সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০
  • প্রচ্ছদ » Lead 3 » ধর্ষক নুরদের গ্রেপ্তারে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের আল্টিমেটাম



ধর্ষক নুরদের গ্রেপ্তারে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের আল্টিমেটাম


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
14.10.2020

নিউজ ডেস্ক: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) এক ছাত্রীর করা ধর্ষণ মামলায় ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরসহ অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারে ৭২ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাকর্মীরা।সম্প্রতি ঢাবির রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে এক বিক্ষোভ সমাবেশে এ ঘোষণা দেন সংগঠনটির ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সনেট মাহবুব। এর পাশেই অনশন করছেন ঢাবির ওই ছাত্রী।

সনেট মাহবুব বলেন, ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ভিপি নুরদের গ্রেপ্তার করা না হলে কঠোর আন্দোলন ঘোষণা করা হবে। সারাদেশে অব্যাহতভাবে বেড়ে চলা ধর্ষণ ও নারী নিপীড়নের ঘটনাকে রাজনৈতিক রং দেয়ার চেষ্টা চলছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

আসামিদের গ্রেপ্তারের দাবিতে ঢাবির রাজু ভাস্কর্যের সামনে আমরণ অনশনে বসেছেন ওই শিক্ষার্থী। অনশনে থেকে অসুস্থ হয়ে পড়ায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ডা. শেখ মো. আল আমিনের নেতৃত্বে একটি চিকিৎসক টিম চিকিৎসা দিচ্ছে।

কর্মসূচি থেকে ভিপি নুরসহ সব আসামির গ্রেপ্তার ছাড়াও ‘ধর্ষকদের বাঁচাতে মৌলবাদীদের নৈরাজ্য’ সৃষ্টির প্রতিবাদ, ‘মুজিব কোট ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি পোড়ানো’ অভিযোগ তুলে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবি করা হয়।

এ বিষয়ে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল বলেন, সিলেটের এমসি কলেজ ও নোয়াখালীর বেগমগঞ্জসহ ধর্ষণের সবগুলো ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কিন্তু ঢাবির ওই বোনের ধর্ষণ মামলার আসামিদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না। ভিপি নুরদের গ্রেপ্তার না করা পর্যন্ত আমরা শাহবাগে অবস্থান অব্যাহত রাখবো।

প্রসঙ্গত, গত ২০ সেপ্টেম্বর রাতে রাজধানীর লালবাগ থানায় ভিপি নুরুল হক নুরসহ ছয় জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ এবং এ কাজে সহযোগিতার অভিযোগে মামলা দায়ের করেন ঢাবির ওই ছাত্রী। তিনি বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের আবাসিক শিক্ষার্থী।

মামলার প্রধান আসামি হিসেবে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুনকে উল্লেখ করে ধর্ষণের স্থান হিসেবে লালবাগ থানার নবাবগঞ্জ বড় মসজিদ রোডে মামুনের বাসার কথা বলা হয়েছে।

বাকি আসামিরা হলেন- বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক নাজমুল হাসান সোহাগ, যুগ্ম-আহ্বায়ক (২) মো. সাইফুল ইসলাম, ছাত্র অধিকার পরিষদের সহ-সভাপতি মো. নাজমুল হুদা এবং ঢাবি শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ হিল বাকি। পরে আরো একটি মামলা করেন ওই শিক্ষার্থী।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি