মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » এবার বিএনপির নেতৃত্বে ব্যর্থতা দেখিয়ে ঝাল ঝাড়লেন গয়েশ্বর!



এবার বিএনপির নেতৃত্বে ব্যর্থতা দেখিয়ে ঝাল ঝাড়লেন গয়েশ্বর!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
25.02.2021

নিউজ ডেস্ক: বিগত ৪ বছর ধরেই নড়বড়ে অবস্থানের কারণে বিএনপিতে নেতৃত্ব পরিবর্তনের দাবি উঠেছে। আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থা ও বন্ধু দেশগুলো চায় দলটির নেতৃত্বে পরিবর্তন আসুক। এর সঙ্গে সহমত পোষণ করছে তৃণমূল থেকে কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতাদের অনেকেই। কিন্তু এ নিয়ে নেতৃত্বে থাকা নেতাদের কোনো প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। ফলে দলের অভ্যন্তরে বাড়ছে বিচ্ছিন্নতা ও অবিশ্বাস। নেতিয়ে পড়ছে কর্মীদের স্পৃহা।

এবার একই প্রসঙ্গ টেনে বিএনপির নেতৃত্বে ব্যর্থতা দেখিয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে বিএনপির নীতি-নির্ধারকদের প্রতি ঝাল ঝেড়েছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তিনি বলেছেন, শুধু বক্তব্য দিলে হবে না। আন্দোলন না করতে পারলে সরে দাঁড়ান। দেশের তরুণ সমাজকে নেতৃত্ব দেন, যারা রাজপথ উত্তপ্ত করে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে পারবে। তাদের দায়িত্ব দিয়ে চলে যান। আমরা ব্যর্থদের নেতৃত্বে দেখতে চাই না।

বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) এক আলোচনা সভায় দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে এমন বক্তব্য রাখেন গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

নেতৃত্ব এবং সিদ্ধান্তে অদূরদর্শিতা দেখিয়ে কড়া ভাষায় গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, যখন আমাদের নেতা-কর্মীরা জেল জুলুম অত্যাচারে অত্যাচারিত, মামলা-হামলার জন্য পালিয়ে বেড়াচ্ছে- তখন বিভিন্ন নেতা গায়ে হাওয়া লাগিয়ে বেড়াচ্ছেন। অথচ প্রতিটি নির্বাচনে হারছি, এমনকি একজন কাউন্সিলরকে বিএনপি জেতাতে ব্যর্থ হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের একজন অধ্যাপক বলেন, বিএনপির বিষয়টি একটু জটিল। বর্তমানে বিএনপির মধ্যে নতুন নতুন গ্রুপ সৃষ্টি হয়েছে। মূল কথা, দলটি এখন ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন প্রায়। দলটির নেতৃত্বে যে সত্যিই দুর্বলতা আছে- তা অস্বীকার করা যায় না। সুতরাং এটিকে পুঁজি করে বিভক্ত বিএনপির একপক্ষ তারেক রহমান বা মির্জা ফখরুলসহ যারা নেতৃত্বের প্রশ্নে ব্যর্থ বলে প্রমাণিত- তাদের সরিয়ে নতুন আঙ্গিকে দলকে সাজাতে চায়। ওই অংশটি বিএনপিকে ঢেলে সাজাতে চায় নাকি দলের ক্ষমতা কুক্ষিগত করতে চায়, সেটি কিন্তু পরিষ্কার নয়। এটি জানার জন্য অপেক্ষা করতে হবে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি