বুধবার ২১ অক্টোবর ২০২০



আদর্শের বদলে অর্থ দিয়ে রাজনীতি করছে বিএনপি


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
18.09.2020

নিউজ ডেস্ক: বর্তমান সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড ও সাফল্যে ঈর্ষান্বিত হয়ে বিএনপিসহ বিরোধীরা গুজব ছড়িয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। বর্তমানে রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়ন, আদর্শের বদলে অর্থ দিয়ে রাজনীতি করছে বিএনপি।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, অন্যদের জন্য রাজনীতি কঠিন করতে গিয়ে বিএনপি এখন তাদের নিজেদের জন্যই কঠিন করে ফেলেছে। নিজেদের রাজনৈতিক ইতিহাসে এত সংকটময়কাল বিএনপির জন্য আগে আসেনি। রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া হয়ে তারা এখন সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত। করোনাভাইরাস, বন্যাসহ কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনাকে বড় ইস্যু বানিয়ে মানুষের মধ্যে ভীতি ছড়িয়ে ক্ষমতাসীন সরকার সম্পর্কে একটা নেতিবাচক ধারণা তৈরি করাই তাদের মূল লক্ষ্য।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের ভাষ্যমতে, অস্ত্রের মুখে অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে ইতিহাসে জনগণের ভোটে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি হিসেবে পরিচিত হওয়ার অভিপ্রায় থেকেই জিয়াউর রহমান বিএনপি প্রতিষ্ঠা করেন।

তারা বলেন, বিএনপি এমন একটি দল যার জন্ম হয়েছে ক্ষমতার জোরে। এ কারণেই ক্ষমতা পাওয়ার জন্য তারা সব কিছুই করতে পারে। তারা অন্ধের রাজনীতি করে। যেকোনো ইস্যুতেই নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকতে তারা সরকারের উপর দায় চাপায়।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপি ছেড়ে আসা এক নেতা বলেন, রাজনীতিতে অস্ত্র, পেশীশক্তি, কালো টাকার ব্যবহারের মাধ্যমে রাজনীতিকে কলুষিত করার যে প্রক্রিয়া শুরু করেছিল, আজকে তার মূল্যই বিএনপিকে দিতে হচ্ছে।

দলের ক্রান্তিকালে বিএনপি যে আন্দোলন করতে পারছে না তার কারণ তাদের কোনো ত্যাগী, আদর্শিক কর্মী তৈরি হচ্ছে না। একটি রাজনৈতিক দলের যদি কোনো আদর্শ না থাকে তবে শুধু টাকা পয়সা দিয়ে আন্দোলন-সংগ্রাম পরিচালনা করা যায় না। নিজেদের আদর্শহীন রাজনীতির কারণেই এখন হতাশায় ভুগছে বিএনপি। আর এ হতাশা থেকে অপরাজনীতি শুরু করেছে বিএনপি বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে ঈর্ষান্বিত হয়ে বিএনপিসহ বিরোধী একটি মহল গুজব ছড়িয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করছে। করোনাভাইরাস, বন্যা পরিস্থিতি ও কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা নিয়ে মানুষের মধ্যে ভীতি ছড়াচ্ছে। বিএনপির এসব চক্রান্তের পরেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। বর্তমান সরকারের সাফল্য বিশ্ব দরবারে প্রশংসিত হচ্ছে।

তিনি বলেন, বিএনপির শাসনামলে তাণ্ডব চালিয়ে আওয়ামী লীগ নেতা শাহ এ এম এস কিবরিয়া, আহসান উল্লাহ মাস্টারসহ সারাদেশে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের হত্যা করা হয়। ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশে গ্রেনেড হামলা চালিয়ে আইভী রহমানসহ ২৪ জন নেতা-কর্মীকে হত্যা করা হয়। এটা কোনো গণতান্ত্রিক দলের কর্মকাণ্ড হতে পারে না।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি