রবিবার ৭ মার্চ ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 1 » খালেদাকে মুক্ত করতে ডেভিড বার্গম্যানের ১০ লাখ পাউন্ড দাবি



খালেদাকে মুক্ত করতে ডেভিড বার্গম্যানের ১০ লাখ পাউন্ড দাবি


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
22.02.2021

নিউজ ডেস্ক : পৃথিবীতে একাধিক ইস্যু চলমান থাকলেও উক্ত ইস্যুগুলোকে ঘুরে ফিরে খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনের ইস্যু বানিয়ে ফেলে বিএনপি। তবে এবার বেগম জিয়ার মুক্তি ও আন্দোলন প্রক্রিয়ার বিষয়ে জট খুলতে বিদেশি আইনজীবী ও লবিস্টদের দ্বারস্থ হচ্ছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, দীর্ঘ ২ বছরের অধিককাল কারাবন্দি বেগম জিয়ার মুক্তির জন্য নেতাকর্মীদের শতাধিকবার আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানালেও কোন উপকার পাননি তারেক রহমান। বিভিন্ন সময় মির্জা ফখরুল, আমির খসরুদের লন্ডনে ডেকে আন্দোলন প্রক্রিয়ার ব্যাপারে পরামর্শও দিয়েছেন বিএনপির এই নেতা। কিন্তু সবকিছুর ফল শূন্য। যার কারণে দলীয় নেতা-কর্মীদের উপর আর আস্থা রাখতে পারছেন না তিনি।

আইনি প্রক্রিয়ায় যদি খালেদা জিয়ার মুক্তি না হয় সেক্ষেত্রে রাজনীতি ছিল বিকল্প। কিন্তু জাতীয় রাজনীতিতেও বিএনপি ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। তাই এবার আন্তর্জাতিক লবিস্টদের নিয়োগ দিয়ে এবং প্রখ্যাত সব আইনজীবীদের পরামর্শে বেগম জিয়াকে মুক্ত করতে চান তারেক। তবে সেটির জন্য প্রয়োজন বড় অংকের অর্থ।

বেগম জিয়ার মুক্তির জন্য এরই মধ্যে ইউরোপ বিএনপি নেতাদের সমন্বয় করে অনুদান সংগ্রহেরও গোপন পরামর্শ দিয়েছেন তারেক। কারণ বেগম জিয়ার মুক্তির জন্য আন্তর্জাতিক চাপ সৃষ্টি ও আইনি পরামর্শ দেয়ার জন্য যুক্তরাজ্যের আইনজীবী লর্ড কার্লাইল ও ইহুদি লবিস্ট ডেভিড বার্গম্যান (ড. কামালের জামাতা) কাজ করবেন বলে তারেককে কথা দিয়েছেন। বিনিময়ে তাদের দুজনকে ১০ লাখ পাউন্ড অর্থ দিতে হবে। তবে তারেক জানিয়েছেন অর্থ তার কাছে ব্যাপার না। কারণ অর্থ সংগ্রহের প্রক্রিয়া ইতোমধ্যে শুরু হয়ে গেছে। তিনি আইনি মারপ্যাঁচ দিয়ে বেগম জিয়াকে মুক্ত করতে চান।

এদিকে যুক্তরাজ্য বিএনপির একটি গোপন সূত্র বলছে, বেগম জিয়ার মুক্তি নতুন প্রচেষ্টায় আবারও চাঁদাবাজির শঙ্কায় পড়েছেন দলীয় নেতারা। অনেকেই বিএনপির ব্যানারে নিজেদের পীড়িত নেতা দাবি করে লন্ডনে রাজনৈতিক ভিসায় পা গেড়ে বসেছেন। সুতরাং যারা বিএনপির ব্যানার ব্যবহার করে বিভিন্ন দেশে বসবাস করছেন তাদের এবার দলের জন্য ঋণ পরিশোধ করার সময় এসেছে। বেগম জিয়ার মুক্তির জন্য দিতে হবে তাদের ডলার অথবা পাউন্ড। যার কারণে ইউরোপ বিএনপির নেতাকর্মীরা আতঙ্কে রয়েছেন বলে জানা গেছে। আর নির্ধারিত চাঁদা না দিলে বিএনপির প্রবাসী নেতাদের বহিষ্কার করারও হুমকি দেয়া হচ্ছে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি