মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » অবশেষে জামায়াতকে ‘গুড বাই’ জানাচ্ছে বিএনপি!



অবশেষে জামায়াতকে ‘গুড বাই’ জানাচ্ছে বিএনপি!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
03.03.2021

সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট থেকে বাদ পড়তে যাচ্ছে জামায়াত। শুধু তাই নয়, অদূর ভবিষ্যতেও ধর্ম ও মুক্তিযুদ্ধকে ব্যবসার পণ্য বানানো দলটির সান্নিধ্য থেকে নিজেদের বিরত রাখবে বলে বিএনপির পক্ষ থেকে সাফ জানানো হয়েছে। এ নিয়ে রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন চাউর হয়েছে, প্রয়োজন শেষ বলেই জামায়াতের সঙ্গে এমনটা করছে বিএনপি। অথচ তারাই শুরু থেকে ২০ দলীয় জোটের ফান্ডে সবচেয়ে বেশি অর্থায়ন করে আসছে।

নির্ভরযোগ্য সূত্রের তথ্যমতে, একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধ থেকে অদ্যাবধি নানা কর্মকাণ্ড নিয়ে বিতর্কিত বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী। অথচ সেই তাদেরকেই জোটে ঠাঁই দিয়ে নিজেদের উদ্দেশ্য হাসিলের পথে অগ্রসর হয়েছিল বিএনপি। বানিয়েছিল ২০ দলীয় জোটের অন্যতম প্রধান মিত্র দল। তারই ধারাবাহিকতায় যুদ্ধাপরাধীরা তাদের গাড়িতে উড়িয়েছিল লাল-সবুজের পবিত্র জাতীয় পতাকা। সগর্বে বুক ফুলিয়ে বেড়িয়েছিল পুরো দেশ। জঙ্গিবাদের উত্থানও হয় তাদের মাধ্যমে। পরবর্তীতে বিষয়টি নিয়ে তুমুল বিতর্ক সৃষ্টি হলে জামায়াতকে কেন্দ্র করে বিএনপির গায়ে লাগে কলঙ্কের কালিমা। তবুও কাঁঠালের আঠার মতো তাদের সঙ্গে লেগেছিল বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট। কারণ, একটাই। দলের বৃহৎ ফান্ডিং আসতো তাদের পক্ষ থেকেই।

কিন্তু হঠাৎই যেন তাদের সুসম্পর্কে ছন্দপতন। প্রায় ছয় বছর ধরে জামায়াতের সঙ্গে দূরত্ব বিএনপির। এ কারণে বিগত অনুষ্ঠিত নির্বাচনগুলোতে জামায়াতকে একপেশে করে রাখে বিএনপি, প্রার্থীও দিতে দেয়নি ঠিকঠাক। এমনকি জোটের গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণের সময়েও তাদের মতামতকে প্রাধান্য দেয়া হয়নি। এসব দেখে জোটের অভ্যন্তরে গুঞ্জন ওঠে, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে প্রয়োজন ফুরাচ্ছে জামায়াতের। আর সেই গুঞ্জন এখন সত্যির পথে। সাম্প্রতিক বিএনপির কর্মকাণ্ডে তেমনটাই প্রকাশ্য হচ্ছে।

বাংলা নিউজ ব্যাংকের সঙ্গে আলাপনে এ ব্যাপারে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, জামায়াতের সঙ্গে সম্পর্ক রাখা না রাখার ব্যাপারে বিএনপিতে চূড়ান্ত আলোচনা চলছে। তবে এখনও কোন সিদ্ধান্তে উপনীত হওয়া যায়নি। আশাকরছি, শিগগিরই এ ব্যাপারে সবাই জানতে পারবে।

একই সুরে কথা বললেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির স্থায়ী কমিটির একাধিক সদস্য। তাদের ভাষ্য, নীতি নির্ধারণী ফোরামে বিষয়টি আলোচনায় আসে গত বছরের শেষ দিকে। মাঝে সেই আলোচনায় কিছুদিন বিরতি ছিল। যা বর্তমানে জোরেশোরেই আলোচনা হচ্ছে। তবে এখনও ক’জন সিনিয়র নেতা, তাদের পক্ষে সাফাই গাইছেন। বলছেন, তাদের সঙ্গে ভোটের একটা হিসাব নিকাশ রয়েছে। তাছাড়া ২০ দলীয় জোটের বৃহৎ অংশের ব্যয়ও তারা বহন করে।

এ বিষয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, অবশেষে বিএনপির শুভবুদ্ধির উদয় হয়েছে। তারা স্বাধীন বাংলাদেশে অপরাজনীতি চালুর জনক জামায়াতে ইসলামীর সঙ্গ ত্যাগের ব্যাপারে উদ্যোগ নিয়েছে। আশাকরি, শিগগিরই এ উদ্যোগ বাস্তবায়িত হবে। আস্তাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত হবে ধর্ম ও মুক্তিযুদ্ধকে ব্যবসার হাতিয়ার বানিয়ে দেশে জঙ্গিবাদের বীজ বপনকারী এই দলটি।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি