শুক্রবার ১৫ জানুয়ারী ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 3 » তারেকের জন্যই বিএনপির অভ্যন্তরে গণতন্ত্রের চর্চা নেই



তারেকের জন্যই বিএনপির অভ্যন্তরে গণতন্ত্রের চর্চা নেই


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
11.01.2021

নিউজ ডেস্ক: বর্তমানে বিএনপির অভ্যন্তরে গণতন্ত্রের চর্চা একেবারেই নেই বলেও ক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা অভিযোগ করেছেন। জানা গেছে, দলের সব সিদ্ধান্ত এখন একাই নিচ্ছেন লন্ডনে পলাতক তারেক রহমান। তার বাইরে কিছু বলতে বা করতে পারছেন না দলের শীর্ষ নেতারা, এমনকি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও।

এদিকে গত মার্চে শর্তসাপেক্ষে মুক্তি পাওয়ার পর নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাতে দলের ভবিষ্যৎ নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু অভিমত তুলে ধরেন বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া। দল পরিচালনায় কিছু ভুল পদক্ষেপ চিহ্নিত করে তা সমাধানেরও নির্দেশ দিয়েছিলেন তিনি। তবে নানা অজুহাতে এবং তারেক রহমানের প্রভাবে সেগুলো বাস্তবায়িত হয়নি।

এছাড়া ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও কৃষকদলের ভঙ্গুর অবস্থা দূর করতে এরই মধ্যে নতুন কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন খালেদা জিয়া। তবে তার সেই নির্দেশনাও ঝুলে আছে। দল গঠনের কোনো উদ্যোগ এখন পর্যন্ত দৃশ্যমান হয়নি।

এরই মধ্যে দলের মধ্যে গুঞ্জন উঠেছে, তারেক রহমানের একক প্রভাবে দলের সিনিয়র নেতারা স্বাচ্ছন্দ্য সহকারে কোনো কাজই করতে পারছেন না। দলীয় সমস্যা চিহ্নিত করে খালেদা জিয়া সমাধানের নির্দেশ দিলেও তারেক রহমান কোনো কিছু না ভেবেই আটকে দিচ্ছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলের নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের এক নেতা বলেন, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুকে দলের স্থায়ী কমিটিতে স্থান দিয়েছেন তারেক। কারণ এ দুজনই তার আস্থাভাজন হিসেবে পরিচিত। অন্যদিকে তাদের চেয়ে সিনিয়র ও ত্যাগী অনেক নেতাই বিএনপিতে একেবারে গুরুত্বহীন হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, তারেক রহমান মনে করেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ নেতারা তাকে মানবেন না। সুতরাং তাদের গুরুত্ব না দেয়াই শ্রেয়। আর এ কারণেই কৌশলে জ্যেষ্ঠ নেতাদের নিষ্ক্রিয় করছেন তারেক। তারেকের কারণে বিএনপির ভবিষ্যৎ অন্ধকারে নিমজ্জিত হচ্ছে বলেও নেতাকর্মীদের অভিযোগ।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি