সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » তারেককে অভিভাবক মেনে জামায়াতের বিপুল বিনিয়োগ!



তারেককে অভিভাবক মেনে জামায়াতের বিপুল বিনিয়োগ!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
14.09.2020

রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় যেতে ২০০১ সালে যুদ্ধাপরাধীদের দল জামায়াতের সাথে জোট বাধে বিএনপি। শুধুমাত্র জামায়াতের পেশিশক্তি ও অর্থ ব্যবহারের নামে বিরোধী দল দমনে জামায়াতকে সঙ্গী করেন বেগম জিয়া। গুঞ্জন রয়েছে, ক্ষমতায় যেতে জামায়াতের প্রলোভনে পড়েন বেগম জিয়া ও তারেক রহমান। সেই জামায়াতকে ছেড়ে দেয়া নিয়ে নানা আলোচনা হলেও অদৃশ্য কারণে দলটিকে ছাড়ছে না বিএনপি। বলা হচ্ছে, অর্থ-বিত্ত ও ক্ষমতার ফাঁদে পড়ে চাইলেও জামায়াতকে ছাড়তে রাজি হচ্ছেন না তারেক। তবে জামায়াতের দাবি, তারেক রহমানকে তারা অভিভাবক মনে করেন। তারেক জামায়াতের ব্যাপারে রুষ্ট নন। তাই বিএনপি কখনই জামায়াতকে ছাড়বে না।

লন্ডনভিত্তিক একাধিক গোপন সূত্র বলছে, বিএনপি ও ২০ দলীয় জোটের রাজনীতিতে বর্তমান প্রেক্ষাপটে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি তারেক রহমান। সাজার কারণে বেগম জিয়া রাজনীতিতে নিষ্ক্রিয়। আর এ কারণে তারেক রহমানই এখন বিএনপি ও ২০ দলীয় জোটের ভাগ্যবিধাতা। তার কারণেই জামায়াত এখনো ২০ দলীয় জোটের সঙ্গী হয়ে থাকতে পারছে। তবে এর পেছনে কাজ করছে আর্থিক প্রলোভন। বর্তমান প্রেক্ষাপটে অনেকেই তারেককে বিএনপির বাদ দিয়ে জামায়াতের মুখপাত্র বলেই ব্যাঙ্গ করেন। ইচ্ছে করলেই তারেক রহমান জামায়াত-শিবিরের খাঁচা থেকে বাহির হতে পারবে না। তার পিছনে রয়েছে জামায়াত-শিবিরের বড় ধরনের বিনিয়োগ। দুর্নীতির টাকা নিয়ে বিদেশে বিনিয়োগ করে তারেক যে পরিমাণ অর্থ পান তার চেয়ে বেশি অর্থ-সহযোগিতা পান জামায়াতের কাছ থেকে। গুঞ্জন রয়েছে, তারেকের পেছনে বিনিয়োগ করে আগামীতে রাজনীতিতে ফিরতে চায় জামায়াত-শিবির। লন্ডনে বসবাসকারী জামায়াতের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা তারেককে মাসিক প্রণোদনা দিয়ে থাকেন। গুঞ্জন রয়েছে, যুদ্ধাপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা মীর কাসেম আলীর যুক্তরাজ্যের সম্পদের একটি নির্ধারিত অংশের মাসোয়ারা পান তারেক। বিএনপি যেন ২০ দলীয় জোট থেকে জামায়াতকে বের করে না দেয়, সেজন্যই প্রতিমাসে বিপুল অঙ্কের অর্থ পান তারেক। বলা হচ্ছে, অর্থ-বিত্তের প্রলোভনে পড়ে শত সমালোচনার সত্ত্বেও জামায়াতকে ছাড়তে পারবেন না তারেক রহমান।

যদিও যুক্তরাজ্য বিএনপির নেতারা বলছেন, তারেক জামায়াতের ফাঁদে আটকা পড়েননি। বরং জামায়াত নেতারা তারেক রহমানকে অভিভাবক মনে করেন। যার কারণে তারা তারেক রহমানকে এতো সমাদর করেন। কারণ এই দুর্দিনে বিএনপি জামায়াতকে ছেড়ে দিলে তাদের আর কোথাও ঠাঁই হবে না। তাই লন্ডনের জামায়াত নেতারা তারেক রহমানকে এতো ভালোবাসেন। আর অর্থ-বিত্তের লোভের বিষয়টি পুরোপুরি সঠিক নয়।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি