বুধবার ২১ এপ্রিল ২০২১
  • প্রচ্ছদ » other important » পুরোনো তথ্যচিত্র এডিট করে তৈরি হচ্ছে আলজাজিরার নতুন পর্ব!



পুরোনো তথ্যচিত্র এডিট করে তৈরি হচ্ছে আলজাজিরার নতুন পর্ব!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
24.02.2021

‘অল দ্যা প্রাইম মিনিস্টার্স ম্যান’ শিরোনামে বিতর্কিত তথ্যচিত্র প্রসব করে ফায়দা হাসিল করতে না পেরে উল্টো বড় রকমের ধাক্কা খেয়েছে কাতারভিত্তিক বহুল সমালোচিত গণমাধ্যম আলজাজিরা। বিপুল পরিমাণ অর্থ খরচায় গোয়েবলসীয় প্রচারণা হালে পানি না পাওয়ায় এবার নিজেদের প্রোপাগান্ডার স্টাইলে তাঁরা বড় রকমের পরিবর্তন এনেছেন।

দুই বছর অনুসন্ধানের নাম করে রীতিমতো ধাপ্পাবাজির আশ্রয় নিয়ে কাঙ্খিত ফসল ঘরে তুলতে ব্যর্থ হওয়ায় শর্টকার্ট হিসেবে আধুনিক প্রযুক্তির অপব্যবহারের মাধ্যমে কাট-পেস্ট ও এডিটের সেই কথিত কথপোকথনকে নাকি মূল উপজীব্য করেই নতুন পর্ব নিয়ে হাজির হওয়ার জোর প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে চ্যানেলটি।

মূলত বাংলাদেশ বিরোধী প্রচারণা অব্যাহত রাখার টার্গেট থেকেই ‘পুরনো বোতলে নতুন মদ’ কায়দার পুনরাবৃত্তির মাধ্যমে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের শাসনামলে নানা অপকর্মে চাকরিচ্যুত ও অস্ত্র মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত এক পলাতক আসামিকে ‘হিরো’ হিসেবে উপস্থাপনের অপপ্রয়াস নিয়েছে চ্যানেলটির সম্পাদনা পর্ষদ।

আলজাজিরার নামে নতুন এপিসোড প্রচারের তোড়জোড় চললেও যথারীতি যৌথভাবে এ পর্বেরও স্ক্রিপ্ট রচনা করেছেন তারেক জিয়া ও যুদ্ধাপরাধীদের সন্তানদের ভাড়াটে রাইটার তাসনিম খলিল ও ডেভিড বার্গম্যান। খবর একাধিক নির্ভরযোগ্য সূত্রের।

সূত্র মতে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার উৎখাতের চক্রান্ত বাস্তবায়নে আদাজল খেয়ে গত কয়েক মাস যাবত ইউটিউব-ফেসবুকে জোর অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন কিছু সাংবাদিক নামধারী হলুদ সাংবাদিক, সেনাবাহিনী থেকে বরখাস্তকৃতকৃত ও পিএনজি প্রাপ্ত বেশ কয়েকজন সাবেক সেনা কর্মকর্তা। নিজেদের অসৎ উদ্দেশ্য হাসিলে যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র থেকে তারা মিথ্যার খৈ ফুটিয়ে নানারকম কল্পিত সাক্ষাৎকার দিচ্ছেন। জোচ্চুরি মার্কা কথপোকথনকে গুজব-গুঞ্জণ ছড়ানোর হাতিয়ার হিসেবেই ব্যবহার করছেন।

কিন্তু দেশের সচেতন জনসাধারণ তাদের ডাহা মিথ্যাচার সর্বস্ব আলাপকে ফুৎকারে উড়িয়ে দেওয়ায় নতুন ছক কষে অগ্রসর হচ্ছেন যুক্তরাজ্যে নির্বাসিত দন্ডপ্রাপ্ত দুর্নীতিবাজ এক রাজনীতিক তারেক জিয়া। সরকার বিরোধী নেটওয়ার্ককে আরও জোরদার করতেই দুর্নীতির সেই বরপুত্র গভীর হৃদ্যতা স্থাপন করেছেন আল জাজিরার সঙ্গে।

যদিও পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থার (আইএসআই) মধ্যস্থতায় মোটা অঙ্কের অর্থনৈতিক লেনদেনের পুরোটাই বহন করেছেন মানবতা বিরোধী অপরাধে ফাঁসি হওয়া সাকা চৌধুরী, মীর কাশেম, মতিউর রহমান নিজামীসহ বেশ কয়েকজন যুদ্ধাপরাধীর সন্তান। ‘অল দ্যা প্রাইম মিনিস্টার্স ম্যান’ শিরোনামে বালখিল্যতায় ভরপুর ভাঁওতাবাজির তথ্যচিত্রটি ছিল দেশদ্রোহী এ চক্রটির ‘অল আউট’ মিশনের প্রথম অভিঘাত।

কিন্তু সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও সেনা সদর দু’দফায় অসত্য, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট এ ফিল্মের বিরুদ্ধে কঠোর প্রতিবাদ জানানোর পাশাপাশি আলজাজিরার বিরুদ্ধে সরকারের আইনগত ব্যবস্থা ও বৈশ্বিক পরিমন্ডলে তীব্র চাপ তৈরি হওয়ায় বড় রকমের ধাক্কা খেয়েছে মুসলিম ব্রাদারহুডের মতাদর্শে বিশ্বাসী টিভি চ্যানেলটি।

বিভিন্ন সূত্র জানিয়েছে, প্রথম পর্বের খরচার পুরোটাই জলে যাওয়ায় দ্বিতীয় পর্বে বিনিয়োগে অনাগ্রহী ছিলেন যুদ্ধাপরাধীদের কয়েক সন্তান। আলজাজিরাও নতুন করে আর কোন বিতর্কে না জড়ানোর সিদ্ধান্ত নিলেও বার্গম্যান ও তাসনীম খলিল সম্মিলিতভাবে তাদের রাজি-খুশি করেছেন!

‘টোপ’ হিসেবে ব্যবহার করেছেন অলীক কল্পনাপ্রসূত কাটাকুটির জোচ্চুরি মার্কা একটি টেলিআলাপ। তারা না কী বুঝাতে সক্ষম হয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আস্থাভাজন ও বিশ্বস্ত ব্যক্তিদের ভয়াল তথ্য সন্ত্রাসে বিপর্যস্ত করতে সক্ষম হলেই সরকার পরিবর্তনের ‘খোয়াব’ কাগজে-কলমেও বাস্তবায়ন হবে।

অত্যন্ত স্পর্শকাতর বিষয়ে প্রযুক্তির চাতুর্যতার সুযোগে একেকটি শব্দের হেরফের করে নিজেদের ইচ্ছামতো নতুন শব্দ বসিয়ে পুরো ভাবকেই পরিবর্তন করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের ঘৃণ্য পরিকল্পনা চূড়ান্তে তাই ‘গুটি’ হিসেবে ব্যবহার করা হবে আলজাজিরাকে।

এই প্রামাণ্য চিত্র নির্মাণে বার্গম্যান-খলিলদের সব রকমের সহায়তা করেছেন তারেক জিয়ার নিয়ন্ত্রিত প্রোপাগান্ডা সেল। এ সেলের মাধ্যমেই তারেককে পাঠানো হয়েছে আষাঢ়ে গল্পনির্ভর নতুন তথ্যচিত্রটি। সেখান থেকে ‘সবুজ সংকেত’ মিললেই যে কোন দিন তথ্য-প্রমাণহীন প্রামাণ্যচিত্রটি আলজাজিরার পর্দায় অন ইয়ার হবে।

সূত্র জানায়, দেশকে পুরোদমে অস্থিতিশীল ও সেনাবাহিনীর ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার হীন উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার এমন অপপ্রয়াসকে প্রচন্ড ঘৃণার সঙ্গেই প্রত্যাখ্যান করেছে সেনা সদর দপ্তর। শত অপপ্রচারের মুখেও দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনীর সুসংহত অবস্থান ও অত্যন্ত কার্যকর চেইন অব কমান্ডের বিষয়ে তাৎপর্যপূর্ণ বক্তব্যও দিয়েছেন সেনাপ্রধান জেনারেল ড.আজিজ আহমেদ।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি