মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০২১
  • প্রচ্ছদ » জাতীয় » মুশতাক আহমেদের স্বাভাবিক মৃত্যু নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় অপপ্রচার; নেপথ্যে কারা



মুশতাক আহমেদের স্বাভাবিক মৃত্যু নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় অপপ্রচার; নেপথ্যে কারা


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
27.02.2021

ডেস্ক রিপোর্ট: সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন মাধ্যমে রাষ্ট্রবিরোধী অপপ্রচারের দায়ে অভিযুক্ত লেখক মুশতাক আহমেদের স্বাভাবিক ভাবে মৃত্যু হয়েছে। এই স্বাভাবিক মৃত্যুকে ভিন্নখাতে নিতে ফেসবুক, মেসেঞ্জার, ইউটিউব, হোয়াটসঅ্যাপসহ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় অপপ্রচার শুরু করেছে চিহ্নিত দেশবিরোধী সায়ের জুলকারনাইন সামি, মুশতাক, মিনহাজ মান্নান। সায়ের জুলকারনাইন সামি, মুশতাক, মিনহাজ মান্নান তিনজনই বিভিন্ন সময় সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে দেশী-বিদেশী অপশক্তির সাহায্যে গুজব এবং ষড়যন্ত্র পরিচালনাকারী এই চক্র মুশতাক আহমেদকে নির্যাতন করে মারা হয়েছে বলে অনলাইনে প্রচার করছে। অথচ প্রকৃত সত্য হচ্ছে, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে মুশতাক আহমেদের।

সায়ের জুলকারনাইন সামি, মুশতাক, মিনহাজ মান্নান তিনজনই ফৌজদারহাট ক্যাডেট কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী। এজন্য তারা তিনজনই খুব ঘনিষ্ট ছিলেন এবং তিনজনই সরকার বিরোধী অপপ্রচারে জড়িত ছিলেন। যার প্রমাণ I am Bangladeshi পেইজ, আলজাজিরার রিপোর্ট।

জানা গেছে, গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে মুশতাক আহমেদকে প্রথমে কারা হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এরপর তাকে গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু ঘটে।

মুশতাক আহমেদের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, কারাবন্দী হওয়ার আগে থেকেই তিনি উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিসসহ নানাবিধ শারীরিক জটিলতায় ভুগছিলেন। এসব জটিলতার কারণেই তিনি মারা গেছেন বলে জানিয়েছে কারা সূত্র।

হাসপাতাল মর্গে মুশতাক আহমেদের চাচাতো ভাই ডা. নাফিছুর রহমান বলেন, ‘মুশতাকের ময়না তদন্ত হয়েছে। আমাদের কোনো অভিযোগ নাই।’

যেখানে মুশতাক আহমেদের ভাইয়ের কোন অভিযোগ নেই সেখানে এই স্বাভাবিক মৃত্যুকে ভিন্নখাতে নিয়ে সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে অপপ্রচার শুরু করেছে চিহ্নিত দেশবিরোধী সায়ের জুলকারনাইন সামি, মুশতাক, মিনহাজ মান্নান গং।

জানা গেছে, মহামারী করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের সাফল্যকে ম্লান করে দিতে গত বছর I am Bangladeshi ফেসবুক পেজের মাধ্যমে অপপ্রচার শুরু করেন মুশতাক আহমেদ, কার্টুনিস্ট কিশোরসহ তাসনিম-পিনাকী সায়ের জুলকারনাইন সামি, মিনহাজ মান্নান গংরা। তারা করোনা সম্পর্কে নানা মিথ্যা তথ্য দিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করে। আন্তর্জাতিক মহলে সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে এসব অপপ্রচার চালায় তারা। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ নিয়ে বিভ্রান্তিকর প্রচারণা চালায়। রাষ্ট্রবিরোধী এসব ষড়যন্ত্র করায় সেসময় গ্রেফতার হন মুশতাক আহমেদ এবং কিশোর।

সূত্র জানায়, আল জাজিরার অপপ্রচারে কাজ না হওয়ায় এখন নতুন করে মুশতাক আহমেদের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরির চক্রান্ত করছে পিনাকী- খলিল গংরা। সরকার পতনের নানা অপচেষ্টা করে ব্যর্থ হওয়া দেশী-বিদেশী গোষ্ঠীর ক্রীড়নক হিসেবে কাজ করছে এই চক্র।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা জানান, সরকার পতনে এই চক্র আগেও নানা ভিত্তিহীন তথ্য প্রচার করেছে। দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য দেশী-বিদেশী অপশক্তির কাছ থেকে বিপুল অঙ্কের টাকার বিনিময়ে এরা অপপ্রচার চালায়। এর আগে আল জাজিরার সাথে মিলেও এরা সরকার পতনের চেষ্টা চালিয়েছে। কিন্তু সে চেষ্টা ব্যর্থ হওয়ায় আবার নতুন অপপ্রচারে নেমেছে। এদের অপপ্রচার থেকে দেশের জনগণকে সাবধান থাকারও আহবান জানান রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

 



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি