রবিবার ৭ মার্চ ২০২১



হঠাৎ কেন রাগ করে বিএনপি ছাড়ছেন মওদুদ?


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
16.02.2021

নিউজ ডেস্ক: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ বিএনপির রাজনীতি ছেড়ে অবসরে যাচ্ছেন, এমন খবর সম্প্রতি রাজনৈতিক অঙ্গনে চাউর হয়েছে। কিন্তু ঠিক কি কারণে, কার উপর রাগ করে তিনি এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন তা নিয়ে খোলসা করে কেউই কিছু জানেন না। তবে ধারণা করা হচ্ছে, তার ও ফখরুলের একত্রে সিঙ্গাপুর যাত্রাকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন মহল ও দলীয় হাইকমান্ডের রোষানলে পড়েছেন তিনি। তাই বাধ্য হয়ে মানসিক চাপে মওদুদ এমন সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।

নির্ভরযোগ্য সূত্রের তথ্যমতে, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ একজন আপাদমস্তক সুবিধাবাদী মানুষ। এ কারণে তিনি নিজ স্বার্থসিদ্ধির জন্য যখন জাতীয় পার্টির জয় জয়কার, তখন এরশাদ এবং বিএনপির রমরমা অবস্থায় থেকেছেন খালেদা জিয়ার পাশে। আদতে তার কোন রাজনৈতিক মতাদর্শ নেই। সুবিধাই তার কাছে মুখ্য বিষয়। তাই যেদিকে পানি পড়ে, চতুরতার সঙ্গে তিনি ছাতা সেদিকেই ধরেন। এটাই তার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য।

সম্প্রতি বিএনপিতে নিজের অবস্থান নড়বড়ে দেখে আবারও পুরনো রূপে ফিরছেন মওদুদ। তার একাধিক ঘনিষ্ঠজনের ভাষ্য, তারেক রহমান এখন বিএনপির সর্বসেবা। লন্ডনে থাকলেও তিনিই সব কলকাঠি নাড়েন। অপরদিকে, খালেদাও রাজনীতিতে নিষ্ক্রিয়। সবমিলিয়ে সুবিধা করতে না পারায়, আগের মতো পছন্দসই ব্যক্তিদের মনোনয়ন দিয়ে হাজার হাজার কোটি টাকা না কামাতে পারার চাপা আক্ষেপ নিয়ে তাই তিনি বিএনপি থেকে অবসরের কথা ভাবছেন। তাছাড়া তারেকের সঙ্গেও তার সম্পর্কটা সুবিধাজনক অবস্থানে নেই। সঙ্গে রয়েছে মির্জা ফখরুলের সঙ্গে সিঙ্গাপুর যাত্রা নিয়ে বিভিন্ন মহলের চাপ ও দলীয় নেতৃবৃন্দের কটাক্ষ আচরণ।

তবে বিষয়টির নেপথ্যে রয়েছে অন্য গল্প উল্লেখ করে মওদুদপন্থী একাধিক নেতা বাংলা নিউজ ব্যাংককে জানান, ব্যারিস্টার মওদুদ অনেকদিন যাবত অসুস্থ। কিন্তু এই সময়ে একটি বারের জন্যও বিএনপির হাইকমান্ড তার কোনোরূপ খোঁজ খবর নেয়নি। উল্টো চিকিৎসার উদ্দেশ্যে তার সিঙ্গাপুর যাত্রা নিয়ে রটলো কুৎসা। মনঃকষ্ট ও তীব্র অভিমানে তাই তিনি অবসারের চিন্তা করছেন। তবে কবে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে, তা এখনই বলা যাচ্ছে না।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, দলের কাছে নিজের গ্রহণযোগ্যতা হারিয়েছেন মওদুদ। আগের মতো তাকে আর মূল্যায়ন করা হয় না। এমনকি দলের গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রেও তার মতামতকে প্রাধান্য দেওয়া হয়না। তাই ‘কুনোর ব্যাঙ’ হয়ে না থেকে তিনি নিজেই দল থেকে সরে যেতে চাচ্ছেন। ভাবছেন, এতেই তার ভালো হবে। কিন্তু, আসলেই কি তাই হবে, তা কেবল সময়ই বলে দেবে!



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি