রবিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১



তলে তলে ভারতের মন জয় করতে চাইছে বিএনপি


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
16.03.2021

নিউজ ডেস্ক: বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদে মদদ দেয়ার অভিযোগে ভারতের আস্থা হারিয়ে ফেলে বিএনপি। পরে ভারত সরকারের সুদৃষ্টি ফেরাতে বারবার চেষ্টা করেও দলটি ব্যর্থ হয়। এবার বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে নরেন্দ্র মোদির ঢাকায় আগমনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে নতুন কৌশলে নেমেছে দলটি। ইতিমধ্যে জোট ও দলের শীর্ষ নেতারা মোদি সরকারের গুণগান শুরু করেছেন। যা তাদের সমন্বিত কৌশল বলেই বিবেচিত হচ্ছে।

মোদি সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, ভারতে গণতন্ত্র সফল। আমরা ভারতকে সব সময় বন্ধু হিসেবেই দেখি। ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্কের ভিত্তিটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বিএনপি ভারত সরকারের সান্নিধ্য চায়। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানও নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে আছেন।

এছাড়া খসরু বলেছেন, মুখে মুখে নয়, মোদি সরকারের উদ্দেশে বিএনপির অভিনন্দন বার্তা লিখিত আকারে দেয়া হবে। আমরা চাই, দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদারে ভারতের নতুন সরকার যাতে বিএনপির স্বার্থকে গুরুত্ব দেয়।

এদিকে সুদৃষ্টি ফেরাতে গণফোরাম নেতা ড. কামালকেও ‘নিয়োগ’ দিয়েছে বিএনপি। আর তাই এরইমধ্যে নরেন্দ্র মোদি ও অমিত শাহকে অভিনন্দন জানিয়ে দুটি চিঠি গণমাধ্যমে পাঠিয়েছে ড. কামাল। জানা গেছে, ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনে চিঠি পাঠানোর মাধ্যমে ড. কামাল হোসেন এ অভিনন্দন জানান। চিঠিতে কামাল হোসেন বলেন, অদূর ভবিষ্যতে তিনি পারস্পরিক আগ্রহের বিষয় নিয়ে নরেন্দ্র মোদি, অমিত শাহ ও বিজেপি নেতাদের সঙ্গে আলোচনার জন্য বৈঠক করতে চান। চিঠিতে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের সম্পর্কের বিষয়েও উল্লেখ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, বিএনপি শাসনামলে উত্তর-পূর্ব ভারতের বিদ্রোহীরা বাংলাদেশে আশ্রয়-প্রশ্রয় পায়। এছাড়া তারেক রহমানের তত্ত্বাবধায়নে দশ ট্রাক অস্ত্রের চালানের মতো ঘটনা ঘটে, যেটা ভারতের কাছে খুবই স্পর্শকাতর বিষয় হয়ে দাঁড়ায়। এ নিয়ে ভারত বিএনপির প্রতি নাখোশ। ফলে বিএনপির এসব কৌশল ও মিষ্টি কথা ভারতের সুদৃষ্টি ফেরাতে কতোটা সহায়ক হবে তা এখনই বলা যাচ্ছে না।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি