শুক্রবার ২৭ নভেম্বর ২০২০



বিএনপির সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন সিঁথি


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
22.10.2020

নিউজ ডেস্ক: বিএনপির রাজনীতিতে তারেক জিয়ার দাপটে কখনোই স্থান হয়নি আরাফাত রহমান কোকোর। তার মৃত্যুর পর কোকোর স্ত্রীও বিএনপিতে ছিলেন অন্তরালে। কিন্তু দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়া গ্রেফতার হওয়ার পর আলোচনায় আসেন সৈয়দা শর্মিলা রহমান সিঁথি।

জানা গেছে, কোকোর মৃত্যুর পর দুই সন্তান নিয়ে লন্ডনে অবস্থান করলেও কারান্তরীণ খালেদাকে দেখতে তিনবার দেশে আসেন তিনি। গত কিছুদিন ধরেই বিএনপির সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন সিঁথি।

এ সময় বিএনপি নেতাদের কাছে সিঁথির গুরুত্ব বাড়ে। বিশেষ করে খালেদা জিয়ার অনেক নির্দেশনা এবং বার্তা বিএনপির বিভিন্ন নেতাদের কাছে পৌঁছে দিয়ে তিনি সম্প্রতি আলোচনায় আসেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ২০১৮ এর নির্বাচনের সময় বিএনপির অনেক মনোনয়ন প্রত্যাশী সিঁথির কাছে তদবির করেন। এ সময়ই বিভিন্ন এলাকার মনোনয়ন নিয়ে তারেক জিয়ার সঙ্গে সিঁথির দূরত্ব প্রকাশ্যে আসে।

তবে বিএনপির অনেক নেতাই জানান, বিয়ের পর থেকেই সিঁথির সঙ্গে তারেক জিয়ার দ্বন্দ্ব ছিল। জিয়ার সন্তান হওয়ার পরও সবকিছুতে তারেকের একচ্ছত্র নিয়ন্ত্রণের বিরুদ্ধে স্বামীর পক্ষে সোচ্চার হয়েছিলেন সিঁথি। আর একারণেই খালেদা জিয়া বাধ্য হয়ে কোকোকে কিছু ব্যবসা দিয়েছিলেন।

সূত্র জানায়, খালেদা জিয়াই রাজনৈতিক নানা কর্মকাণ্ডে সিঁথিকে টেনে আনছেন। আর বিএনপির একাধিক নেতাও বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির এক নেতা বলেন, তারেক জিয়া কথা বলেন আদেশের সুরে। আমাদের সঙ্গে চাকর-বাকরের মতো ব্যবহার করেন। আর সিঁথি ম্যাডাম আমাদের যথেষ্ট সম্মান দেখান। তিনি আমাদের মতামত গুরুত্ব দেন। যার ফলে দলের নেতাদের কেউ কেউ তারেকের চেয়ে কোকোর সঙ্গে কথা বলতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করতেন।

তিনি বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে বিএনপিতে কমিটি বাণিজ্য ও মনোনয়ন বাণিজ্য নিয়ে অস্থিরতা চলছে। এই অস্থিরতার কারণে অনেকেই কোকোর স্ত্রীর কাছে অভিযোগ করেছেন।

সিঁথিও বিষয়গুলো টেলিফোনে খালেদা জিয়াকে জানালে তিনি তার মতামত জানিয়েছেন। এতে তারেকের অনেক সিদ্ধান্তই চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে। এ নিয়ে তারেক জিয়া উদ্বিগ্ন। ফলে বিএনপিতে এখন সিঁথি ও তারেকের চলছে অপ্রকাশ্য এক দ্বন্দ্ব।

এমন পরিস্থিতিতে বিএনপি’র অনেক নেতার অভিমত, পারিবারিক এই বিরোধের জেরে বিএনপি নতুন বিভক্তির পথেই যাচ্ছে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি