রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » বিএনপির অনুষ্ঠানে দাওয়াত পায়নি জামায়াতে ইসলাম, ভাঙনের সুর



বিএনপির অনুষ্ঠানে দাওয়াত পায়নি জামায়াতে ইসলাম, ভাঙনের সুর


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
06.03.2021

নিউজ ডেস্ক : সোমবার (১ মার্চ) বিকালে রাজধানীর একটি হোটেলে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালন শুরু করে বিএনপি। উক্ত অনুষ্ঠানে ছিলো না বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নাম। আওয়ামী লীগের নেতারা দাওয়াত পেলেও দাওয়াত পায়নি বিএনপির শরিকদল জামায়াতে ইসলাম। এমনকি বিএনপি নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম শরিক ড. কামাল হোসেন, মাহমুদুর রহমান মান্নাও ছিলেন না অনুষ্ঠানে।

একাধিক নেতা জানান, দলের অনেক গুরুত্বপূর্ণ নেতাকেই সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। কোনো কোনো নেতা আমন্ত্রণপত্র পেয়েছেন অনুষ্ঠানের ঠিক আগে।

এক নেতা বলেন, তাকে এমনভাবে আমন্ত্রণপত্র দেওয়া হয়েছে যা রীতিমতো অসম্মান বোধ করেছেন। তাই অনুষ্ঠানেই যাননি। ওই নেতা বলেন, আপনারা খোঁজ নিয়ে দেখতে পারেন, উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বরচন্দ্র রায় তৃতীয় সারির একটি চেয়ারেও বসেছেন। গুরুত্বহীন আসনে ছিলেন স্থায়ী কমিটির অপর সদস্য মির্জা আব্বাস। যদিও এ নিয়ে ওই দুই নেতার সঙ্গে টেলিফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির একজন সদস্যের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানের নামে এটি একটি ফাজলামো হয়েছে। সব চেয়ে আশ্চর্যের বিষয় হলো, যাদের হাত ধরে ২০০১ এ আমরা ক্ষমতায় এসেছিলাম সেই জামায়াতকে দাওয়াত দেয়া হয়নি। আমরা কি বেঈমান হয়ে যাচ্ছি।

এ প্রসঙ্গে জামায়াতে ইসলামের নেতা ড. তুহিন মালিকের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, বিএনপির ব্যবহার বর্ণচোরাদের মতো। তারা হয়তো অতীত ভুলে গেছে। এমন একটি অনুষ্ঠানে জামায়াতের কোনো নেতাদের দাওয়াত দেয়া হয়নি। তবে খেয়াল করলে দেখবেন, আওয়ামী লীগের নেতাদের ঠিকি দাওয়াত দেয়া হয়েছে। বিষয়টি প্রমাণ করে বিএনপিতে আওয়ামী লীগের এজেন্ট ঢুকে গেছে। ফলে বোঝাই যাচ্ছে, এ দলের ক্ষমতায় যাওয়া আর কোনো ভাবেই সম্ভব নয়। কারণ তারা নিজেরাই সরকারের সঙ্গে আঁতাত করে বসে আছে। জামায়াতে ইসলাম বিএনপির জোট থেকে মুক্ত হবার চিন্তা করছে। কারণ এমন অপমানের পরও জোটে থাকার চেয়ে না থাকাই শ্রেয়।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি