শুক্রবার ২৭ নভেম্বর ২০২০
  • প্রচ্ছদ » Lead 3 » নেতিবাচক মন্তব্যে বিএনপিতে বিভেদের বিষ ছড়াচ্ছেন জাফরুল্লাহ!



নেতিবাচক মন্তব্যে বিএনপিতে বিভেদের বিষ ছড়াচ্ছেন জাফরুল্লাহ!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
25.10.2020

নিউজ ডেস্ক: ‘তারেক রহমানকে বিএনপির দায়িত্ব দেয়াটা ঠিক হয়নি, দায়িত্ব ছেড়ে তারেকের দুই বছর লেখাপড়া করা উচিত। জাইমা রহমানকে দেশে আনা উচিত। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যদের বয়স হয়েছে, তাদের কোমরে শক্তি নেই। বিএনপি মেরুদণ্ডহীন রাজনৈতিক দল।’ বিএনপি সম্পর্কে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর এমনসব মন্তব্যে বিরক্ত দলটির শীর্ষ নেতারা। কিন্তু সাহস করে তারা জাফরুল্লাহর বিরোধিতা করতে পারছেন না। জাফরুল্লাহ বিএনপি নেতাদের গলার কাঁটায় পরিণত হয়েছেন বলেও গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে।

একাধিক গোপন সূত্র বলছে, বিএনপির সিনিয়র নেতাদের নিষ্ক্রিয়তা ও অদক্ষতার কারণে বিএনপির হয়ে কথা বলার সুযোগ পেয়েছেন ডা. জাফরুল্লাহ। মির্জা ফখরুলদের ব্যর্থতার কারণে জাফরুল্লাহ অনেকটা বিএনপির মুখপাত্রে পরিণত হয়েছেন। শুরুর দিকে তার বক্তব্যে সরকারবিরোধীতা ফুটে উঠলেও ধীরে ধীরে খোলস ছেড়ে বিএনপিকেই আক্রমণ করা শুরু করেন জাফরুল্লাহ। জাফরুল্লাহকে ভরসা করে তাকে দলের পক্ষে কথা বলার সুযোগ করে দিলেও তিনিই এখন মির্জা ফখরুলদের গলার কাঁটায় পরিণত হয়েছেন। কিন্তু সৌজন্যবোধ ও সিনিয়রিটির খাতিরে জাফরুল্লাহ কটু কথার প্রতিবাদ করতে পারেন না বিএনপির সিনিয়র নেতারা। জাফরুল্লাহর কথা-বার্তায় এখন তারা সন্দেহ প্রকাশ করছেন। বিএনপিকে ঐক্যবদ্ধ করার বদলে জাফরুল্লাহ এখন বিভেদের বিষ ছড়াচ্ছেন বলেও অভিযোগ দলটির নেতারা। কিন্তু খুঁটির জোর চিন্তা করে জাফরুল্লাহকে ঘাটাতে রাজি নন বিএনপির নেতারা। অবশ্য নিজেদের অযোগ্যতা, নিষ্ক্রিয়তা ঢাকতে জাফরুল্লাহকে নাড়তে চান না তারা, কারণ এতে কেঁচো খুঁড়তে সাপ বেরিয়ে আসতে পারে বলেও ভয় পান বিএনপির শীর্ষ নেতারা। কিন্তু জাফরুল্লাহর লাগামহীন বক্তব্যে কোণঠাসা হয়ে পড়েছেন মির্জা ফখরুলরা।

ডা. জাফরুল্লাহর লাগামহীন বক্তব্যের বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে বিএনপির এক সিনিয়র নেতা পরিচয় গোপন রাখার শর্তে বলেন, জাফরুল্লাহকে নিয়ে চরম বেকায়দায় পড়েছে বিএনপি। দলের ভালো করার চেয়ে ক্ষতিই বেশি করছেন। তিনি উল্টাপাল্টা বক্তব্য দেন। অনেক সময় দাওয়াত না দিলেও অযাচিতভাবেই অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে বিএনপিকে দোষারোপ করে নেতিবাচক কথা বলেন। জাফরুল্লাহকে থামানো উচিত এখনই। কিন্তু তার খুঁটির জোর সম্ভবত বেশি আর না হয় তিনি কোনো বিশেষ মহলের এজেন্ট, যার কারণে তাকে নাড়াতে স্বয়ং বেগম জিয়া ও তারেকও ভয় পান। বিএনপির জন্য অযাচিত ঝামেলা তৈরি করছেন জাফরুল্লাহ।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি