শুক্রবার ২ অক্টোবর ২০২০



রিজভীর ওপর ক্ষুব্ধ দলের সিনিয়র নেতারা!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
09.09.2020

নিউজ ডেস্ক: সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে পার্টি অফিসে বেশিক্ষণ থাকতে ও কোনো মিছিলে অংশ না নিতে নির্দেশ দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, রিজভীর বেশকিছু কর্মকাণ্ডে বিরক্ত ও বিব্রত অবস্থায় পড়েছেন দলটির সিনিয়র নেতারাসহ খালেদা জিয়া।

জানা গেছে, যেকোনো ইস্যুতে হুট করে সংবাদ সম্মেলন আর প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে ১০ থেকে ১২ জন নেতা-কর্মী নিয়ে ‘ঝটিকা মিছিল’ নিয়ে বিব্রত দলটির শীর্ষস্থানীয় নেতারা।

দলটির সিনিয়র নেতাদের দাবি, বিএনপি এমন কোনো নিষিদ্ধ সংগঠন নয় যে, কোনো কর্মসূচি রাতের আঁধারে পালন করতে হবে। এসব কর্মসূচির মাধ্যমে নেতা-কর্মীরা রাজনীতির প্রতি দিন দিন নিরুৎসাহিত হচ্ছেন। সিনিয়র নেতারা ঘরমুখো হয়ে পড়ছেন। এতো বড় একটা দল যদি মিছিল করে ১০ থেকে ১২ জন নিয়ে তাহলে এর চেয়ে লজ্জার কি আছে? তার (রিজভীর) এই কর্মসূচি দেখে আসলেই মনে হয় বিএনপি আজ নালিশ পার্টিতে পরিণত হয়েছে। কার পরামর্শে বা নির্দেশে তিনি এগুলো করছেন তা আমাদের বোধগম্য নয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির একাধিক সিনিয়র ও এক সময়ের শীর্ষস্থানীয় নেতা বলেন, রুহুল কবির রিজভীর মর্নিং ওয়াকের নামে যেসব কর্মসূচি পালন করছেন তা একদমই ঠিক নয়। এগুলো রীতিমতো তামাশা ছাড়া আর কিছু নয়।

তারা বলেন, বিএনপি কোনো নিষিদ্ধ দল নয়। তাহলে কেন বিএনপিকে পালিয়ে-পালিয়ে কর্মসূচি পালন করতে হবে? এসব কর্মসূচিতে দলের যতটুকু লাভ হয় তারচেয়ে বেশি ক্ষতি হচ্ছে। এর মাধ্যমে দলের জুনিয়র নেতারা রাজনীতির প্রতি নিরুৎসাহিত হচ্ছেন। সিনিয়র নেতারা বিভিন্ন জায়গায় বিব্রত অবস্থায় পড়ছেন।

রিজভীর উদ্দেশ্য করে তারা আরো বলেন, তিনি যে এলাকায় মিছিল করেন সেখানে সংশ্লিষ্ট ইউনিটের দায়িত্বশীল নেতারা তার কর্মসূচি সম্পর্কে কিছুই জানেন না। বিষয়টি কেমন হলো? তাহলে কি বলবো তিনি ওই এলাকার নেতাদের বিশ্বাস করেন না! আর তার সঙ্গে মিছিলে যে কয়েকজন লোক থাকে তারাইবা কারা?

দলীয় সূত্র থেকে জানা গেছে, রিজভী সম্পর্কে দলের সিনিয়র নেতারা খালেদা জিয়ার কাছে এসব বিষয়ে নালিশ করলে এবং তিনি নিজেও এতদিন বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করে সম্প্রতি রিজভীকে ফোন করে এসব কর্মসূচি পালন না করতে নির্দেশ দেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রিজভী বলেন, তিনি নিজে বেশকিছু রোগে ভুগছেন বিধায় খালেদা জিয়া তাকে পার্টি অফিসে যাওয়া ও দলীয় কার্যক্রমে অংশ নেয়ার বিষয়ে নির্দেশনা দেন। একজন নেত্রীর এমন মাতৃসুলভ আচরণেই বিএনপি টিকে আছে। দলীয় কর্মীসহ দেশবাসী এ কারণেই বিএনপিকে ভালোবাসেন বলে মন্তব্য করেন তিনি।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি