রবিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Breaking » আবারও সহিংস রাজনীতিতে বিএনপি, পুলিশের উপর আঘাত



আবারও সহিংস রাজনীতিতে বিএনপি, পুলিশের উপর আঘাত


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
28.02.2021

আবারও নিজেদের পূর্বরূপে ফিরে গেলো বিএনপি। প্রতিহিংসা পরায়ণ হয়ে সফল সরকারব্যবস্থাকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে আন্দোলনের নামে তারা পুলিশের উপর হামলা চালিয়েছে। রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর প্রেসক্লাবের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

দায়িত্বশীল সূত্রের তথ্যমতে, জিয়াউর রহমানের ‘বীর উত্তম’ খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্ত এবং কারাগারে লেখক মুশতাক আহমেদের স্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনাকে ভিন্নরূপ দিতে নিজেদের রাজনৈতিক এজেণ্ডা অনুযায়ী বিএনপি তার ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলকে নির্দেশনা দেয়। লন্ডনে পলাতক ফেরারি আসামি ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান তাদের সাফ জানিয়ে দেন, যে কান মূল্যেই বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে হবে। সরকারকে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলতে হবে। তার কর্মীরাও তার কথা রেখেছেন। জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে পুলিশের উপর হামলা চালিয়েছেন।

বাংলা নিউজ ব্যাংকের সঙ্গে আলাপনে শাহবাগ থানার পুলিশ কর্মকর্তা আবুল বাশার বলেন, এ ঘটনায় পুলিশের বেশ কয়েকজন সদস্য আহত হয়েছেন। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ও আত্মরক্ষার্থে বাধ্য হয়ে পুলিশ টিয়ার শেল ছোড়ে। এখনও প্রেসক্লাব এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

সূত্রটি আরও জানায়, তারেক রহমানের মাস্টারপ্ল্যান অনুযায়ী বিশৃঙ্খলা তৈরির উদ্দেশ্যে প্রতিবাদ সমাবেশের জন্য কোনো প্রকার অনুমতি নেয়নি ছাত্রদল। বিষয়টি পুলিশ তাদেরকে বললে, চড়াও হয়ে পুলিশের উপর হামলা চালায় ছাত্রদলের ক্যাডার বাহিনী।

তবে বিষয়টি অস্বীকার করে ছাত্রদলের দাবি, হামলার ঘটনাটি সত্য নয়। আমরা এমন করতেই পারি না। কোনভাবেই না। কারণ আইনের প্রতি আমাদের যথেষ্ট শ্রদ্ধা-ভক্তি আছে।

এ ব্যাপারে পুলিশের রমনা জোনের ডিসি সাজ্জাদুর রহমান বলেন, আগে থেকে এ ধরনের সমাবেশের কথা আমরা শুনিনি। গত রাতে হঠাৎ করে তারা সমাবেশ ডাকে। সকালে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা প্রেসক্লাবের ভেতরে জড়ো হতে থাকে। প্রেসক্লাবের সামনের সড়ক গুরুত্বপূর্ণ হওয়ায় এখানে সমাবেশের জন্য অনুমতির প্রয়োজন হয়। কিন্তু তাদের অনুমতি ছিল না। আমরা সকালেও তাদের অনুমতি নিতে বলেছি। কিন্তু তারা অনুমতি না নিয়ে সমাবেশের চেষ্টা করে এবং প্রেসক্লাবের ভেতর থেকে ইটের টুকরা ছোড়ে। এরপরই মূলত সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে পুলিশের বেশ কয়েকজন সদস্য আহত হয়েছেন। তাদের বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ছাত্রদলের কয়েকজনকে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

দেশের রাজনৈতিক বিজ্ঞজনরা বলছেন, এই ঘটনা পূর্ব পরিকল্পিত এবং এর মাস্টারমাইন্ড তারেক রহমান ব্যতীত আর কেউ নন। তিনিই সব কলকাঠি নেড়েছেন পূর্বের ন্যায়। দেশ ও দশের ভালো তার সহ্য হয় না। দেশ এখন উন্নয়নশীল দেশের কাতারে, বহির্বিশ্বে সরকারপ্রধানের নিপুণ নেতৃত্বে বাংলাদেশের জয়জয়কার। এসব দেখে গাত্রদাহ শুরু হয়ে গেছে তার। এ কারণে প্রতিহিংসা পরায়ণ হয়ে সহিংস রূপে ফিরেছে বিএনপি। চাইছে নিজেদের রাজনৈতিক এজেণ্ডা বাস্তবায়ন করতে। কিন্তু সরকার ও দেশের জনগণ জেগে আছে। তারা কোনভাবেই তাদের অসৎ উদ্দেশ্য সাধন করতে দেবেনা। রুখে দেবে তাদের সব ষড়যন্ত্র।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি