শুক্রবার ২ অক্টোবর ২০২০



চোরাবালিতে আটকে আছে বিএনপি!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
15.09.2020

নিউজ ডেস্ক: এক যুগেরও বেশি সময় ধরে কঠিন সংকটের চোরাবালিতে বিএনপি। নেতৃত্বে দূরদর্শিতার অভাব, সংকটময় মুহূর্তে কৌশলী সিদ্ধান্ত নিতে ব্যর্থতা, লেজে-গোবরে সাংগঠনিক হাল, প্রার্থী বাছাইয়ে ভুল সিদ্ধান্ত, অভ্যন্তরীণ কোন্দল সামাল দিতে না পারা, জোট সঙ্গীদের অতিমাত্রায় নির্ভরতার কারণেই আজ বিএনপির এই দুরবস্থা। শত চেষ্টা করেও এ অবস্থা থেকে কোনোভাবেই উত্তরণের পথ খুঁজে পাচ্ছে না দলটির হাইকমান্ড।

দলীয় সূত্র থেকে জানা গেছে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শোচনীয় পরাজয়ের পর থেকেই দলটির সর্বস্তরের নেতা-কর্মীরা হতাশায় ভেঙে পড়েছে। এক যুগেরও বেশি সময় ধরে ক্ষমতার বাইরে থাকা দলটিকে আরো পাঁচ বছর ক্ষমতাকেন্দ্রিক রাজনীতির বাইরে থাকতে হচ্ছে। ফলে এ দলের নেতা ও কর্মী-সমর্থকদের মনোবল এখন শূন্যের কোঠায়।

প্রতিষ্ঠার পর বিএনপিকে অনেক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয়েছে,হাঁটতে হয়েছে কংক্রিট পাথরের বাঁকে বাঁকে। তবে এবারের মতো সংকটের এত দীর্ঘ পথ এর আগে কখনো হাঁটতে হয়নি। তাই বর্তমান সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে আপাতত রাজপথে হরতাল-অবরোধের মতো কঠোর কর্মসূচি দেয়ার মতো অবস্থা নেই বিএনপির। নেতা-কর্মীদের ব্যক্তিস্বার্থ, হামলা মামলার ভয়ের কারণেই সেটা সম্ভব হচ্ছে না। এ অবস্থায় চুপচাপ থেকে সংগঠনকে ঢেলে সাজানোই শ্রেয় মনে করছে নীতিনির্ধারকরা।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলটির নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের এক নেতা বলেন, নেতা-কর্মীদের মামলা, হামলা ও হতাশা থেকে তরুণদের জন্য এই মুহূর্তে ‘ধীরে চলো’ নীতিতে এগোচ্ছে বিএনপি।

তিনি বলেন, এছাড়াও নির্বাচনী দুটি জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলের সঙ্গে লিয়াজোঁ থাকবে কিনা সেটি নিয়েও ভাবা হচ্ছে দলের মধ্যে। কেননা এদের সঙ্গে চললে বিএনপির আলাদা সত্ত্বা বলতে কিছুই থাকবে না। অস্তিত্ব সংকটে পড়বে।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান বিএনপির এই অবস্থার জন্য একমাত্র দায়ী নেতৃত্বের সংকট। দলের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া মামলার বেড়াজালে আবদ্ধ, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান বিভিন্ন মামলার দণ্ড নিয়ে লন্ডনে পলাতক। এ অবস্থায় দলের প্রভাবশালী দুজনের নেতৃত্বশূন্যতা অনেকটা তালগোল পাকিয়ে ফেলেছে দলটির মহাসচিবসহ দায়িত্বপ্রাপ্তরা। এছাড়া কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যন্ত নেতৃত্ব দেয়ার মতো যোগ্য নেতৃত্বের অভাব রয়েছে বিএনপিতে।

এ বিষয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও বুদ্ধিজীবীরা বলেন, রাজনৈতিকভাবে ঘুরে দাঁড়াতে হলে বা সংকট থেকে উত্তরণের একমাত্র পথ হলো মেধাবী, চৌকস ও তরুণদের হাতে দলের দায়িত্ব তুলে দেয়া। এছাড়া বিএনপির মধ্যে একটা শুদ্ধি অভিযান দরকার যেখানে দুর্নীতিবাজ, সুযোগ সন্ধানী, বয়স্ক ও অকার্যকর নেতাদের চিহ্নিত করে সেসব জায়গায় সংস্কার করতে হবে।

 



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি