মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০



তারেক রহমানের ওপর কারো আস্থা নেই


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
15.09.2020

নিউজ ডেস্ক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন বাণিজ্যের মাধ্যমে দুর্নীতি ও অনিয়মসহ নানা কারণে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ওপর আস্থা রাখতে পারছেন না দলের সিনিয়র নেতারা। সম্প্রতি বিএনপির একাধিক সিনিয়র নেতার সঙ্গে কথা বলে এমনটাই জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, রাজপথে আন্দোলন করতে ব্যর্থ বিএনপির নেতৃত্ব নিয়ে দলের মধ্যে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। ব্যাপক দুর্নীতির বোঝা মাথায় নিয়ে ২০০৯ সাল থেকে লন্ডনে পলাতক জীবন কাটাচ্ছেন তারেক রহমান। পরপর তিন মেয়াদে ক্ষমতায় আসতে না পারা এবং সরকারবিরোধী আন্দোলনে রাজপথে ব্যর্থ বিএনপির বর্তমান অবস্থাকে রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়াত্বের বহিঃপ্রকাশ বলে মনে করছেন অনেকে। এমন পরিস্থিতিতে কেউ কারো ওপর আস্থা রাখতে পারছেন না।

সূত্রটি আরো জানায়, দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর থেকেই দলের দায়িত্ব চলে যায় তারেক রহমানের হাতে। আর দলের সব কার্যক্রমে তারেক রহমানের ভূমিকায় সিনিয়র নেতারা হতাশ। তারেকের একক নেতৃত্ব তারা মানতে নারাজ। ফলে দলের মধ্যে নতুন এক সংকটের তৈরি হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলের সিনিয়র ও দায়িত্বশীল এক নেতা বলেন, বিএনপির মতো একটি রাজনৈতিক দলে একক নেতৃত্ব কখনোই কাম্য নয়।

তিনি বলেন, বর্তমানে বিএনপির মধ্যে গণতন্ত্র অনুপস্থিত। তারেক রহমানের একক কর্তৃত্ব ও সিনিয়র নেতাদের পরামর্শ না নেয়ায় দলের মধ্যে একটা বিভাজনের সৃষ্টি হয়েছে। তারেক রহমানের কর্মকাণ্ডে সিনিয়র নেতারা অসন্তুষ্ট। এছাড়া আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও তারেক রহমান সম্পর্কে নেতিবাচক ধারণা থাকায় বিএনপির গুরুত্ব দিন দিন কমেছে।

এ বিষয়ে রাজনৈতিক বুদ্ধিজীবী ও বিশ্লেষকেরা বলেন, তারেক রহমান রক্তের উত্তরাধিকারী, সেটি ঠিক আছে। তবে এর আগে তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগগুলো তিনি খণ্ডন করতে পারেননি।

এদিকে রাজনৈতিক বিশ্লেষক অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন, বিএনপিতে পরিবারতন্ত্রের চর্চা চলছে। এতে এক সময় দলের সিনিয়র নেতারা রাজনীতির প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলবেন।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি