সোমবার ২৫ জানুয়ারী ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 1 » খালেদাকে ‘মাইনাস’ করেই নেতৃত্ব যাচ্ছে তারেকের হাতে!



খালেদাকে ‘মাইনাস’ করেই নেতৃত্ব যাচ্ছে তারেকের হাতে!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
13.01.2021

নিউজ ডেস্ক: ক্ষমতার লোভ যেন অন্ধ করে তুলেছে লন্ডনে পলাতক ফেরারি আসামি ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে। এ কারণে তিনি নিজের গর্ভধারিণী মা ও দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ‘মাইনাস’ করে দলের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিতে দিনকেদিন আরও বেপরোয়া হয়ে উঠছেন। কোন কিছুর তোয়াক্কা না করে পাতছেন ষড়যন্ত্রের জাল। বিশিষ্টজনদের মতে, এর ফল ভালো হবে না। তারেক এখন যে কাজ করছে, পরবর্তীতে তার সঙ্গে যে এমনটি হবে না-তার কী গ্যারান্টি?

দায়িত্বশীল সূত্রের তথ্যমতে, জেল থেকে বের হওয়ার পরও দলের উপর সিঁকেভাগ নিয়ন্ত্রণ নেই বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার। পুরো কর্তৃত্ব তারেক রহমানের হাতে। তিনি ‘স্বার্থ হাসিলের’ জন্য দলের ভেতরে গড়ে তুলেছেন এক শক্তিশালী নেটওয়ার্ক। যার সর্বশেষ সংযোজন খালেদার একান্ত আস্থাভাজন ও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীই হচ্ছেন পরবর্তী মহাসচিব এমন গুঞ্জন ছড়িয়ে দিয়ে তিনি ফখরুলকে দলীয় নেত্রী খালেদা থেকে আলাদা করেছেন। ফখরুলও তারেকের চালাকি বুঝতে না পেরে সোমবার (১১ জানুয়ারি) এক ফেসবুক লাইভে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে দলের ‘চেয়ারম্যান’ বলে সম্বোধন করেছেন। বিষয়টি জানতে পেরে ব্যথিত হয়েছেন বিএনপি নেত্রী।

এ ব্যাপারে কথা বলতে বাংলা নিউজ ব্যাংকের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয় একাধিক জ্যেষ্ঠ নেতার সঙ্গে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে তারা এই প্রতিবেদককে জানান, মির্জা ফখরুলকে পরীক্ষিত নেতা ভেবে ভুল করেছিলেন খালেদা। যার মাশুল এখন তাকে গুনতে হচ্ছে। পুনরায় দলের মহাসচিব পদে অধিষ্ঠিত হতে ভিড়েছেন তারেকের নেটওয়ার্কে। ভেবেছেন তিনিই যখন আপাতত সব নিয়ন্ত্রণ করছেন। তাই তার সঙ্গে তাল মেলানোই শ্রেয়। কিন্তু ফখরুল হয়তো ভুলে গেছেন ‘ওস্তাদের মার শেষ রাতে’। তাছাড়া তারেকপন্থী নেতৃবৃন্দ ছাড়া অন্যান্যরা তারেকের স্বৈরাচারী নেতৃত্বকে গ্রহণের বিপরীতে ‘তলে তলে’ বর্জনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তাই লাভবান হওয়ার চেয়ে বেশিই ক্ষতিগ্রস্ত হবেন মির্জা ফখরুল। পরে এ কূল-ও কূল দু কূলই হারাবেন তিনি।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, খালেদাকে ‘মাইনাস’ করার যে ছক তারেক রহমান গং করছেন, তা বাস্তবায়িত হবে না। হতে দেওয়া হবে না। যেকোনো মূল্যে তা রুখে দেওয়া হবে। কারণ, খালেদার দ্বারা দলের উপকার হয়েছে। বিপরীতে তারেকের মাধ্যমে হয়েছে ক্ষতিগ্রস্ত।

রাজনৈতিক বিজ্ঞজনরা বলছেন, বিএনপির একাধিক নেতা পেছনে তারেকের বিরুদ্ধে কথা বললেও তারাই মূলত খালেদাকে হটানোর ষড়যন্ত্রে শামিল। তারা দু’মুখো সাপ। নিজেদের সুবিধা আদায়ের জন্যই তারা এমনটি করছেন। তাছাড়া, কারান্তরীণ থাকাসহ সবমিলিয়ে দলের নিয়ন্ত্রণ খালেদার হাতে নেই। নেতাকর্মীরাও রয়েছেন দলছুট ও সুবিধাবাদী মনোভাবে। এ থেকে সহজেই অনুমেয়, কি হতে যাচ্ছে বিএনপিতে। কে হচ্ছেন ‘মাইনাস’, আর কে-ই বা থাকছেন স্বপদে-সব কিছু এখন সময়ের অপেক্ষা মাত্র।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি