রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » other important » বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লেখক মুশতাক আহমেদের অন্যতম দোসর মিনহাজ মান্নানের যত কুকীর্তি



বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লেখক মুশতাক আহমেদের অন্যতম দোসর মিনহাজ মান্নানের যত কুকীর্তি


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
28.02.2021

ডেস্ক রিপোর্ট: বাংলাদেশকে একটি অকার্যকর দেশ হিসেবে বিশ্বে প্রমাণ করতে এবং উন্নয়নকে থামিয়ে দিতে যে সমস্ত ষড়যন্ত্রকারী অপপ্রচার চালাচ্ছে তাদের মধ্যে অন্যতম একজন হলেন মিনহাজ মান্নান ইমন। লেখক মুশতাক আহমেদের অন্যতম দোসর এই মিনহাজ মান্নানের কুকীর্তির শেষ নেই।

বিএনপির মতাদর্শী এই মিনহাজ মান্নান জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর অবমাননার দায়ে দায়ী। মিনহাজ মান্নান ইমন বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকীকে ‘‘গজব শতবর্ষ’’ বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার করে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের এক কর্মকর্তা জানান, বঙ্গবন্ধুকে অবমাননার উদ্দেশ্যে মিনহাজ মান্নান ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের এমডি হিসাবে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পুষ্পস্তবক অনুষ্ঠানে অংশ নেয়নি। এছাড়াও চেয়ারম্যান, এমডি ও বোর্ড রুমে বঙ্গবন্ধুর ছবি প্রতিস্থাপনে বাধা দেয় এই মিনহাজ মান্নান।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মিনহাজ মান্নান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে অপপ্রচার করত। লেখক মুশতাক এবং মিনহাজ মান্নান ইমন ‘‘I am Bangladehi’’ ফেসবুক পেজের মাধ্যমে এসব অপপ্রচার করত। মুশতাক আহমেদ এই পেজের এডিটর ছিল। মিনহাজ দেশের বিরুদ্ধে অপপ্রচারমূলক পোষ্টসমূহ নিয়মিতভাবে লেখক মুশতাক আহমেদকে শেয়ার করে ভাইরাল করত।

মিনহাজ মান্নানের ফেসবুকে দেখা গেছে, বাংলাদেশবিরোধী ষড়যন্ত্রের অন্যতম সদস্য ডেভিড বার্গম্যানের সাথে তার বন্ধুত্ব আছে। এই বার্গম্যান যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের সময় স্বাধীনতাবিরোধী জামায়াতের পক্ষে কাজ করেছে। সে নিয়মিত দেশের অভ্যন্তরে ও দেশের বাইরে বাংলাদেশে সম্পর্কিত গুজব, ষড়যন্ত্র অপপ্রচার করে থাকে।

সূত্র জানায়, লেখক মুশতাক আহমেদের সাথে মিনহাজ মান্নানের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল। ফেসবুকের মাধ্যমে গুজব প্রচারের মাধ্যমে এরা দেশকে অস্থিতিশীল করতে চেয়েছিল।

দেশের স্বার্থে মুশতাক আহমেদ এবং মিনহাজ মান্নানের সাথে যুক্ত সকল অপপ্রচারকারীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসা উচিত বলে জানান বিশিষ্টজনরা।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি