শুক্রবার ২ অক্টোবর ২০২০
  • প্রচ্ছদ » Lead 3 » ‘জামায়াত ও পাকিস্তানের সাথে বেইমানি করায় বেগম জিয়ার চরম পরিণতি’



‘জামায়াত ও পাকিস্তানের সাথে বেইমানি করায় বেগম জিয়ার চরম পরিণতি’


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
10.09.2020

নিউজ ডেস্ক: কেবলমাত্র ক্ষমতার কেন্দ্রবিন্দুতে পৌঁছাতে জামায়াতের ইসলামীর সাথে রাজনৈতিক জোট বাধেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। দেশে ইসলাম প্রতিষ্ঠায় জামায়াতকে সহযোগিতা নয় বরং দলটির সাথে বেগম জিয়া সখ্যতা গড়েছিলেন পেশিশক্তি বাড়াতে। শুধু জামায়াতই নয় ক্ষমতায় যেতে পাকিস্তানের দেয়া শর্তগুলোও পুরোপুরি পূরণ করেননি বেগম জিয়া। ক্ষমতা পাকাপোক্ত করতে জামায়াত ও পাকিস্তানের সাথে বেইমানি করেছেন বেগম জিয়া। বেগম জিয়া সম্পর্কে এমনটাই মন্তব্য জামায়াতের শীর্ষ এক নেতা।

পরিচয় গোপন রেখে বিএনপি নিয়ন্ত্রিত জোট সরকারের সাবেক এক এমপি ও জামায়াত নেতা বেগম জিয়ার রাজনৈতিক প্রতারণার বিষয়ে জানা গেছে।

ওই জামায়াত নেতা বলেন, দেশে ইসলামি শাসন কায়েম, ভারতবিরোধীতা এবং নিজেদের আদর্শ বাস্তবায়নের শর্তে ২০০১ সালে বিএনপিকে ক্ষমায় যেতে সহায়তা করে পাকিস্তান। জামায়াতও বিএনপি নেত্রীর উপর ভরসা করে জোটে যোগদান করে। কিন্তু যতোদিন যেতে লাগলো বেগম জিয়া ততো ধর্মের রাজনীতির নামে বেপরোয়া হয়ে ওঠেন। জামায়াত ও পাকিস্তানকে দেয়া ওয়াদা ভুলে তিনি ইচ্ছামতো দেশ শাসন করা শুরু করেন। ধর্মভিত্তিক দলগুলোর সাথে এক ধরনের প্রতারণা করেন বিএনপি নেত্রী। জামায়াত-শিবিরকে পেশিশক্তি হিসেবে ব্যবহার করে বিরোধী দলকে দমনে নেমে পড়েন বেগম জিয়া। পাকিস্তানের দেয়া প্রেসক্রিপশন এড়িয়ে চলার চেষ্টা করেন। দেশে ইসলামী শাসন কায়েম করতে বেগম জিয়া কোনো সহায়তা করেননি। ধর্মপ্রাণ মানুষদের ইমোশনকে কাজে লাগিয়ে ক্ষমতার অপব্যবহার করে বিএনপি। ভারতবিরোধী করতে বলা হলেও বেগম জিয়া পাকিস্তানের সেই নির্দেশ মানেননি। যার কারণে পরবর্তীতে পাক সরকার বেগম জিয়ার উপর চরম ক্ষুব্ধ হয়।

তিনি আরো বলেন, ধর্মীয় রাজনীতির পরিবেশ তৈরি করতে জোট গঠন করলেও বেগম জিয়া সে পথে হাঁটেননি। এমনকি ক্ষমতায় থাকবে বিধবা হওয়ার সত্ত্বেও বেগম জিয়ার দৃষ্টিকটু জীবন যাপন, বেপর্দা চলাফেরা থেকে বিরত থাকতে জামায়াতের তরফ থেকে একাধিকবার অনুরোধ করলেও সেই বিষয়ে কর্ণপাত করেননি বেগম জিয়া। যার কারণে পরবর্তীতে জামায়াতের সাথে বেগম জিয়ার দূরত্ব সৃষ্টি হয়। পাকিস্তানেরও প্রেসক্রিপশন শতভাগ বাস্তবায়িত না হওয়ায় বেগম জিয়ার তরফ থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয় দেশটির কর্তৃপক্ষ। মূলত জামায়াত ও পাকিস্তানের সাথে প্রতারণা করার জন্যই রাজনীতিতে বিএনপির অধঃপতন ঘটেছে। নিজের নির্বুদ্ধিতার কারণেই বিএনপি নেত্রী রাজনীতি থেকে ছিটকে পড়েছেন, আইসিইউতে চলে গেছে বিএনপির রাজনীতি।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি