মঙ্গলবার ১৯ জানুয়ারী ২০২১
  • প্রচ্ছদ » রাজনীতি » অসুস্থ হলেই নেতাদের খোঁজ রাখে না বিএনপির হাইকমান্ড, প্রমাণ রিজভী!



অসুস্থ হলেই নেতাদের খোঁজ রাখে না বিএনপির হাইকমান্ড, প্রমাণ রিজভী!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
23.11.2020

‘চোখের আড়াল হলেই মনের আড়াল হয়’ প্রবাদটির সত্যতা যেনো হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। তবে তার অসুস্থতা নিয়ে দলের মধ্যে নেই কোনো উদ্বেগ। এমনকি খোঁজও রাখছেন না কেউ।

জানা গেছে, এক সময় নিয়মিত প্রেসব্রিফিং করে দলের অবস্থা জনগণের সামনে তুলে ধরলেও তার দুরবস্থা দলীয় হাইকমান্ডের কাছে তুলে ধরার কেউ নেই। এমনকি খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানও তার খোঁজ রাখছেন না বলে জানা গেছে।

একাধিক গোপন সূত্র বলছে, রিজভী অসুস্থ হলে শুরুর দিকে বিএনপির শীর্ষ কয়েকজন নেতা সাক্ষাৎ করতে আসলেও কারো তরফ থেকে মেলেনি আর্থিক সাহায্য। এমনকি দলীয় ফান্ড থেকেও তাকে দেয়া হয়নি ন্যূনতম সহায়তা। অথচ রিজভীর মধ্যস্থতায় তারেক রহমান মনোনয়ন বাণিজ্য, পদ বাণিজ্যের মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। বিপরীতে এসব বাণিজ্যের জন্য কম বদনাম শুনতে হয়নি তাকে। এমনকি মির্জা আব্বাস, মওদুদ আহমেদ, আব্দুল আউয়াল মিন্টুর মতো দলের বিত্তশালী নেতারাও রিজভীর এমন সময়ে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন। এমতাবস্থায় ল্যাবএইড হাসপাতালের মতো ব্যয়বহুল চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানে হার্টের চিকিৎসা করাতে গিয়ে চরম বিপাকে পড়েছেন রিজভী।

পরিচয় গোপন রাখার শর্তে রিজভীর এক আত্মীয় ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এটাই বিএনপির রাজনীতি। যখন একজন নেতা অসুস্থ হন, তখন তার খবর কেউই রাখেন না। রিজভী দরিদ্র নেতা। দল পরিচালনা করতে গিয়ে তাকে নানাভাবে দলীয় নেতারাই কথা দিয়ে আঘাত করেছেন। অনেকেই তাকে তারেক রহমানের কমিশন এজেন্ট বলেও গালি দিয়েছেন। রিজভী দু’হাত ভরে দিয়েছেন, বিনিময়ে পেয়েছেন শুধুই বদনাম। আজকে তার কেউ খোঁজ নিচ্ছে না। হাসপাতালের বিল পরিশোধ করতেও কোনো নেতা এগিয়ে আসছেন না। ভালোবাসা মুখ দিয়ে প্রকাশ করলেই হয় না, অনেক সময় কাজও করতে হয়। রিজভীকে ভুলে গিয়ে তার সাথে প্রতারণা করেছে দল।

প্রসঙ্গত, এর আগে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য রফিকুল ইসলাম মিয়া গুরুতর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। কিন্তু দলের কোনো সিনিয়র নেতা তার খোঁজ নেননি। বিএনপির প্রয়াত নেতা তরিকুল ইসলাম এবং এম কে আনোয়ার দীর্ঘদিন অসুস্থ হয়ে শয্যাশায়ী ছিলেন। সে সময়েও দলের নেতারা তাদের খবর রাখেননি। এমনকি মান্নান ভূঁইয়ার মতো নেতার মৃত্যুর পরও বিএনপি নেতাদের কেউই কিছু করেননি।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি