বুধবার ২১ এপ্রিল ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » ইশরাক ও ভিপি নুরের কারণে বিপাকে মির্জা ফখরুল



ইশরাক ও ভিপি নুরের কারণে বিপাকে মির্জা ফখরুল


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
23.02.2021

নিউজ ডেস্ক: কোটা সংস্কার আন্দোলনের মাধ্যমে লাইম লাইটে আসা নুরুল হক নুর এবং তারেক রহমানের মেয়ে জাইমা রহমানের হাত ধরে রাজনীতিতে আসা ইশরাক হোসেনের কারণে বিএনপির একাধিক নেতা দলে প্রভাব বিস্তার করতে অক্ষম হয়ে পড়েছেন। এজন্য বিএনপি থেকে সরে যেতে চাইছেন একাধিক সিনিয়র নেতা।

মূলত নুরুল হক নূরের আলাদা দল থাকলেও তিনি পরিচালিত হন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানের দ্বারা। যার প্রমাণ হিসেবে বিভিন্ন সময়ে দেখা গেছে, বিএনপির নীতি নির্ধারণী সিদ্ধান্ত ডাকসুর সাবেক ভিপি নূরকে নিতে। আর এই কারণে বিএনপির মির্জা ফখরুলপন্থী নেতারা দলে কোনো কথা বলার সুযোগ পেতো না। যদিও বিষয়টি মেনে নিয়েছিলো উক্ত নেতারা। তবে নতুন করে ইশরাক হোসেনের আধিপত্য ভোগাচ্ছে মির্জা ফখরুলপন্থী নেতাদের।

এ প্রসঙ্গে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ভিপি নুর ও ইশরাকের কার্যক্রমকে আমরা স্বাগত জানাই। তারা বিএনপির জন্য নতুন করে আশার আলো জ্বালাচ্ছেন। তবে এও মনে রাখতে হবে, বিএনপি একটি ঐতিহাসিক দল। এ দলের জন্য বর্তমান মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের অবদান অনস্বীকার্য। কিন্তু ইশরাক ও ভিপি নুর আসার পর থেকে তার প্রাধান্য কমে যাচ্ছে বলে মনে হয়।

গয়েশ্বর আরো বলেন, বিএনপি নেতাদের মনে রাখতে হবে যে, কাউকে দলে ভেড়াতে গিয়ে দলের গুরুত্বপূর্ণ নেতারা যেন হাত ছাড়া না হয়ে যায়।
এদিকে ভিপি নুর ও ইশরাকের নেতৃত্বকে অস্বীকার করে মির্জা ফখরুলপন্থী নেতারা ইতোমধ্যে নয়াপল্টন কার্যালয়ের সামনে আন্দোলন করেছে বলে জানা গেছে। মির্জা ফখরুলপন্থী নেতাদের মতে, দলের হয়ে সর্বোচ্চ পর্যায়ে ত্যাগ স্বীকার করেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বর্তমানে তার চেয়ে বেশি, ইশরাক ও নুরকে প্রাধান্য দিচ্ছে বিএনপির একটি অংশ। যা মেনে নেয়া যায় না। এমন চলতে থাকলে বিএনপির রাজনীতিতে ভাঙ্গন সৃষ্টি হবে।

তবে বিএনপিতে ইশরাক ও নুর জুটির আগমনকে স্বাগত জানিয়ে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, রাজনীতিতে কারো পদ স্থায়ী নয়। দলের প্রয়োজনে অনেক সময় ছোট নেতাদেরও গুরু মানতে হয়। ভিপি নুরকে নিয়ে বিএনপি একটি বৃহৎ রাজনৈতিক প্লাটফর্ম গড়ে তুলতে পারে, সঙ্গে ইশরাককে জনগণ ভালোভাবে গ্রহণ করেছে। ইশরাক ও নুর দলের জন্য ভালো বিকল্প হতে পারে। বিএনপি সব সময় যোগ্যদের মূল্যায়ন করে। আমার বিশ্বাস, কেউ কেউ ইশরাক-নুরকে সাধুবাদ না জানালেও অধিকাংশ বিএনপির কর্মীরা তাদের স্বাগত জানাতে প্রস্তুত রয়েছে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি