মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০



খালেদার রাজনীতি নিয়ে বিভক্তি বিএনপিতে


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
11.09.2020

নিউজ ডেস্ক: দলের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার রাজনীতিতে ফেরা না ফেরা নিয়ে বিভক্তি সৃষ্টি হয়েছে বিএনপিতে। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, দলের বেশিরভাগ সিনিয়র বিএনপিতে খালেদাপন্থী হিসেবে পরিচিত। তাদের মতে, দলকে ঐক্যবদ্ধ রাখতে তারেক নয় খালেদাকে দায়িত্ব নিয়ে ঘুরে দাঁড়াতে হবে এবং দলের ভাঙন ঠেকাতে এটা খুব জরুরি হয়ে দাঁড়িয়েছে।

অপরদিকে মধ্যমসারির ও তরুণ নেতারা বিএনপিতে তারেক অনুসারী হিসেবে পরিচিত। বিএনপির ক্ষমতা এখন তাদেরই হাতে। তাদের দাবি, খালেদা জিয়া অসুস্থ। তিনি শারীরিকভাবে এখন রাজনীতিতে ফিট নয়। তাই দলের দায়িত্ব তারেক রহমানের হাতে থাকাই উত্তম।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, বিএনপিতে এখন খালেদা জিয়ার অবস্থান আগের মতো নেই। এই কারণে দ্বিতীয় দফায় মুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর জন্য আইন মন্ত্রণালয়ের সুপারিশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পাঠানোর পরও বিএনপি নেতাদের মধ্যে কোনো উৎসব বা আমেজ নেই। এ বিষয়টি নিয়ে তারা উদাসীনতার পরিচয় দিয়েছে।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলটির নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের এক নেতা বলেন, দলের কিছু উচ্ছৃঙ্খল ও অবুঝ নেতা-কর্মী আছেন যাদের কর্মকাণ্ডে দলের হাইকমান্ডকে সব সময় বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হয়।

তিনি বলেন, ক্ষমতার অপব্যবহার করে এসব অতিউৎসাহী নেতা-কর্মীরা পরিস্থিতি না বুঝে দল থেকে খালেদা জিয়াকে নিষ্ক্রিয় করে রাখার ষড়যন্ত্র করে চলেছেন। যা বিএনপির ভবিষ্যতকে অন্ধকারের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। খালেদা জিয়াকে ছাড়া বিএনপির অস্তিত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে দলের নেতা-কর্মীদের মধ্যে।

তিনি আরো বলেন, খালেদা জিয়া আনুষ্ঠানিকভাবে রাজনীতি থেকে অবসরের ঘোষণা দিলে সব সিনিয়র নেতারা তার সঙ্গে একই ঘোষণা দিবেন।

অপরদিকে, বিএনপির মধ্যমসারির এক নেতা বলেন, নতুন নেতৃত্ব সব সময় দলকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যায়। তাছাড়া খালেদা জিয়ার বয়স হয়েছে। তিনি আর আগের মতো রাজনীতিতে দলের জন্য ভূমিকা রাখতে পারেন না। তার এখন বিশ্রাম প্রয়োজন।

তিনি বলেন, দুর্নীতির মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে কারাগারের যাওয়ায় জনগণের কাছে খালেদা জিয়া গুরুত্ব হারিয়েছেন। দলের সব সিনিয়রদের বয়স হয়ে গেছে। তাদের এখন উচিত তরুণদের জন্য জায়গা ছেড়ে দেয়া। যেহেতু তারা নিজেরা এখন রাজনীতির জন্য শারীরিকভাবে সক্ষম না।

এ বিষয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও বুদ্ধিজীবীরা বলেন, জিয়া পরিবারের নেতৃত্বের ওপর দুর্নীতির তকমা লাগায় বিএনপির উচিত দলের মধ্য থেকে নির্বাচনের মাধ্যমে নেতা নির্বাচিত করা।

তারা বলেন, রাজনৈতিকভাবে ঘুরে দাঁড়াতে হলে বিএনপির উচিত এখন দলের মধ্য থেকে ত্যাগী, চৌকস, মেধাবীদের খুঁজে বের করা এবং তাদের হাতে দলের দায়িত্ব তুলে দেয়া।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি