রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১



বিএনপির সংগঠন স্বেচ্ছাসেবক দলকে ভুলে যাচ্ছে সবাই


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
10.03.2021

নিউজ ডেস্ক: সাধারণ মানুষের অধিকার রক্ষা, গণতন্ত্র রক্ষা এবং দুর্যোগে জনগণকে স্বেচ্ছায় সেবা দেওয়ার লক্ষ্য নিয়ে গঠিত হলেও কোন রকম সেবামূলক কার্যক্রমের অংশীদার হতে পারছেন না বিএনপির অঙ্গ সংগঠন ‘জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল’। এক অর্থে নামেই সীমাবদ্ধ রয়েছে সংগঠনটির যাবতীয় কার্যক্রম। নাম সর্বস্ব অঙ্গ-সংগঠন হওয়ায় অবহেলাও জুটছে নেতা-কর্মীদের কপালে।

১৯৮০ সালে স্বেচ্ছাসেবক দলের যাত্রা শুরু করে। দীর্ঘ ৪১ বছর পার করলেও স্বেচ্ছাসেবার আদর্শ থেকে অনেকটাই বিচ্যুত হয়ে আছেন সংগঠনটির নেতাকর্মীরা। দলীয় সমন্বয়হীনতা ও অবহেলা, খোঁজ-খবর না নেয়া, আর্থিক অনুদান বন্ধ করে দেয়ার মতো একাধিক কারণে স্থবির হয়ে পড়েছে সংগঠনটির কার্যকলাপ।

স্বেচ্ছাসেবক দলের একাধিক কেন্দ্রীয় নেতার সঙ্গে কথা বলে তথ্যের সত্যতা সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

এই বিষয়ে কিছুটা ক্ষোভ প্রকাশ করে স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, স্বেচ্ছাশ্রম দিয়ে দেশ সেবার কথা বলা হলেও মূলত রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডকেই প্রাধান্য দিতে হয় স্বেচ্ছাসেবক দলকে। স্বেচ্ছা শ্রমের ভিত্তিতে দেশব্যাপী কর্মসূচি দেয়ার ইচ্ছা থাকলেও রাজনৈতিক কারণে হয়ে ওঠে না। এছাড়া বিগত ৫ বছরে স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটিকে কোন রকম আর্থিক অনুদান দেয়া হয়নি। অনেকটা নিজের খেয়ে বনের মোষ চরাতে হচ্ছে আমাদের। এভাবে তো একটা সংগঠন চলতে পারে না। সেখানে আবার স্বেচ্ছাশ্রম কিভাবে দেয়া যায়?

সংগঠনের আদর্শ থেকে বিচ্যুত হওয়া প্রসঙ্গে স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূঁইয়া বলেন, বিএনপি থেকে আমাদের সংগঠনের জন্য নির্ধারিত কোনও আর্থিক বরাদ্দ নেই। অঙ্গ সংগঠন হওয়ায় স্বেচ্ছাসেবক দল স্বেচ্ছায় সেবা দেওয়া তো দূরের কথা, সাংগঠনিক দুর্বলতার কারণে মূল দলের আন্দোলন-সংগ্রামেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে খুব বেশি সমর্থ হচ্ছে না। ফলে সংগঠনটির কার্যক্রম অনেকটাই মুখ থুবড়ে পড়েছে। তবে আশা করি অচিরেই স্বেচ্ছাসেবক দল ঘুরে দাঁড়াবে এবং রাজনীতির পাশাপাশি দেশবাসীর সেবা করতে পারবে। স্বেচ্ছাসেবক দল অচিরেই মূল দলের আস্থা অর্জন করতে পারবে বলেও আমরা আশাবাদী।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি