বুধবার ২১ এপ্রিল ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » ডা. জাফরুল্লাহকে নিয়ে অশালীন মন্তব্য বন্ধ করতে তারেকের নির্দেশ!



ডা. জাফরুল্লাহকে নিয়ে অশালীন মন্তব্য বন্ধ করতে তারেকের নির্দেশ!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
11.03.2021

নিউজ ডেস্ক : তারেক রহমানকে রাজনীতি থেকে অব্যাহতি নিয়ে জাইমা রহমানকে বিএনপির হাল ধরতে বলার পর থেকেই বিএনপির বেশ কয়েকজন স্থায়ী কমিটির সদস্য এবং কেন্দ্রীয় নেতারা গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে নিয়ে বিদ্বেষমূলক বক্তব্য দিচ্ছিলেন। এমনকি ডা. জাফরুল্লাহর সাথে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সু-সম্পর্ক থাকা নিয়েও নানা কটূক্তি চলে দলের অভ্যন্তরে।

আর এসব নিয়ে মহাসচিবের সাথেও সম্পর্কের অবনতি হয় দলের বেশ কয়েক নেতার। যদিও বিষয়টি নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া কিংবা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান কখনোই মুখ খুলেননি। দলের একাধিক দায়িত্বশীল সূত্রের বরাতে অভিযোগের সত্যতা সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

একটি সূত্র বলছে, ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শীর্ষ নেতা জামায়াতে ইসলামীর আমির শফিকুর রহমান ডা. জাফরুল্লাহকে ‘‘সরকারের পেইড এজেন্ট’’ বলে মন্তব্য করে আলোচিত হয়েছেন। শফিকুর রহমানের এমন মন্তব্য নিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে তোলপাড় চলছে। বিষয়টি নিয়ে ২০ দলীয় জোটের সাথে সম্পর্কের অবনতি হওয়ার আশংকায় লন্ডনে থাকা তারেক রহমান বার্তা পাঠিয়েছেন এধরণের মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকতে।

সূত্র জানায়, তারেক রহমান বলেছেন, বিষয়টি নিয়ে তারেক রহমান ডা. জাফরুল্লাহর সাথে প্রয়োজনে কথা বলবে। তারেক রহমান হুশিয়ারি করে বলেন, আপাতত জাফরুল্লাহ সাহেবকে রাগানো যাবে না। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, সরকার এখন শক্ত অবস্থানে রয়েছেন।

যদি এ সময় ডা. জাফরুল্লাহকে নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করা হয়, তবে সরকার বিএনপিকে নিয়ে বাজে মন্তব্য করার আরো বেশি সুযোগ পেয়ে যাবেন। সেজন্য এখন বিভেদ তৈরি না করে ঐক্য সুদৃঢ় করার নির্দেশ দেন।

উক্ত সূত্রটি আরো জানায়, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে ঢাকায় অবস্থানরত বিদেশী কূটনীতিকদের সাথে ঘন-ঘন বসারও আহ্বান জানান। আর এ প্রক্রিয়ায় ডা. জাফরুল্লাহকে যুক্ত করারও নির্দেশ দেন তারেক রহমান।
লন্ডনের ঐ সূত্রটি আরো জানায়, সহসাই বিএনপি সমর্থিত পেশাজীবী সংগঠনগুলো সক্রিয় করার নির্দেশনা দিয়েছেন তারেক রহমান।

এদিকে হঠাৎ করে তারেক রহমানের ডা. জাফরুল্লাহ প্রীতি সহ্য করতে পারছেন না বিএনপির অনেক নেতাই। অনেকেই বলছেন, বিএনপির মহাসচিবের পদ থেকে মির্জা ফখরুলকে সরিয়ে ডা. জাফরুল্লাহকে বসানো হবে। আর এই জন্যই ডা. জাফরুল্লাহকে নিয়ে বাজে মন্তব্য করতে বারণ করছেন তারেক রহমান।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি