বিএনপির একাধিক ভাইস চেয়ারম্যান ও উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্যরা জানান, ভেবেছিলাম খালেদা কারামুক্ত হওয়ার পর দলের একটা গতি ফিরবে। বিএনপি তার যৌবন ফিরে পাবে। কিন্তু বাস্তবতা উল্টো। এ দলের ভবিষ্যত কী সেটাই এখন বোঝা মুশকিল?

তারা বলেন, খালেদা জিয়া এখন আর আগের মতো নেই। তার আচরণে আমরা আজ স্তম্ভিত। হয়তো তিনি অনেক চাপের মধ্যে আছেন এটা সত্য। কিন্তু তিনি অনেক কৌশল অবলম্বন করতে পারতেন। দলকে পুনরুজ্জীবিত ও গতি ফেরাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারতেন। কিন্তু তিনি তা করেননি। যার ফলে তার আচরণে চরম হতাশ হয়েছি।

এর আগে, ঈদুল আজহা উপলক্ষে শনিবার রাত সাড়ে ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত গুলশানের বাসা ফিরোজায় দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন খালেদা জিয়া। এ সময় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমেদ, জমিরউদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ মার্চ সরকারের নির্বাহী আদেশে শর্তসাপেক্ষে ৬ মাসের সাজা স্থগিত করে মুক্তি দেয়া হয় বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে। এরপর গত ২৫ মে প্রথমবারের মতো ঈদুল ফিতরের দিন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন তিনি।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি